ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২০:২৬:২৪

বরগুনায় বাস-মাইক্রোর সংঘর্ষে আহত ৭  

বরগুনায় বাস-মাইক্রোর সংঘর্ষে আহত ৭  

বরগুনায় বাস-মাইক্রোর সংঘর্ষে এক প্রসূতি নারীসহ ৭ জন মারাত্মক আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনাটি ঘটে বেতাগী উপজেলার চান্দুখালী বাজারের ব্রিজের কাছে। শুক্রবার বিকাল ৩টায় সুবিদখালী থেকে বরগুনাগামী যাত্রীবাহি মাইক্রোর সঙ্গে বরগুনা থেকে বরিশালগামী দোয়েল পরিবহনের একটি বাসের ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।    গুরুতর আহতদের মধ্যে তিনজনকে বরিশাল (শেবাচিম) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। চান্দুখালী বাজারে অবস্থিত ফায়ার সার্ভিসের ক্যাপ্টেন মো. জিয়াউল করিম বলেন, দুর্ঘটনার সময় উভয় চালক বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। একইসঙ্গে বৈরী আবহাওয়ার কারণে নিয়ন্ত্রণ হারালেওই সংঘর্ষ ঘটে। এসি    
রাজশাহীতে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে টাকা ছিনতাই

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুরে পাট ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে পাঁচ লাখ টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা। ছিনতাইকারীর হামলায় আহত পাট ব্যবসায়ীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে তাহেরপুর পৌরসভার চকিরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত পাট ব্যবসায়ীর নাম ইউসুব আলী। তার বাড়ি তাহেরপুর পৌরসভার চকিরপাড়া এলাকায়। তাহেরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লুৎফর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনার পর তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার মাথা ও শরিরে তিনটি ধরারো অস্ত্র ও লোহার রডের আঘাত রয়েছে। তদন্ত করে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। ইউসুব আলীর শ্যালক সোহেল রানা জানান, শুক্রবার তাহেরপুর হাট বার। ভোর থেকেই তাহেরপুর হাটে পাট কেনাবেচা হয়। সে কারণে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে পাট কেনার জন্য একটি ব্যগে টাকা নিয়ে তিনি বাড়ি থেকে বের হন। প্রতি হাট বারে তিনি একই সময় একই রাস্তা দিয়ে হেটে হাটে যান। সোহেল রানা আরও বলেন, বাড়ি থেকে একাই বের হয়ে প্রায় ১০০ গজের মত হেটে যান ইউসুব আলী। সেখানে একটি পুকুর পাড়ে ৩/৪ জন দুর্বৃত্ত তাকে পিছন থেকে প্রথমে লোহার রড দিয়ে আঘাত করে। এর পর চাইনিজ কুড়াল দিয়ে দুইটি কোপ দেয়। এতে সে পড়ে গেলে দুর্বৃত্তরা তার টাকা ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে খবর দেয় বলে জানান সোহেল। বাগমারা থানার ওসি নাছিম আহমেদ বলেন, ছিনতাইকারীদের সনাক্ত করতে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। দ্রুত তাদের ধরে আইনের আওতায় আনা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। এসএইচ/  

পায়েল হত্যার বিচার দ্রুত সময়েই হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রয়াত ছাত্র সাইদুর রহমান পায়েলের পরিবার ও স্বজনেরা। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের লবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে স্বজনদের এই সাক্ষাৎ হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন, জাতীয় সংসদের চিফ হুইফ আ স ম ফিরোজ, আাওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সন্দ্বীপের সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন, পায়েলের বাবা গোলাম মোস্তফা, মা কোহিনূর বেগম, পায়েলের তিন মামা কামরুজ্জামান চৌধুরি টিটু, দীপু চৌধুরি, দৈনিক সমকালের চট্টগ্রামের ব্যুরো চীফ সাংবাদিক সরোয়ার সুমন, একুশে টেলিভিশন অনলাইনের সাংবাদিক কাজী ইফতেখারুল আলম তারেক। এ সময় পায়েলের বাবা মা’র মুখে পায়েল হত্যার বিস্তারিত বর্ণনা শুণে কেঁদে ফেলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী গভীর মনোযোগ দিয়ে পায়েলের মা বাবার কথা শুনেন এবং তাদেরকে সান্তনা দেন। আবেগতাড়িত কন্ঠে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি নিজেও স্বজন হারানোর বেদনা নিয়ে বেঁচে আছি। শেষ বারের মতো আমি আমার পরিবারের স্বজনদের দেখতে পারিনি। আপনাদের বেদনা আমি বুজতে পারি। দ্রুততম সময়ের মধ্যে পায়েল হত্যার বিচার হবে।পায়েলের বাবা দ্রুত সময়ের মধ্যে ছেলের বিচার দাবি করলে, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনি আপনার কর্মস্থলে ফিরে যান, আমরা তো দেশে আছি। এটা আমরা দেখবো। এ হত্যাকান্ডের বিচার হবেই।’ এই হত্যাকান্ডের বিচার প্রক্রিয়া সঠিকভাবে হচ্ছে কী না? তা নিজেই নজরদারি ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি যেন হয় সে ব্যাপারে স্বজনদের আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী। উল্লেখ্য, সাইদুর রহমান পায়েল গত ২১ জুলাই দিনগত রাতে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে হানিফ পরিবহনের ঢাকা মেট্রো-ব- ৯৬৮৭ নম্বরের গাড়িতে রওনা করে। রাত ৪টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ভবেরচর ব্রিজের কাছে যানজটে পড়ে বাস৷ এ সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাস থেকে নীচে নামে পায়েল৷ এরমধ্যেই যানজট কিছুটা কমলে বাস এগোতে থাকে৷ পায়েল দৌড়ে এসে বাসে উঠতে গিয়ে বাসের দরজার সঙ্গে ধাক্কা লেগে নাকে মুখে আঘাত পায়৷ তাঁর নাক-মুখ থেকে রক্ত বের হয়৷ তখন সুপারভাইজার মনে করে মারা গেছেন৷ সুপারভাইজার ড্রাইভারকে এ কথা জানায়৷ বলে, ওস্তাদ মনে হয় মরে গেছে। নড়াচড়া করেনা। পরে তারা মনে করে তাদের কোনো বিপদ হবে। তাই ড্রাইভার, সুপার ভাইজার ও হেলপার এই তিনজন মিলে মাত্র ৫০ গজ দূরে ভবেরচর ব্রিজের ওপর নিয়ে তাকে নদীতে ফেলে দেয়। পায়েলের পরিবারের সদস্যরা পরের দিন সকালে তার সন্ধান না পেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করে। ২৩ জুলাই সোমবার সকালে গজারিয়ার ফুলদি নদীতে পায়েলের মরদেহ ভেসে ওঠে। এরপর পায়েলের মামা গোলাম সারোয়ারদী বিপ্লব বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় হানিফ পরিবহনের বাসচালক জামাল হোসেন (৩৫), সুপারভাইজার জনি (৩৮) ও হেলপার ফয়সালকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২৫ জুলাই তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারের পর জনি ও জামাল আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তাদের জবানবন্দিতে উঠে আসে, কত নির্মমভাবে তারা পায়েলকে হত্যা করে মরদেহ গুমের চেষ্টা করেন। অভিযুক্ত দুই আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির পরেও, মামলার চার্জশিট না দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে পায়েলের পরিবার। মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের দাবি করেছে পরিবার। উল্লেখ্য, নিহত পায়েলের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলার হরিশপুর ইউনিয়নে। সে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ৫ম সেমিস্টারের ছাত্র ছিলো। তার মৃত্যুর পর চট্টগ্রাম ও ঢাকাতে দোষীদের বিচারের দাবিতে নানান কর্মসূচি পালন করে বিভিন্ন সংগঠন।কেআই/  

ভারতে পাচার হওয়া ৩ নারীকে বেনাপোল দিয়ে ফেরত

ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে ভারতে পাচার হওয়ার আড়াই বছর পর বাংলাদেশি তিন নারীকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় বিএসএফ সদস্যরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিএসএফ সদস্যরা তাদের বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে হস্তান্তর করেন। ফেরত আসা তিন নারী হলো- রেহেনা খাতুন (২৩), রত্না খাতুন (২১) ও লাবনী আক্তার (১৮)। এরা যশোর জেলার শার্শা উপজেলার ডিহি ও দিনাজপুর জেলার বাসিন্দা। বিজিবির চেকপোস্ট ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার আব্দুল ওয়াহাব জানান, আড়াই বছর আগে এসব নারীদের ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে একটি দালাল চক্র সীমান্তের অবৈধ পথে ভারত নিয়ে যায়। পরে দালালরা তাদের ভালো কাজের প্রতিশ্রæতি ভঙ্গ করে তাদের ফেলে পালিয়ে যায়। এ সময় ভারতের পুলিশ তাদের আটক করে আদালতে পাঠায়। সেখান থেকে কলকাতার ‘সংলাপ’ নামের একটি এনজিও সংস্থা তাদের ছাড়িয়ে নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে। পরবর্তীতে এনজিও সংস্থা এ সব নারীদের নাম,ঠিকানা সংগ্রহ করে যাচাই-বাচাই করে। পরে দু‘দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করে ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের’ মাধ্যম বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। পরে তাদের বিজিবি বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করে। বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের’ মাধ্যমে তিন বাংলাদেশী নারী ভারত থেকে ফেরত এসেছে। কাগজপত্রের কাজ সম্পূর্ণ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে মানবাধিকার সংস্থা ‘রাইটস’ যশোরের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ‘রাইটস’ যশোরের তথ্য ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা বজলুর রহমান বলেন, থানা থেকে এই তিন নারীকে রাতেই যশোর নিয়ে আমাদের নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখা হবে। পরে তাদের অভিভাবকদের নিকট হস্তান্তর করা হবে। একে//

রাঙ্গামাটিতে দুইজনকে গুলি করে হত্যা

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় দুর্বৃত্তদের হামলায় আকর্ষণ চাকমা (৪২) ও শ্যামল কান্তি চাকমা (৩০) নামে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) দুই কর্মী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোররাতে উপজেলার রাম সুপাড়ি পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নানিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। জানা যায়, নানিয়ারচর উপজেলার রামসুপাড়ি পাড়ায় ১০/১২জনের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ হানা দেয়। এ সময় ইউপিডিএফ কর্মী আকর্ষণ চাকমা ও সুমন্ত চাকমা নিজ বাড়িতে ঘুমিয়েছিলেন। পরে তাদের ঘর থেকে ডেকে নিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রসীরা। মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য গুলি করে পালিয়ে যায় তারা। ওসি আব্দুল লতিফ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি বিশেষ দল গেছে। এলাকাটা দুর্গম হওয়ায় এখনও লাশ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি বলে জানান ওসি। একে//

রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় একটি বিকল বালুর ট্রাককে পেছন ধাক্কা দিয়েছে দ্রুতগামী একটি বাস। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০ জন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার বিড়ালদহ মাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকিল আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা হলেন- রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার মুক্তারপুরের বাসিন্দা ট্রাকচালক জাকির হোসেন (২৮), ট্রাকের হেলপার একই এলাকার সুমন (২৫) এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বাসিন্দা বাস হেলপার রিপু (২৫)। ওসি সাকিল উদ্দীন জানান, শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছিল। রাত ১২টার দিকে রাস্তায় বিকল বালুর ট্রাকটিকে বাসটি ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়। পরে খবর পেয়ে দমকল সদস্যরা লাশ উদ্ধার করে। আহতদের হাসপাতালে নেয় তারা। একে//

ইসলামপুরে ৭০০ ঘরবাড়ি নদী গর্ভে বিলীন

জামালপুরের ইসলামপুরে যমুনার পানি কমলেও ডানতীরে ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। প্রায় এক এক মাস যাবত ভাঙনে উপজেলার চিনাডুলী,নোয়ারপাড়া,সাপধরী ও বেলগাছা ইউনিয়নে প্রায় সাড়ে৭’শ ঘর-বাড়ি নদীতে ইতোমধ্যে বিলীন হয়েছে। আংশিক ক্ষতি হয়েছে ১৫শ পরিবারের ঘরবাড়ি। এ খবরটি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট ইউপির চেয়ারম্যানরা। বৃহস্পতিবার দুপুর পযর্ন্ত বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে ৪ সেন্টিমিটার পানি কমে এখনো বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে বাপাউ বোর্ড সূত্রে জানা গেছে। জানা যায়, বিগত এক মাস থেকে উপজেলার নদী ভাঙন শুরু হয়েছে। এতে চিনাডুলীর চরন্দন পাড়া গ্রামের ৫০টি,নোয়ারপাড়া কাটমা,কাজলা,মাইজবাড়ি,সোনামুখি গ্রামের ১৫০টি,সাপধরী কাশারীডোবা,চেঙ্গানিয়া,আকন্দপাড়া গ্রামের ২৫০টি,ও সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বেলগাছা ইউনিয়নের মন্নিয়া, বরুল, শীলদহ গ্রামের সাড়ে ৩০০টি ঘর বাড়ি বিলীন হয়েছে। বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,নদী ভাঙনে ভিটামাটি হারিয়ে সাপধরী ইউনিয়নের উত্তর কাশারীডোবা,চেঙ্গানিয়া,আকন্দপাড়া গ্রামের আড়াই শতাধিক পরিবার খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন যাপন করছে। অসহায় পরিবারগুলো গৃহপালিত প্রাণী, বৃদ্ধ ও শিশুসহ দক্ষিণ কাশারীডোবার উচুস্থানে খোলা আকাশের নীচে আশ্রয় নিয়ে চরম কষ্টের মধ্যে রয়েছে। সেখানে পানি,খাদ্য সংকটসহ যাতায়াতের রাস্তা না থাকায় তারা চরম দূর্ভোগে পড়েছে। ওই এলাকার নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত ওহেদ, নুরুল ইসলাম, রজব আলী, কোহিনুর, নাজমা বেগম জানান,সর্বনাশা যমুনা নদী আমাদের সব নিয়েছে। আমাদের আর অবশিষ্ঠ কিছুই নাই। আমরা বউ পোলা পান নিয়া কিভাবে চলবো। সাপধরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন জানান, আমার ইউনিয়নের প্রায় ১৫ দিন থেকে আড়াই শতাধিক ঘর বাড়ি নদীতে চলে গেছে। আংশিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৪’শ পরিবারের। তারা এখন খোলা আকাশের নিচে অবস্থান নিয়েছে। বেলগাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক জানান, সবচেয়ে আমার ইউনিয়নের ৩টি গ্রামের সাড়ে ৩ শতাধিক পরিবারের ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে। তারা এখন অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। তিনি ওইসব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা উপজেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ শাখায় দাখিল করেছেন বলে জানান। উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা দফতরের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান টিটু জানান, চেয়ারম্যানরা লিখিতভাবে নদী ভাঙনের সংবাদ জানিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা যাচাই বাচাই করা হচ্ছে। বাছাইয়ে যাদের নাম টিকবে তাদেরকে ঢেউটিনসহ প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হবে।এ বিষয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান,যাদের ঘর-বাড়ি নদীতে বিলীন হয়েছে। তাদের তালিকা আমার তৈরি করতেছি। তাদের কে সর্বত্র সহযোগিতা করা হবে। নদী ভাঙনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে পশ্চিম ইসলামপুরে যমুনা নদী ভাঙনরোধ করা সম্ভব না, যমুনার নদী পূর্ব পার্শ্বে (গুঠাইলের দিকে) ড্রেজিং এর কাজ করা হলে তখন এমনিতেই ওপারের চাপ কমে যাবে, তখন আর ওপারের নদী ভাঙবে না। এসএইচ/

দোহারে ফয়সাল হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

ঢাকার দোহার উপজেলায় পূর্ব বিরোধের জেরে প্রকাশ্যে ফয়সালকে (১৭) পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে ও খুনিদের দ্রুত গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। তাদের সঙ্গে একত্বতা প্রকাশ করেন উপজেলা ছাত্রলীগ ও সরকারি পদ্মা কলেজের শিক্ষার্থীরা। ফয়সাল উপজেলার সরকারি পদ্মা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ও মুকসুদপুর ইউনিয়নের শান্তিনগরের প্রবাসী মো. মজনু শেখের ছেলে। বৃহস্পতিবার দুপুরে আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে সরকারি পদ্মা কলেজের প্রধান ফটক থেকে প্রায় আধাঁ কিলোমিটার সড়কে এ বিক্ষোভ ,মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন তারা। এ হত্যাকান্ডকে ঘিরে মুকসুদপুর-শাইনপুকুর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। গত বুধবার পূর্ব শত্রুতার জের ধরে উপজেলার শাইনপুকুর তিনদোকান ফরিদ মিয়ার খামারের সামনে দিন দুপুরে প্রকাশ্যে ছাত্রলীগের কর্মী ফয়সাল (১৮) কে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। স্থানীয় ও পুলিশ জানায়, দীর্ঘ তিন বছর পূর্বে দোহার উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের শান্তিনগর গ্রামের মজনু শেখের ছেলে নিহত ফয়সালের বড় ভাই রিপনের সঙ্গে পাশ্ববর্তী শ্রীনগর উপজেলার বরিবরখোলা এলাকার শেখ মনাইয়ের কন্যা মুন্নি আক্তারের সঙ্গে বিয়ে হয়। পারিবারিক বনিবনা না হওয়ায় বছর খানেক পর তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। বিবাহ বিচ্ছেদকে কেন্দ্র করে উভয় পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। বুধবার বিকেলে ফয়সাল স্থানীয়ভাবে আয়োজিত একটি ফুটবল খেলার মাইকিং করতে শাইনপুকুর এলাকায় গেলে মুন্নির পরিবারের লোকজন ফয়সালকে পিটিয়ে হত্যা করে। বুধবার রাতে নিহতের মা বানুতাজ (৪০) বাদী হয়ে নয়জনের নামসহ অজ্ঞাত আরও ৭/৮ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। দোহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে তথ্য পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে দোহার থানায় নয়জনকে এজাহার নামীয় ও সাত থেকে আটজনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এসএইচ/

বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে মা-বাবার অবস্থান

অপহৃত মেয়েকে উদ্ধারের জন্য থানার সামনে অবস্থান নিয়েছে বাবা মা। ৩৭তম বিসিএস প্রশাসন (ম্যাজিস্ট্রেট) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়াকে গত মঙ্গলবার অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয়। তাকে দ্রুত উদ্ধারের দাবিতে থানা প্রাঙ্গণে মাটিতে বসে অবস্থান নেন ওই মেয়েটির বাবা সুলতাল আহমেদ ও মা রাজিয়া সুলতানা। আজ বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) নেত্রকোনার কেন্দুয়া থানা প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে।          মেয়েটির মা এর আগে বুধবার রাতে অপহরণের অভিযোগে কেন্দুয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় কেন্দুয়া পৌর সভার সাবেক মেয়র আব্দুল হক ভূইয়ার ছোট ছেলে রাতুল হাসান বাবুসহ ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। এদিকে মামলা দায়েরের পর একমাত্র মেয়েকে দ্রুত উদ্ধারের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত থানা প্রাঙ্গণে মাটিতে অবস্থান নেন মেয়েটির বাবা মা। মামলার বিবরণে জানা গেছে, কেন্দুয়া পৌর শহরের আরামবাগ মহল্লার বাসিন্দা সুলতান আহমেদের একমাত্র মেয়ে ৩৭তম বিসিএস প্রশাসন (ম্যাজিস্ট্রেট) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ তাসলিমা সুলতানা সিনথিয়াকে তাদের বাসা থেকে গত ১৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উল্লেখিত আসামিদের সহযোগিতায় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রাতুল হাসান বাবু সিএনজিতে তুলে নিয়ে যায়। সিনথিয়ার পিতা সুলতান আহমেদ বলেন, অপহরণের দুইদিন পেরিয়ে গেলেও আমার মেয়ে উদ্ধার করতে পারছে না পুলিশ। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। কেন্দুয়া থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী বলেন, মেয়েটিকে উদ্ধারের জোর চেষ্টা চলছে। এসি    

নড়িয়ার ২০ স্কুল পদ্মায় বিলীন (ভিডিও) 

পদ্মার অব্যাহত ভাঙনে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে শরিয়তপুরের নড়িয়ার বেশকিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষক ও অভিভাবকরা সন্তানদের পড়াশোনা নিয়ে চিন্তিত। বিকল্প উপায়ে পড়াশুনা চালু রাখার কথা বলছে স্থানীয় প্রশাসন। ৫ম শ্রেণির ময়না, ৮ম শ্রেণির সাথী, নিপা, ১০ম শ্রেণির ছাত্র রনি ঘোষ । ওরা কেউ এখন আর স্কুলে যেতে পারছে না। পদ্মার ভাঙনে ঘরবাড়ির পাশাপাশি ওদের স্কুলও নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। স্থানীয়রা জানান, প্রায় ২০টার মতো সরকারী বেসরকারী স্কুল মাদ্রাসার অস্তিত্ব নেই। ছোট একটি অন্ধকার ঘরে স্থানীয় এক শিক্ষকের কাছে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছে ওরা। সামনে আসন্ন সমাপনী, জেএসসি, এসএসসি পরীক্ষা তাই নিয়ে দুশ্চিন্তায় শিক্ষার্থীরা। সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত শিক্ষক ও অভিভাবকরাও। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাসহ পড়াশুনার যেন ব্যঘাত না ঘটে সে জন্য বিকল্প ব্যবস্থায় পাঠদান চালু রাখা হয়েছে বলে জানালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দ্রুত পুননির্মানের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

কুষ্টিয়ায় শিশু ধর্ষণ ও হত্যার বিচার দাবি (ভিডিও)

কুষ্টিয়ায় ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর গলাটিপে হত্যা করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্টে একথা জানতে পেরে দোষীদের বিচার দাবিতে ফুঁসে ওঠেছে এলাকাবাসী। এদিকে, অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা হলেও এখনও গ্রেফতার হয়নি কেউ। মিরপুর উপজেলার মিটন গ্রামের দিনমজুর ভাষা মিয়ার দুই কন্যা সন্তানের একজন মাবিয়া। স্থানীয় একটি স্কুলে ক্লাস ওয়ানে লেখাপড়া করতো সে। ১৭ মাস আগে ওমানে যান মাবিয়ার মা কাজলী খাতুন। মায়ের সোহাগ-বঞ্চিত দুই বোন থাকতো বাবার সাথে। শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বাড়ির পাশেই খেলা করছিল মাবিয়া। বন্ধুরা ঘরে ফিরলেও খোঁজে পাওয়া যায়নি মাবিয়াকে। পরদিন বাড়ির পাশে ধানক্ষেতের নালায় পাওয়া যায় তার ক্ষত-বিক্ষত মৃতদেহ। মেয়ের খবর শুনে দেশে ফিরেছেন মা কাজলী খাতুন। হত্যাকারীকে সনাক্ত করে কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন প্রতিবেশীরাও। দোষীদের গ্রেফতারে পুলিশ মাঠে নেমেছে বলে জানান, এই কর্মকর্তা।

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি