ঢাকা, বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

দেশের সর্বত্র নজর রাখতে সার্বক্ষণিক চেষ্টা করছি: প্রধানমন্ত্রী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:৪৯ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জনগণ নির্বাচিত করে আমাকে সংসদে পাঠিয়েছে, আমি যখন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছি, যেখানেই থাকি না কেন আমি সবসময় মনে করি—জনগণের ভালো-মন্দ দেখা আমার দায়িত্ব।

তিনি বলেন, আমি তো আর ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেশ চালাই না। আর ১২টায় ঘুম থেকে উঠি না। বলতে গেলে আমি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৫ ঘণ্টা ঘুমের সময় পাই। সার্বক্ষণিক চেষ্টা করছি দেশের কোথায় কী হচ্ছে সেগুলোর নজর রাখার। এটা নিজের কর্তব্য বলে মনে করি।

বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তরকালে গণফোরাম দলীয় সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে এ সব কথা বলেন সংসদ নেতা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এবার ডেঙ্গুটা শুধু বাংলাদেশে নয়, আশপাশের দেশগুলোতেও দেখা দিয়েছে। মহামারি আকার বলা হচ্ছে, প্রকৃত অর্থে মহামারি আকারে হয়েছে ফিলিপাইনে। আমাদের ১৬ কোটি ৩৫ লাখ মানুষের দেশে যে সংখ্যা দেখছি, ফিলিপাইনে এক সপ্তাহের মধ্যে প্রায় ৫০০ লোক মারা গেছে। মহামারি আকার সেখানে দেখা দিয়েছিল, তারা জরুরি অবস্থা জারি করেছিল। আমাদের দেশে সেই ভয়াবহ পরিস্থিতি হতে দেইনি, যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ওষুধ কেনার ব্যাপারে যারা দায়ী বা সত্যিকারে কেন কাজ হয়নি এ ব্যাপারে তদন্ত করা হচ্ছে। মশার প্রজনন যেন না হয় সে বিষয়ে বিভিন্ন ব্যবস্থা নিচ্ছি।

বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মো. রুস্তম আলী ফরাজীর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু মোকাবিলায় আমরা শুধু সরকারই না, দলের লোকদেরও সম্পৃক্ত করেছি, জনগণকে আহ্বান করেছি। প্রশ্নকারী একজন ডাক্তার। তিনি আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবেন। তিনিও যদি সচেতনতা সৃষ্টি করতেন তাহলে তার এলাকায় ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা যেত না। তাই সব এমপিদের বলব যার যার এলাকায় সবাই প্রচেষ্টা চালালে, মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃস্টি করতে পারলে, কোথাও যদি পানি জমে না থাকে তাহলে ডেঙ্গুর প্রকোপ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এডিস মশার ডিম শুকিয়ে যাওয়ার পরেও দীর্ঘদিন জীবিত থাকে। আবার এক ফোঁটা পানি পেলেই লার্ভা হয়। আর এডিস মশা একটু এলিট শ্রেণির মতো। মানুষের আর্থিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে, এসি, ফ্রিজ, কমোডের ব্যবহার বেড়েছে। কাজেই দেশবাসীকে বলব নিজ নিজ ঘর ও আশপাশ পরিষ্কার করুন। কোথাও পানি জমতে দেবেন না।

আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি