ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

গ্রামবাসীর বাধার মুখে ভিসি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৮:২৯ ৯ অক্টোবর ২০১৯ | আপডেট: ১৮:৫৯ ৯ অক্টোবর ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করতে গেলে বাধার মুখে পড়েন বুয়েটের ভিসি সাইফুল ইসলাম।

আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালীর রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান তিনি। সেখানে গিয়ে প্রথমে তিনি আবরারের কবর জিয়ারত করেন। এরপর আবরারের বাড়িতে যেতে চাইলে গ্রামবাসীর বাধার মুখে পড়েন তিনি। সাধারণ মানুষজন পথরোধ করে দাঁড়ালে এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন।

এ সময় এলাকার স্থানীয় শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষরা গাড়ীর সামনে বিক্ষোভ করতে থাকে। তারা ভিসির পদত্যাগ ও হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন।

স্থানীয়রা জানান, কুমারখালী থেকে যেতে প্রথমে কবরস্থান পড়ে। পরে আধা কিলোমিটারের মাথায় আবরারদের বাড়ি। আবরার এর মায়ের সঙ্গে ভিসি সাইফুল ইসলাম দেখা করতে চাইলে স্থানীয় শত শত নারী-পুরুষ আবরারদের গ্রামের বাড়ির সামনের সড়কে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় বাড়ি ঢোকার মুখে ভিসির গাড়ির সামনে শুয়ে পড়েন নারীরা। পুলিশ তখন লাঠিচার্য করলে অনেকে আহত হয়।

পরে বিক্ষোভের মুখে পিছু হটে ভিসির গাড়ি বহর। এরপর পুলিশ পাহারায় ঢাকার দিকে রওয়ানা দেন ভিসি।

এর আগে বুধবার বিকালে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে পৌঁছান বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। সেখান থেকে কুমারখালী উপজেলায় রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান তিনি।

রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে আবরারের কবর জিয়ারত ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল ভিসির। এ খবরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য মোতায়েন করা হয়। আবরারের বাড়ির পাশে ও কবরের আশপাশের এলাকায় অসংখ্য র‌্যাব ও পুলিশ অবস্থান নেয়।

এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি