ঢাকা, ২০১৯-০৪-২৪ ১২:৪৭:২৩, বুধবার

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দিল মোহাম্মদ দিলু (৩৬) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। সে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের গোদারবিল এলাকার মৃত মকবুল আহমদ প্রকাশ পুতুর ছেলে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার মহেশখালিয়াপাড়ায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।  পুলিশের দাবি, নিহত দিল মোহাম্মদ ইয়াবাকারবারি। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ৯টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৬টি এলজি, ১৩ রাউন্ড কার্তুজ ও ৭ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, মঙ্গলবার বিকালে ৯ মামলার পলাতক আসামি এবং তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী দিল মোহাম্মদ দিলুকে আটক করেন পুলিশ। পরে তার স্বীকারোক্তি মতে, মেরিন ড্রাইভ সড়কের পার্শ্ববর্তী মহেশখালিয়াপাড়ায় ইয়াবা এবং অস্ত্র উদ্ধারে গেলে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সহযোগীরা দিলুকে ছিনিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি করে। একপর্যায়ে মাদককারবারিরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে দিলুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এ সময় আহত হন এসআই বাবুল ও কনস্টেবল ইব্রাহীম। দিলুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। বুধবার ভোরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিলুকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানান ওসি। এসএ/  
পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণের প্রধান আসামি আল-আমিন গ্রেফতার

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণের প্রধান আসামি আল-আমিনকে (২০) কুড়িগ্রাম থেকে গ্রেফতার করেছে সিরাজগঞ্জ র‌্যাব-১২ এর সদস্যরা। মঙ্গলবার বিকেলে সিরাজগঞ্জে র‌্যাব-১২ এর প্রধান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এতথ্য জানান র‌্যাব-১২ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনার পর প্রধান আসামি আল-আমিনকে গ্রেফতারে পুলিশের পাশাপাশি তৎপর হয় র‌্যাব সদস্যরা। তাকে গ্রেফতারে টাঙ্গাইল, ঢাকা, ময়মনসিংহ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সর্বশেষ আজ (মঙ্গলবার) সকালে গোপন তথ্যর ভিত্তিতে কুড়িগ্রাম জেলার রাজিবপুর থানার পঞ্চনগর গ্রামে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে একটি বাড়ি থেকে আল-আমিনকে গ্রেফতার করা হয়। ১৬ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে ওই পাকিস্তানি কিশোরী প্রকৃতির ডাকে বাইরে বের হয়। এসময় সেখানে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকে আল-আমিন। তার অন্যান্য সহযোগিদের সহায়তায় মোটরসাইকেলযোগে কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে দিন ১৭ এপ্রিল আল-আমিন বিয়ের প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে এবং ধর্ষণ করে। এঘটনায় ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলায় আল-আমিন, তার পিতা আবুল হোসেন ও মা আনোয়ারা বেগমের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা আরও দুই থেকে তিনজনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এই মামলার প্রধান আসামি আল-আমিনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এসএইচ/

বসানো হলো পদ্মাসেতুর ১১তম স্প্যান (ভিডিও)

বসানো হলো পদ্মাসেতুর ১১তম স্প্যান। এর ফলে দৃশ্যমান হয়েছে সেতুর ১ হাজার ৬৫০ মিটার। জাজিরা প্রান্তে ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয়েছে স্প্যানটি। এপ্রিলের শেষ দিকে আরেকটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সকাল ৮টায় সেতুর জাজিরা প্রান্তে শুরু হয় ১১তম স্প্যান বসানোর কাজ। ৯টার দিকে, ভাসমান ক্রেনে থাকা স্প্যানটি বসানো হয় ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর। আগের বসানো কাঠামোর সঙ্গে মিলে এখন পদ্মাসেতুর দৈর্ঘ্য এক হাজার ৬শ’ ৫০ মিটার। যার মধ্যে জাজিরা প্রান্তের ৯টি স্প্যানে ১৩শ’ ৫০ মিটার এবং মাওয়ায় একটি অস্থায়ীসহ ২টি স্প্যান নিয়ে ৩শ’ মিটার। পিলার ও স্প্যানের পাশাপাশি সেতুতে রেলপথের জন্য স্ল্যাব বসানোর কাজ চলছে। সেতু কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্প সম্পন্ন করতে দ্রুত এগিয়ে চলেছে কাজ। এপ্রিলের শেষ দিকে আরেকটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তারা। ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি ব্যায় ধরা হয়েছে স্বপ্নের এই সেতু নির্মাণে। মূল সেতু নির্মাণে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও দুই প্রান্তের টোল প্লাজা, সংযোগ সড়ক আর অবকাঠামো নির্মাণ করছে দেশীয় প্রতিষ্ঠান।  

ময়মনসিংহে কারখানার বর্জ্যে ফসলি জমি নিস্ফলা (ভিডিও)

ময়মনসিংহের ভালুকায় কারখানার বর্জ্যে নিস্ফলা হয়ে যাচ্ছে শত শত একর ফসলি জমি। পোষাক কারখানার রং আর রাসায়নিকের পানি নষ্ট করছে ক্ষেতের ফসল। স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছে এলাকার মানুষ। প্রতিবাদ কিংবা অভিযোগ করেও হচ্ছে না কোনো সুরাহা। কারখানার বর্জ্য মিশছে ফসলের ক্ষেতে। ধোঁয়া বিষাক্ত করছে বাতাস। জমি হারাচ্ছে উরর্বতা। বিপন্ন হচ্ছে পরিবেশ, জী বৈচিত্র। এই চিত্র, ময়মনসিংহের ভরাডোবা ইউনিয়নের। এক্্রপেরিয়েন্স টেক্সটাইলের অপরিশোধিত বর্জ্যে ছড়িয়ে পড়ছে পুরুড়া, ভাটগাও, রাংচাপড়া, ভরাডোবাসহ আরও কয়েকটি গ্রামে। নষ্ট হচ্ছে ফসল। প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন আর উপজেলা পরিষদ ঘেরাও কর্মসুচি করেছে এলাকার বাসিন্দারা। তারপরও বন্ধ হয়নি অপরিশোধিত বর্জ্যের এই নির্গমন। আইনের কোন তোয়াক্কাই করছেনা কারখানা কর্তৃপক্ষ। বর্জ্য পরিশোধন প্ল্যান্ট ছাড়াই চালিয়ে যাচ্ছে কার্যক্রম। এ নিয়ে ক্যামেরার সামনে কথা বলতেও রাজি নয় মালিক পক্ষ। কৃষি বিভাগ ও পরিবেশ অধিদফতর বলছে, কারাখানা মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। দ্রুত বিষয়টির সমাধান করে পরিবেশ ও কৃষকদের জমি রক্ষার দাবি স্থানীয়দের। বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতে : এসইউ/এসএ/  

পরীক্ষায় অনৈতিক সুবিধা না দেওয়ায় শিক্ষক লাঞ্চিত

বাগেরহাট সরকারি মহিলা কলেজে চলমান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষায় অনৈতিক সুবিধা প্রদান না করায় শিক্ষককে লাঞ্চিত করেছে শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা শেষে খুলনা যাওয়ার পথে পদার্থ বিদ্যার ওই শিক্ষককে বাস থেকে জোর করে নামিয়ে লাঞ্চিত করে শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ড. এস.এম রফিকুল ইসলাম বাগেরহাট মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। সেখোনে তিনি বলেছেন, পরীক্ষা চলাকালীন ৩০১ কক্ষের কতিপয় শিক্ষার্থী অনৈতিক সুবিধা দাবি করে। কর্তব্যরত পর্যবেক্ষক (৩৬ তম বিসিএস ক্যাডার কর্মকর্তা) তাদের সুবিধা না দিয়ে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করেন। এ কারণে দুষ্কৃতিকারীরা খুলনাগামী ওই শিক্ষক এবং অন্য এক শিক্ষককে জোর করে বাস থেকে নামিয়ে লাঞ্চিত করে। এ বিষয়ে সরকারি মহিলা কলেজ শিক্ষক পরিষদের সভায় বাগেরহাট মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করার সিদ্ধান্ত করা হয়। ওই সিদ্ধান্ত মোতাবেক থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এ বিষয়ে বাগেরহাট মডেল ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহতাব উদ্দিন বলেন, সাধারণ ডায়েরির বিষয়ে তদন্ত চলছে, দুষ্কৃতিকারীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। একে//

জ্বীন তাড়ানোর নামে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন (ভিডিও)

ভোলায় জ্বীন তাড়ানোর নামে নারীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় কথিত ওঝা। অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু জোসনা বেগম এখন মৃত্যুর সাথে লড়ছেন। তার শরীরের ৫০ ভাগ পুড়ে গেছে। ভোলা সদর হাসপাতাল থেকে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছে। ভোলার ইলিশা ইউনিয়নের বাঘার হাওলা গ্রাম। এই গ্রামের জোসনা বেগমকে জ্বীন তাড়ানোর নামে গায়ে কেরোসিন ঢেলে ঝাড়-ফুঁকের সময় আগুন ধরিয়ে দেয় রুনা নামের এক ওঝা। আহতের মা মাহফুজা জানান, কিছুদিন ধরে জোসনা  অস্বাভাবিক আচরণ করায় তারা একে জ্বীনের আছর ভাবেন। তাই জ্বীন তাড়াতে ওঝা বেলায়েত হোসেন ও তার নাতনি রুনা বেগমকে ডাকা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে রুনা  জ্বীন তাড়ানোর নামে জোসনা বেগমের গায়ে কেরোসিন মাখিয়ে আগরবাতি ও ধূপ জ্বালিয়ে ঝাড় ফুঁকের এক পর্যায়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। অবস্থা গুরতর হওয়ায় রাতেই জোসনা বেগমকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শরীরের প্রায় ৫০ ভাগ ঝলসে গেছে। তবে এই ঘটনায় ওঝা রুনা দায়ী নয় বলে দাবী তার স্বজনদের। পুলিশ ওঝা বেলায়েত হোসেন ও তার স্ত্রী অহিদা বেগমকে আটক করেছে। জড়িত অন্যদের আটকে অভিযানে চলছে বলে জানায় পুলিশ। 

দিনাজপুরে টেন্ডারবিহীন গাছ কাটার অভিযোগ (ভিডিও)

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে টেন্ডার করা গাছ ছাড়াও পুরানো ও মুল্যবান গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে। স্থানীয়রা বাঁধা দিলে দেয়া হয় হুমকি। এদিকে উপজেলা প্রশাসন ১৬৭টি গাছের টুকরো জব্দ করেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস প্রশাসনের। টেন্ডারের নামে আম, কাঠাল, তাল কোন গাছই রক্ষা পায়নি দিনাজপুর ঘোড়াঘাট এলাকায়। নম্বরবিহিন মসজিদের পুরনো গাছও এলাকাবাসির বাধা পেরিয়ে কেটে নেয়া হয়েছে। এলাকাবাসির অভিযোগ বাঁধা দিলে প্রভাবশালীরা দেয় হুমকি। ঘোড়াঘাট মহাসড়কের রানিগঞ্জ বাজার হতে নুরজাহানপুর হয়ে কানাগাড়ি পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে মোট ১৩২০টি গাছ বিক্রয়ের জন্য ৭টি লটের মাধ্যমে দিনাজপুর বনবিভাগ থেকে টেন্ডার দেয়া হয়। ঘোড়াঘাট উপজেলার সামসুল ও ভুট্ট নামে দুজন টেন্ডার পান। তবে টেন্ডারের বাহিরে গাছ কাটার অভিযোগ অস্বিকার করেছেন অভিযুক্তরা । এদিকে কোন অনিয়মের সুযোগ নেই বলে দাবি বনবিভাগের কর্মকর্তার। অভিযোগের ভিত্তিতে ১৬৭টি গাছের টুকরা জব্দ করা হয় জানিয়ে, নমুনা হিসেবে কিছু উপজেলা পরিষদে আনা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে জানালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।। দ্রুত তদন্ত করে টেন্ডারবিহিন গাছ কাটার বিচার চান স্থানীয়রা।  

ময়মনসিংহে প্রতিবন্ধী নারীরা স্বাবলম্বী (ভিডিও)

প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে কার্পেট ও হস্তশিল্পের কাজ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন ময়মনসিংহের শতাধিক প্রতিবন্ধী নারী। ২০০০ সালে প্রতিবন্ধী নারীদের স্বাবলম্বী করতে ময়মনসিংহে একটি ক্লাব প্রতিষ্ঠা করে ফ্রান্সভিত্তিক তেইজি ব্রাদার কমিউনিটি। একে কেন্দ্রই করে ভাগ্য ফিরেছে শতাধিক প্রতিবন্ধী নারীর।  ময়মনসিংহ মহানগরীর বলাশপুর পালপাড়ার ময়না আক্তার। ২০০৮ সালে বাসার পাশের রেললাইনে ট্রেন দূর্ঘটনায় বাম পা হারায়। প্রতিবন্ধী ময়নার জীবন কিভাবে চলবে এই নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে তার পরিবার। এ অবস্থায় এক প্রতিবেশি ভাইয়ের পরামর্শে ময়না যোগ দেয় মহিলা ক্লাবের কার্পেট কারখানায়। এখানে কাজ শিখে ময়না এখন স্বাবলম্বী। শুধু ময়না না, এই মহিলা ক্লাবের কার্পেট ও হস্তশিল্প কারখানায় শতাধিক প্রতিবন্ধী নারী কাজ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। তাদের তৈরি দৃষ্টি নন্দন এসব পণ্য দেশের চাহিদা মিটিয়ে রফতানি হচ্ছে বিদেশেও। তবে প্রতিষ্ঠানটি গতিশীল রাখতে সরকারী পৃষ্ঠপোষকতার প্রয়োজন বলে মনে করেন এই কর্মকর্তা। সরকারের পক্ষ থেকে এসব নারীদের সহায়তায় এগিয়ে আসার কথা জানালেন জেলা প্রশাসক।

ভোলায় জ্বীন তাড়াতে গৃহবধুর গায়ে আগুন

ভোলায় এক ওঝার অপচিকিৎসায় প্রাণ যেতে বসেছে জোসনা বেগম নামের ৪৫ বছর বয়সী এক গৃহবধুর। জ্বীন তাড়ানোর নামে গায়ে কেরসিন মেখে ঝাড়-ফুকের সময় আগুন লেগে শরীরের প্রায় ৫০ ভাগ পুড়ে গেছে। অগ্নিদগ্ধ ওই গৃহবধুকে ভোলা সদর হাসপাতাল থেকে প্রথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের বাঘার হাওলা গ্রাম। এই গ্রামে প্রবাসী জসীম এর স্ত্রী জোসনা বেগমকে গত বৃগস্পতিবার রাতে জ্বীন তাড়ানোর নামে গায়ে কেরসিন মেখে ঝাড়-ফুকের সময় আগুন ধরিয়ে দেয় ওঝা রুনা। বর্তমানে গৃহবধূ মত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।  অগ্নিদগ্ধ জোসনার বাড়ি সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের বাঘার হাওলা গ্রামে। ৪ সন্তানের জননী জোসনার স্বামী মো. জসিম সৌদি প্রবাসী। আহতের মা মাহফুজা জানান, কিছুদিন ধরে তার মেয়ে জোসনা বেগম (৪০) অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করে। এটাকে জ্বীনের আছর মনে করে তারা পাশ্ববর্তী গ্রামের ওঝা বেলায়েত হোসেন ও তার নাতনি শিশু ওঝা নামে খ্যাত রুনা বেগমকে দেখায়। বৃহস্পতিবার রাতে শিশু ওঝা রুনা বেগম জোসনা বেগমের গায়ে কেরসিন মেখে আগরবাতি ও ধূপ জ্বালিয়ে ঝাড় ফুকের এক পর্যায়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। ডাক চিৎকারে পাশ্ববর্তী লোকজন ছুটে এসে আগুন নিভিয়ে রাতেই জোসনা বেগমকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। হাসপাতালে আনার আগেই তার শরীরের প্রায় ৫০ ভাগ ঝলসে যায়। সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রুনার দাদা দাদী ওঝা বেলায়েত হোসেন ও তার স্ত্রী অহিদা বেগমকে আটক করেছে। তবে এই ঘটনায় শিশু ওঝা রুনা জড়িত নয় বলে দাবি করছে তার নানা-নানী। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় ২ অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। জড়িত অন্যদের আটকে অভিযানে চলছে। 

টাঙ্গাইলে তিন টন তামাকসহ ট্রাক জব্দ

টাঙ্গাইলে অবৈধ সিগারেট উৎপাদনের জন্য নেয়ার পথে তিন টন তামাকসহ একটি ট্রাক জব্দ করেছে এনবিআরের ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট বিভাগের একটি দল। ট্রাকটির চালান পরীক্ষা করে দেখা যায় এতে তামাকের ডাস্ট বা উচ্ছিষ্ট আছে। কিন্তু এতে পাওয়া গেছে প্রক্রিয়াজাত তামাক। ট্রাকসহ জব্দকৃত তামাকের মূল্য প্রায় এক কোটি টাকা। প্রক্রিয়াজাতকৃত এই তামাক সিগারেট বানানোর কাজে প্রধান কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহারযোগ্য বলে এনবিআরের অনুসন্ধানে তথ্য মিলেছে। ট্রাকটি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা থেকে ময়মনসিংহের দিকে যাচ্ছিল বলে ধারনা করা হয়। গোপন সংবাদের উপর ভিত্তি করে ঢাকা পশ্চিম ভ্যাটের একটি দল ট্রাকের ওপর নজরদারি করে। ট্রাকটি বঙ্গবন্ধু সেতু অতিক্রম করে সেতুর পূর্ব প্রান্তে আসার পর স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় ট্রাকটির গতিরোধ করে কাগজপত্র যাচাই করা হয়। ট্রাক চালান অনুযায়ী পণ্যচালানটি নেত্রকোনায় রহমান ট্রেড্রার্সের নামে আনা হয়েছে। ঐ ট্রাক চালান যাচাই করে দেখা যায় প্রাপকের ঠিকানা ভূয়া।ট্রাকটিতে অনুসন্ধান চালিয়ে কুষ্টিয়ার ত্রিমোহনীর বড়খাদা এলাকার গ্লোবাল লীফ টোব্যাকোর চালানপত্র পেয়েছে অভিযানকারী কর্মকর্তারা। এখানে যথাযথ ভ্যাট চালান বহন করা হয়নি। ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে সিগারেট উৎপাদনের জন্য মিথ্যা চালানের মাধ্যমে কুষ্টিয়া থেকে পণ্য বের করা হয়। একইসাথে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা কোন সিগারেট ফ্যাক্টরিতে ব্যবহারের জন্য এই তামাক আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এখানে উল্লেখ্য গত ১১ এপ্রিল ঢাকা পশ্চিম ভ্যাটের একটি দল র‌্যাব এর সহযোগিতায় টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার কামার্থী গ্রামে অটোরাইস মিলের আড়ালে গড়ে ওঠা অবৈধ সিগারেট ফ্যাক্টরির সন্ধান পায়। সে ফ্যাক্টরি থেকে নকল সিগারেট, ফিল্টার, প্রক্রিয়াজাত তামাক ও মেশিনারিজ জব্দ করে। এই ফ্যাক্টরিতে স্থাপিত উন্নতমানের মেশিনারিজ দিয়ে দৈনিক ২০ লক্ষ সিগারেট তৈরি করা সম্ভব। ফলে মাসে সরকারের প্রায় ৫১ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি হতো। ঐ ফ্যাক্টরি থেকে ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকোর ব্র্যান্ডের নকল সিগারেট উৎপাদন করা হতো। আজকের জব্দ করা প্রক্রিয়াজাতকৃত তামাকের সাথে পূর্বের জব্দকৃত তামাকের মিল রয়েছে বলে জানান এনবিআর কর্মকর্তারা। তাঁরা ধারণা করছেন বৃহত্তর ময়মনসিংহ এলাকায় আরো অবৈধ ফ্যাক্টরি আছে । ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট অফিস সুত্রে জানা যায় আটককৃত ট্রাকের নম্বর হলো কুষ্টিয়া-ট-১১-০৯৪১। আটকের পর ট্রাকটি টাঙ্গাইল ভ্যাট বিভাগীয় দপ্তরে জমা করা হয়েছে। ভ্যাট ফাঁকি ও অবৈধ পণ্য ব্যবহারের প্রচেষ্টাজনিত কারণে মামলা হয়েছে। প্রয়োজনীয় অনুসন্ধান ও তদন্তশেষে আরো আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান অভিযান পরিচালনাকারী ভ্যাট কর্মকর্তারা। টিআর

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি