ঢাকা, সোমবার   ১৮ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

জনবল সংকটে ব্যাহত হচ্ছে সুনামগঞ্জ হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা 

মোঃ আব্দুস সালাম, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি 

প্রকাশিত : ১৮:২৫ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

জনবল সংকটে ব্যাহত হচ্ছে হাওরের জেলা সুনামগঞ্জের ২৫ লাখ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারী জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম। লোকবল সংকট নিয়েই দীর্ঘদিন ধরে চলছে এ হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম। 

নানান প্রতিকূলতার মাঝে কাঙ্ক্ষিত সেবা পাচ্ছেন না রোগীরা। তবে হাসপাতালে আগে থেকে যারা কর্মরত রয়েছেন সেবার মনোভাব নিয়ে তারাই অতিরিক্ত দায়িত্ব মনে করেই দিনরাত প্ররিশ্রম করে রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ফলে যতটুকু সেবা ওই চিকিৎসকদের কাছ থেকে পাওয়া যাচ্ছে তাতেই সন্তুষ্ট থাকছেন রোগীরা। সরেজমিনে হাসপাতাল ঘুরে রোগী ও তাদের স্বজনদের সাথে কথা বলে এমন দৃশ্যটাই চোখে পড়ে। 

গত ২ থেকে ৩ বছর আগেও যেখানে লোকবল সংকট আর ডাক্তারদের অনুপস্থিতিতে শতশত রোগীদের আহাজারিতে ও ভুক্তভোগীদের নালিশ শুনতে শুনতে কান ভারি হয়ে যেত হাসপাতালের চারপাশ। এখন সেখানে শুনা যাচ্ছে উন্নয়নের  বানী এবং দীর্ঘদিন পর হাওরবাসীর স্বপ্ন পুরনের চিত্র ফুঁঠে উঠেছে ৬ তলা বিশিষ্ঠ হাসপাতালের ভবণ নির্মাণ ও আস্তে আস্তে এই নতুন হাসপাতালের কার্যক্রম চালুর ফলে। 
রোগী ও তাদের স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা যায়, হাসপাতালের ভোগান্তি কমে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় হাঠছে সুনামগঞ্জ ২৫০শয্যা সদর হাসপাতাল। যেখানে রোগীরা এসে ঠিক মত চিকিৎসা পেতনা সেখানে এখন ৮তলা বিল্ডিং হয়েছে। চোখ মেলেই দেখা যায় হাসপাতালের  চারপাশ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করে লাগানো হয়েছে ফুল গাছ। 

কিন্তু একটি চক্র হাসপাতালের কার্যক্রমকে মেনে নিতে না পেরে প্রতিনিয়ত হাসপাতালের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে এবং সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার পাশপাশি সাধারন জনগনকে বিভ্রান্তির মধ্যে ফেলে তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা করেছে। আর ষড়যন্ত্রকারীদের সকল ষড়যন্ত্রকে উপক্ষো করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জনগণকে সাথে নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, ৪ আসনের সংসদ সদস্য এড. পীর ফজলুর রহমান মিছবাহ ও প্রশাসনের সহযোগিতায় সদর হাসপাতাল এখন স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়নে এক ধাপ এগিয়ে চলছে। 

এছাড়াও কর্তৃপক্ষরা আন্তরিকভাবে জনগণের সেবায় নিযুক্ত রয়েছেন। উন্নত স্বাস্থ্য সেবায় পরিণত হয়ে গেছে হাসপাতাল ও সিভিল সার্জন কার্যালয়। ডাক্তার এবং নার্সসহ আউটসোর্সিংয়ে নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মচারীদের আন্তরিকতায় সেবার মান বাড়াতে শুরু হয়েছে রোগীদের সেবায় আধুনিক প্রযুক্তির সেবা। হাওরপাড়ের মানুষজনের দীর্ঘদিনের স্বপ্নের প্রত্যাশা উন্নতমানের হাসপাতালের জন্য বহুতল ভবণ নির্মাণ কিন্তু বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের প্রচেষ্টায় সেই স্বপ্নের বহুতল হাসপাতাল নির্মাণ করে পুরোদমে শুরু হয়েছে এ কার্যক্রম। ফলে নিশ্চিত হয়েছে হাওরপাড়ের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মান। তাছাড়াও উন্নত চিকিৎসা সেবার জন্য হাসপাতালে আসা রোগীদের বিনামূল্যে  ঔষধ ও অর্থ বরাদ্দ দিচ্ছে সরকার।

বর্তমানে হাসপাতালে ডাক্তার সংকটের কারণে প্রায় সময় রোগীদের ভীড় লেগেই থাকে। এই জনবল সংকট নিরসনে সরকার দ্রুত সময়ের মধ্যে ডাক্তার, নার্স নিয়োগ দিলে কেবল স্বাস্থ্য সেবার মান আরো উন্নত হবে।  

এ ব্যাপারে আনিসা ডায়গনেস্টিক সেন্টারের সত্বাধিকারী মোঃ  আনিসুর রহমান বাবু জানান আমরা যারা ডায়গনেস্টিক সেন্টার পরিচালনা করছি আমরা হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক সততার সাথে রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু একটি চক্র স্বাস্থ্যসেবার সুনাম বিনষ্ট করতে উঠে পড়ে লেগেছে। 

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ আশুতোষ দাস বলেন, হাওর জনপদের মানুষের স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে স্বল্প সংখ্যক চিকিৎসকরা অতিরিক্ত কর্তব্য মনে করে দিনরাত রোগীদের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা সবসময়ই হাসপাতালকে দূর্গন্ধমুক্ত রাখতে পরিচ্ছন্নকর্মীরাও কাজ করে যাচ্ছেন।

আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি