ঢাকা, রবিবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ৩ ১৪২৭

জয়পুরহাটে মুজিব শতবর্ষে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতার নামে ৪ নবজাতক

জয়পুরহাট, এস এম শফিকুল ইসলাম

প্রকাশিত : ০৯:৪৬, ১৮ মার্চ ২০২০

সারা দেশের সাথে জয়পুরহাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে আজকের দিনে জন্ম নেওয়া ৪ শিশুর নামকরণ করা হলো সেভাবেই। নবজাতক ৪ শিশুর মধ্যে ১টি পুত্র সন্তান ও ৩টি কন্যা সন্তান। জয়পুরহাট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র নামের সরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে এমন ব্যতিক্রমী ঘটনা ঘটে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে স্থানীয় শহীদ ডা. আবুল কাশেম ময়দানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের নবজাতকের পরিবারের হাতে ক্রেস্ট ও উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে জয়পুরহাট পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ।

মঙ্গলবার সকালে নবজাতকের পরিবারের হাতে ক্রেস্ট ও উপহার তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাকির হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জোবায়ের গালীব, সিভিল সার্জন মো. সেলিম মিয়া মিঞা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন চন্দ্র রায়।

জাতির জনকের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে সাধ্যমতো শ্রদ্ধা অর্পণ করতে কার্পণ্য করেনি জয়পুরহাটের রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো।

১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন। তাই এই দিন যে শিশুর জন্ম হবে, সে একটি করে তোয়ালে, মশারি ও মুজিব বর্ষের ক্রেস্ট উপহার পাবে। ছেলে শিশুর নাম মুজিবুর রহমান রাখার জন্য পরিবারকে উদ্বুদ্ধ করা হবে। জয়পুরহাট পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ মুজিব বর্ষের দিনে এ উদ্যোগ নিয়েছে। এর মধ্যে সবার দৃষ্টি কেরেছে ৪ নবজাতকের নামকরণকে ঘিরে।

জয়পুরহাট জেলা সদরের জিতারপুর গ্রামের ফরহাদ ইসলাম তার স্ত্রী খাদিজা আক্তারকে গেল রোববার রাত ৯টায় সন্তান প্রসবের জন্য ভর্তি করানো হয় জয়পুরহাট জেলা শহরের সরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে। একই উদ্দেশ্যে ওই চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে পাঁচবিবি উপজেলার খাস বাগুড়ি গ্রামের জীবন রায়ের স্ত্রী মমতা রায়কে সোমবার সকাল ১০ টায়, আক্কেলপুর উপজেলার গোপীনাথপুর চৌমুনী গ্রামের লিটন মিঞার স্ত্রী পিয়া আক্তারকে সোমবার সন্ধ্যায় ও  নওগাঁর ধামুইরহাট উপজেলার জয়পুরহাট সদরের পার্শ্ববর্তী জাহানপুর গ্রামের আবু সুফিয়ানের স্ত্রী কুমকুম আক্তারকে গত শুক্রবার ভর্তি করানো হয়।

সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার ভোরের মধ্যে ওই ৪ দম্পতির ৪টি ফুটফুটে শিশুর জন্ম হয় আগে পরে। এদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে সুফিয়ান-কুমকুম দম্পতির নবজাতক পুত্র সন্তানের নাম করন করা হয় মুজিবুর রহমান এবং অপর তিন দম্পতি তাদের কন্যা শিশুদের নামকরণ করেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার ডাক নাম রেনু নামে। এমন দিনে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার নামে শিশু ৪টির নামকরণ করতে পারায় নিজেদের সৌভাগ্যবান মনে করছেন ওই দম্পতিরা।

এদিকে মুজিব বর্ষে ওই ৪ শিশুসহ আজকের দিনে জন্ম নেওয়া সব শিশুর মাকে উপহার হিসেবে তোয়ালে, মশারি ও ক্রেস্ট প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে জয়পুরহাট পরিবার-পরিকল্পনা অধিদফতর।

উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জোবায়ের গালীব বলেন, আজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে জয়পুরহাট জেলায় যত শিশু জন্ম নেবে, সেসব শিশুর পরিবারের হাতে একটি করে তোয়ালে, মশারি ও মুজিব বর্ষের ক্রেস্ট উপহার হিসেবে দেওয়া হবে। জন্ম নেওয়া শিশু ছেলে হলে নাম মুজিব রাখার জন্য মা-বাবাকে উদ্বুদ্ধ করা হবে। তিনি আরও বলেন, জেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে শিশু জন্ম নিলে সেখানেও পরিবার পরিকল্পনার টিম পৌঁছে যাবে উপহার নিয়ে।

চারজন নবজাতকের মুজিবুর রহমান ও রেনু নাম রাখাতে উদ্বুদ্ধ করেছেন তাদেরও উপহারের ব্যবস্থা করেছেন জয়পুরহাট জেলা পরিবার পরিকল্পনা।

শুধু নামকরণেই স্বার্থকতা নয়, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার আদর্শে লালন পালন করে আগামী দিনের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে শিশু ৪টির সাথে সব শিশুদের সহায়তা করতে রাষ্ট্রসহ সরকারি-বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দাবি স্থানীয়দের।

একে//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি