ঢাকা, ২০১৯-০৪-২৪ ৮:৩২:৩৫, বুধবার

দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু আজ

একাদশ জাতীয় সংসদ

দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু আজ

একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হচ্ছে আজ বুধবার। বিকেল ৫টায় এই অধিবেশন শুরু হবে। এ অধিবেশনের জন্য নতুন ও পুরনো মিলিয়ে ছয়টি বিল উঠবে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গত ৩ এপ্রিল এ অধিবেশন আহ্বান করেন।
নাতি হারানোর বেদনায় আবেগাপ্লুত ভাই-বোন

শ্রীলংকায় নজিরবিহীন সিরিজ বোমা হামলায় প্রাণ হারিয়েছে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের আদরের নাতি জায়ান। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন জামাতা মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স। নাতি হারানোর শোকে বিহ্বল শেখ সেলিমের সঙ্গে দেখা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ব্রুনাই থেকে ফেরেন শেখ হাসিনা। সেখানেই তার সঙ্গে দেখা হয় ফজলুল করিম সেলিমের। সে সময় ভাই শেখ ফজলুল করিম সেলিমের ঘাড়ে হাত রেখে সান্ত্বনা দেন বোন শেখ হাসিনা। ভাইয়ের চোখে টলমল পানি দেখে অশ্রুশিক্ত হয়ে পড়েন বোনও। এ সময় দু`জনই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। ভাই বোনের অশ্রুসিক্ত ক্রন্দনে আশেপাশে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। রোববার শ্রীলঙ্কার তিনটি গীর্জা ও তিনটি হোটেল ভয়াবহ বোমা হামলা চালানো হয়। এরমধ্যে একটি হোটেলে চালানো হামলায় নিহত হয় বাবা-মায়ের সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় ঘুরতে যাওয়া জায়ান। উত্তরায় সানবিম স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল সে। ওই হামলায় আহত হয়ে এখনও হাসপাতালে ভর্তি তার বাবা মশিউল হক চৌধুরী। জায়ানের বাবার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানা গেছে- তিনি এখনেও শ্রীলঙ্কার আনশ্রী সেন্ট্রাল হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তিনি এখনো শঙ্কা মুক্ত নন। তবে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। জানা গেছে, জায়ান চৌধুরীর লাশ আগামীকাল দুপুর ১টা ১০ মিনিটে বিমানযোগে ঢাকার হযরত শাহজালাল (র.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছাবে। আওয়ামী লীগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ এ কথা জানানো হয়। এতে জানানো হয়, বিমানবন্দর থেকে জায়ানের লাশ রাজধানীর বনানীর নিজ বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হবে এবং বাদ আছর বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি মাঠে নামাজে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে।   এসএইচ/

একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু কাল

একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন আগামীকাল ২৪ এপ্রিল বুধবার বিকেল ৫টায় শুরু হচ্ছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গত ৩ এপ্রিল এ অধিবেশন আহ্বান করেছেন। সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়, ৬০ দিনের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার জন্যই এ অধিবেশন আহ্বান করা হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী সংসদের এক অধিবেশন শেষ হওয়ার পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে আরেক অধিবেশন বসতে হবে। জুনে বাজেট অধিবেশনের আগে এ অধিবেশন ডাকা হয়েছে। ফলে আসন্ন অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হতে পারে। আগামীকাল বিকেল ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ কার্য উপদেষ্টা কমিটির সভায় অধিবেশনের মেয়াদ এবং কার্যক্রম চূড়ান্ত করা হবে।তবে সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়, ইতোমধ্যে অধিবেশনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এ অধিবেশনে জন্য আইন সংসদ আইন শাখায় এ পর্যন্ত নতুন পুরানোসহ ৬টি সরকারি বিল জমা রয়েছে। এর মধ্যে পুরানো ৫টি ও নতুন ১টি বিল রয়েছে।এদিকে একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন গত ৩০ জানুয়ারি শুরু হয়ে গত ১১ মার্চ শেষ হয়। মোট ২৬ কার্য দিবসের ওই অধিবেশনে ৫টি সরকারি বিল পাস করা হয়। ৭১ বিধিতে ৩২১টি নোটিশের মধ্যে ৩০টি গৃহিত ও ১৮টির ওপর আলোচনা হয়। এসএইচ/

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

তিনদিনের সরকারি সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দেশে ফিরেছেন। বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এর আগে তিনি স্থানীয় সময় বিকেল ৫টায় ঢাকার উদ্দেশে ব্রুনাই ত্যাগ করেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্র এ তথ্য জানায়। প্রধানমন্ত্রী গত ২১ এপ্রিল তিনদিনের সফরে ব্রুনাই পৌঁছান। তিনি ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা এবং বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ বেশকিছু কর্মসূচিতে যোগ দেন। সফরকালে তিনি ব্রুনাইয়ের সুলতান হাজী হাসানাল বলকিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনাসহ সুলতান এবং রাজ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ বেশকিছু কর্মসূচিতে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী সফরের দ্বিতীয় দিনে গতকাল জামে আসর মসজিদ পরিদর্শন এবং সেখানে আছরের নামাজ আদায় করেন। পরে তিনি তাঁর সম্মানে ইস্তানা নুরুল ইমানে ব্রুনাইয়ের সুলতানের দেয়া এক ভোজসভায় অংশ নেন। গতকাল ব্রুনাইয়ের সুলতানের সরককারি বাসভবন নুরুল ইমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে কৃষি, মৎস্য, পশুসম্পদ, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি এবং এলএনজি সরবরাহ সংক্রান্ত ৭টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সাতটি চুক্তির মধ্যে- ছয়টি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) এবং একটি বিনিময় নোট। এগুলো হচ্ছে, কৃষি ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), মৎস্য ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, পশুসম্পদ ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, সাংস্কৃতিক ও শিল্প সহযোগিতা সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক, যুব ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, এলএনজি সরবরাহে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক এবং কূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্ট হোল্ডারদের জন্য ভিসার ছাড় সংক্রান্ত বিনিময় নোট। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় অঞ্চলে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সদস্য পাঁচটি দেশের সমন্বয়ে আঞ্চলিক অর্থনৈতিক ফোরাম গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন।আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেন, প্রস্তাবিত আঞ্চলিক অর্থনৈতিক ফোরাম দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (সিয়াকো)-এর সদস্য হবে দক্ষিণ এশিয়া থেকে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপ এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও ব্রুনাই। ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার সময় রোহিঙ্গা সংকটের ন্যায়সঙ্গত ও স্থায়ী সমাধানের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক সুলতানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ‘রোহিঙ্গারা যাতে ফিরে যেতে পারে সেজন্য আমাদের সব ধরনের প্রচেষ্টা চালানো উচিত’। এর পাশাপাশি সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে দু’দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যেও তিনটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তিগুলো হচ্ছে, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) এবং ন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ব্রুনাই দারুস সালাম (এনসিসিআইবিডি)-এর মধ্যে সহযোগিতা, ব্রুনাই’র ডাইমেনশন স্ট্রাটা সেন্ডিরিয়াম বারহেড, বাংলাদেশের গ্রীণ পাওয়ার লিমিটেড ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিওলোজি বিভাগের মধ্যে পেট্রোলিয়াম জিয়োসাইন্সে পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ প্রদানে যৌথ সহযোগিতা বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর। অপর চুক্তিটি হচ্ছে, ব্রুনাইয়ের ঘানিম ইন্টারন্যাশনাল করপোরেশন এবং বাংলাদেশের নিজাম গ্রুপ অব কোম্পানির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক। এসএইচ/

প্রবাসীদের কল্যাণ নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধিতে বিশেষ অবদানের জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, প্রবাসীদের কল্যাণ নিশ্চিত করা তার সরকারের দায়িত্ব। তিনি বলেন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিশেষ অবদান রয়েছে। বিশেষ করে এক্ষেত্রে শ্রমিকদের অবদান অনেক বেশি। এজন্য তাদের সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি দেখা আমাদের দায়িত্ব। প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রবাসীরা তাদের অবস্থানকারী দেশগুলোর অবকাঠামো ও অর্থনৈতিক উন্নয়নেও ভূমিকা রাখছে। তিনি আজ সকালে এখানে ব্রুনাইয়ের রাজধানীর জালান কেবাংসান কূটনৈতিক জোনে চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে ভাষণকালে একথা বলেন।পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন ও ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশের হাইকমিশনার এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) মাহমুদ হোসেইন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। তিনি বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশির সংখ্যা বেশি এমন সব দেশে নিজস্ব মিশন নির্মাণের উপর অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। তবে পর্যায়ক্রমে প্রতিটি দেশে বাংলাদেশের নিজস্ব মিশন ভবন নির্মিত হবে।প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রবাসীদের সংখ্যা বেশি এমন দেশগুলোতে তাদের ছেলে-মেয়েদের যথাযথ শিক্ষার জন্য অন্তত একটি করে বাংলাদেশি স্কুল প্রতিষ্ঠার নির্দেশ ইতোমধ্যে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠনকালে বাংলাদেশ মিশনের জন্য কিছু ভবন কিনেছিলেন। কিন্তু তার হত্যাকাণ্ডের পর এ ব্যাপারে আর কেউ কোন উদ্যোগ নেয়নি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও জাপানসহ বিভিন্ন দেশে নিজস্ব মিশন তৈরির উদ্যোগ নেয়। আমরাও বিভিন্ন দেশে নিজস্ব মিশন ভবন তৈরির জন্য জমি কিনি।ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশের চ্যান্সেরি ভবনের স্থাপত্য নকশার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় আবহাওয়া, পরিবেশ ও অবকাঠামোর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ভবনটি নির্মাণে গুরুত্বারোপ করেন। মিশন ভবনের সুন্দর নকশা তৈরির জন্য প্রধানমন্ত্রী এর স্থপতি রোজাইন মেরি যান্তি ও তার টিমকে ধন্যবাদ জানান। রোজাইন মেরি একজন আইন প্রণেতা এবং তিনি কয়েকবার বাংলাদেশে এসেছেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই চ্যান্সেরি ভবনের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশিরা অনেক সেবা পাবেন এবং যা তাদেরকে এ দেশে স্বচ্ছন্দে চলাফেরায় সহায়তা করবে। এ প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ১৮ মাসে নির্মীয়মান এই ভবনটি উদ্বোধনে তিনি আবারো ব্রুনাই সফর করবেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার একটার পর একটা বাংলাদেশ মিশন নির্মাণ করছে। ইতালীতে বাংলাদেশ চ্যান্সেরি ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভবনটি উদ্বোধনের জন্য তিনি ইতালী সফর করবেন। ব্রুনাইকে একটি সুন্দর দেশ হিসেবে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্রুনাইয়ের মতো এখনো আরো অনেক সুন্দর স্থান রয়েছে, যার খোঁজ এখনো বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা পায়নি। এই স্থানগুলো আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন গন্তব্য হতে পারে।পরে তিনি রয়েল রেজালিয়া মিউজিয়াম পরিদর্শন করেন। এসএইচ/

দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ব্রুনাই দারুস সালামে তাঁর তিনদিনের সরকারি সফর শেষে রাজধানী বন্দর সেরি বেগাবান থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন। তিনি ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়াহ’র আমন্ত্রনে সেখানে গিয়েছিলেন। বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে স্থানীয় সময় ৫টা ১৫ মিনিটে বন্দর সেরি বেগাবানের ব্রুনাই আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করে। ব্রুনাই এর প্রাথমিক সম্পদ এবং পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রী দাতো সেরি সেথিয়া আওয়াঙ্গ হাজী আলী বিন হাজী আপং এবং ব্রনাইয়ে বাংলাদেশের হাইকমিশনার এয়ার ভাইস মার্শাল (অব:) মাহমুদ হুসেইন বিমান বন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান। বিমান বন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমানটির হযরত শাহজালাল আস্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। এরআগে, প্রধানমন্ত্রী গত ২১ এপ্রিল তিনদিনের সরকারি সফরে ব্রুনাইয়ের রাজধানী বন্দর সেরি বেগাবানে পৌঁছেন। সফরকালে তিনি ব্রুনাইয়ের সুলতান হাজী হাসানাল বলকিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনাসহ সুলতান এবং রাজ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ বেশকিছু কর্মসূচিতে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী সফরের দ্বিতীয় দিনে গতকাল জামে আসর মসজিদ পরিদর্শন এবং সেখানে আছরের নামাজ আদায় করেন। পরে তিনি তাঁর সম্মানে ইস্তানা নুরুল ইমানে ব্রুনাইয়ের সুলতানের দেয়া এক ভোজসভায় অংশ নেন। গতকাল তিনি ব্রুনাইতে বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির সংবর্ধনায় যোগ দেন।আজ (মঙ্গলবার) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রুনাইয়ের রাজধানীতে কূটনৈতিক এলাকা জালান কেবানজাসানে বাংলাদেশ হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। পরে তিনি রয়েল রিগালিয়া মিউজিয়াম পরিদর্শন করেন। গতকাল ব্রুনাইয়ের সুলতানের সরককারি বাসভবন নুরুল ইমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে কৃষি, মৎস্য, পশুসম্পদ, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি এবং এলএনজি সরবরাহ সংক্রান্ত ৭টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সাতটি চুক্তির মধ্যে- ছয়টি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) এবং একটি বিনিময় নোট। এগুলো হচ্ছে, কৃষি ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), মৎস্য ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, পশুসম্পদ ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, সাংস্কৃতিক ও শিল্প সহযোগিতা সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক, যুব ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, এলএনজি সরবরাহে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক এবং কূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্ট হোল্ডারদের জন্য ভিসার ছাড় সংক্রান্ত বিনিময় নোট। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় অঞ্চলে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সদস্য পাঁচটি দেশের সমন্বয়ে আঞ্চলিক অর্থনৈতিক ফোরাম গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন।আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেন, প্রস্তাবিত আঞ্চলিক অর্থনৈতিক ফোরাম দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (সিয়াকো)-এর সদস্য হবে দক্ষিণ এশিয়া থেকে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপ এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও ব্রুনাই। ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার সময় রোহিঙ্গা সংকটের ন্যায়সঙ্গত ও স্থায়ী সমাধানের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক সুলতানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ‘রোহিঙ্গারা যাতে ফিরে যেতে পারে সেজন্য আমাদের সব ধরনের প্রচেষ্টা চালানো উচিত’। এর পাশাপাশি সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে দু’দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যেও তিনটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তিগুলো হচ্ছে, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) এবং ন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ব্রুনাই দারুস সালাম (এনসিসিআইবিডি)-এর মধ্যে সহযোগিতা, ব্রুনাই’র ডাইমেনশন স্ট্রাটা সেন্ডিরিয়াম বারহেড, বাংলাদেশের গ্রীণ পাওয়ার লিমিটেড ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিওলোজি বিভাগের মধ্যে পেট্রোলিয়াম জিয়োসাইন্সে পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ প্রদানে যৌথ সহযোগিতা বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর। অপর চুক্তিটি হচ্ছে, ব্রুনাইয়ের ঘানিম ইন্টারন্যাশনাল করপোরেশন এবং বাংলাদেশের নিজাম গ্রুপ অব কোম্পানির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক। বাসস এসি  

পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগের চুক্তিপত্র স্বাক্ষর

‘পায়রা সমুদ্র বন্দরের প্রথম টার্মিনাল এবং আনুষাঙ্গিক সুবিধাদি নির্মাণ’ প্রকল্পে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগের জন্য আজ রাজধানীতে চুক্তিপত্র স্বাক্ষর হয়েছে। আজ নৌপরিবহন মন্ত্রনালয়ের সভাকক্ষে প্রকল্পটি দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং কোরিয়ার তিনটি কোম্পানির (জয়েন্ট ভেঞ্চার) মধ্যে এই চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়। কোম্পানি তিনটি হচ্ছে- কুনহা ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কনসাল্টিং কোম্পানি লিমিটেড, দায়েইয়ং ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড এবং হেরিম আর্কিটেক্টস এন্ড প্লানার্স কোম্পানি লিমিটেড। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবদুস সামাদের উপস্থিতে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর এম জাহাঙ্গীর আলম, কুনহা ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কনসাল্টিং কোম্পানি লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট জিয়ং লানোহ, দায়েইয়ং ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডের ডাইরেক্টর দায়ে জিনকিম এবং হেরিম আর্কিটেক্টস এন্ড প্লানার্স কোম্পানি লিমিটেডের কান্ট্রি ম্যানেজার ইউন স্যাঙজো। নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, সরকার পায়রা বন্দরের মধ্যমেয়াদি পরিকল্পনার আওতায় ২০২১ সালের মধ্যে পায়রা বন্দরের জন্য দু’টি টার্মিনাল নির্মাণের লক্ষ্যে ছয়টি বার্থসহ কমপক্ষে দু’টি টার্মিনাল নির্মাণ এবং ১০ দশমিক ৫০ মিটার গভীরতার চ্যানেল সংরক্ষণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এ পরিকল্পনার আওতায় ‘পায়রা সমুদ্র বন্দরের প্রথম টার্মিনাল এবং আনুষাঙ্গিক সুবিধাদি নির্মাণ’ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় ২০২১ সালের মধ্যে তিনটি বার্থসহ একটি টার্মিনাল এবং অন্যান্য আনুষাঙ্গিক সুবিধাদি নির্মিত হবে। ২০২১ সালের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে একনেক সভায় ৩ হাজার ৯৮২ দশমিক ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে । প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পরামর্শকের কাজগুলো একটি একক টিমের সাথে কয়েকটি সাব-টিমের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হবে। কুনহা ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কনসাল্টিং কোম্পানি লিমিটেড (লিড পার্টনার), দায়েইয়ং ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড (পার্টনার) এবং হেরিম আর্কিটেক্টস এন্ড প্লানার্স কোম্পানি লিমিটেড (পার্টনার)মূল পরামর্শক এবং বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান সিমবায়োটিক আর্কিটেক্টস সাব-পরামর্শক হিসেবে কাজ করবে। পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের কাজকে দু’টি ফেইজে (পর্যায়) ভাগ করা হয়েছে। ডিজাইন ফেইজ এবং সুপারভিশন ফেইজ। ডিজাইন ফেইজ অনুযায়ি, পরামর্শক প্রতিষ্ঠান প্রকল্পের প্রতিটি অঙ্গের পরিকল্পনা প্রণয়ন, ডিজাইন, ড্রইং, প্রাক্কলন, টেন্ডার ডকুমেন্ট এবং বিভিন্ন যন্ত্রপাতির স্পেসিফিকেশন ইত্যাদি প্রস্তুত করবে। সিভিল, ইলেক্ট্রিক্যাল, মেকানিক্যাল ও আনুষাঙ্গিক কাজ সুপারভিশন করবে সুপারভিশন ফেইজ। পরামর্শক কাজের চুক্তিমূল্য ৭৯,৫২,২৩,৭৮৪.৮০ টাকা। চুক্তি স্বাক্ষরের পর কাজ সম্পন্ন করার সময় ৩৬ মাস। ডিজাইন ফেইজের জন্য ৬ মাস এবং সুপারভিশন ফেইজের জন্য ৩০ মাস সময়। পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রথম টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্পটি একটি ‘ভোরের পাখি’ প্রকল্প। প্রকল্পের আওতায় স্লোপ প্রোটেকশনসহ জেটি; ইউটিলিটি সার্ভিস এবং ইয়ার্ড সুবিধাসহ টার্মিনাল; অস্থায়ী জেটি এবং বিদ্যমান পানি উন্নয়ন বোর্ড রোড পুনঃনির্মাণ; মেরিন ক্রাফ্ট এবং ইয়ার্ড ইক্যুইপমেন্ট ক্রয়; ছয়-লেন বিশিষ্ট সাড়ে ছয় কিলোমিটার দৈর্ঘের পোর্ট এক্সেস রোড এবং ছয়-লেন বিশিষ্ট মিডিয়াম সেতু (৫২০ মিটার) এবং প্রায় ১০৫০ মিটার দীর্ঘ ছয়-লেন বিশিষ্ট রিভার ক্রসিং ব্রীজ নির্মাণ করা হবে। উল্লেখ্য, পায়রা বন্দর বর্তমান সরকারের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারে বাস্তবায়নাধীন ১০টি ‘ফাস্ট ট্র্যাক’ প্রকল্পের আওতাধিন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প। সরকার পায়রা বন্দরের জন্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনার আওতায় স্বল্প পরিসরে বন্দরের কার্যক্রম শুরু করার লক্ষ্যে বহিঃনোঙ্গরে বড় জাহাজ থেকে মালামাল খালাস করে বিভিন্ন নৌ-রুটের মাধ্যমে দেশের অভ্যন্তরে পরিবহন করা হচ্ছে। দেশের ক্রমবর্ধমান ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসারের ফলে বন্দরের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলায় পায়রা সমুদ্র বন্দরের উদ্বোধন করেন। সূত্র : বাসস এসএ/  

বিদেশীরা পরিদর্শন করতে পারবে সুগন্ধার ‘জেনোসাইড কর্ণার’

ঐতিহাসিক সুগন্ধা ভবনে সম্প্রতি স্থাপিত ‘জেনোসাইড কর্ণারটি’ বিদেশ থেকে আসা রাষ্ট্রপ্রধান, সরকারপ্রধান, মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও বিদেশী কূটনীতিকদের পরিদর্শনের ব্যবস্থা করবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে সেখানে রক্ষিত পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর গ্রহণেরও ব্যবস্থা করবে মন্ত্রণালয়। আজ মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানিয়ে বলা হয়, সারা দেশের স্কুল, কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা গণহত্যা বিষয়ে জানার জন্য কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে জেনোসাইড কর্ণারটি পরিদর্শন করতে পারবে। এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেন, ‘স্বাধীনতার ৪৮ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো গণহত্যার শিকার মহান শহিদদের স্মরণে একটি ‘জেনোসাইড কর্ণার’ স্থাপন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ১৯৭১ সালের গণহত্যার শিকার হওয়া ৩০ লাখ মানুষকে স্মরণ করার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক উত্তরাধিকার সংরক্ষণ করা হয়েছে।’ পররাষ্ট্র মন্ত্রী আরও বলেন, ঐতিহাসিক এই স্থান থেকেই ইয়াহিয়া খান গণহত্যার আদেশ দেন। এই ভবনেই বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠীর সাথে পাকিস্তানের ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা করেন। সেজন্য গণহত্যার স্বীকৃতি আদায় কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এই ভবনে জেনোসাইড কর্ণারটি গড়ে তোলা হয়েছে এবং গত ১৮ এপ্রিল তা উদ্বোধন করা হয়। এসএ/  

বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিরাজ করছে। শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দুটি দেশের মধ্যকার সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। মূল্যবোধ, ধর্ম, সাংস্কৃতিক সম্পর্ক এবং অনেক অভিন্ন বিষয়ের ভিত্তিতে এ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সম্মানে আজ ব্রুনাইয়ের সরকারি বাসভবন ইসতানা নূরুল ইমানে রয়েল ব্যাঙ্কুয়েট হলে সুলতান আলহাজ হাসানাল বোলকিয়ার দেয়া এক ভোজ সভায় এ কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, এই মহান দেশটি সফর করা তাঁর জন্য ছিল একটি বিশাল উপহার। এ কথা সত্য, এটি একটি শান্তির আবাস ভূমি। যেখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং শত শত বছরের ঐতিহ্য আধুনিকতাকেও হার মানিয়েছে।প্রধানমন্ত্রী ১৯৯০ দশকের গোড়ার দিকে ব্রুনাইয়ে তার সফরের কথা স্মরণ করেন। সে সময়ে তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা ব্রুনাইয়ে তাঁর পরিবারের সাথে বসবাস করতেন। তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পরপরই দু’দেশের মধ্যকার সম্পর্ক আরো ঘনিষ্ট করতে তিনি ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশের আবাসিক মিশন পুনরায় চালু করার উদ্যোগ নেন। তিনি ১৯৯৯ সালে ঢাকায় আবাসিক মিশন করায় ব্রুনাইয়ের সুলতানকে ধন্যবাদ জানান। শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, ব্যাপক অর্থনৈতিক কর্মকান্ড এবং সামাজিক সেক্টরে ক্রমবর্ধমান বিনিয়োগ আমাদেরকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশের মর্যাদা লাভের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুটি দেশের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে এক সঙ্গে কাজ করতে উভয় দেশই সম্মত হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা সহযোগিতার বিভিন্ন ক্ষেত্র চিহ্নিত করেছি। শেখ হাসিনা বলেন, তিনি ব্যবসায়িক ফোরামে যোগ দেয়ার বিষয়টিতে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছেন। দু’দেশের ব্যবসায়ী নেতারা বৈঠকে সহযোগিতার গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রগুলো চিহ্নিত করতে আলোচনা করবেন। প্রধানমন্ত্রী ব্রুনাইয়ের সুলতান আলহাজ হাসানাল বোলকিয়াকে তার ম্যাজেস্টি দুলি রাজা ইসতেরিকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসার আমন্ত্রণ জানান।

ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু আজ

ভোটার তালিকা হালনাগাদ করতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) আজ মঙ্গলবার থেকে মাঠ পর্যায়ে তথ্য সংগ্রহ শুরু করতে যাচ্ছে। প্রথম দফায় দেশের ৬৪টি জেলার ১৩৫ উপজেলা ও থানায় এ হালনাগাদের কাজ শুরু হবে। কয়েক ধাপে আগামী ১৩ মে পর্যন্ত সারাদেশের তথ্য সংগ্রহ করা হবে। হালনাগাদে ভোটারযোগ্য নাগরিকদের তথ্যের পাশাপাশি তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার জন্য মৃত ব্যক্তিদেরও তথ্য সংগ্রহ করা হবে। ভোটার স্থানান্তরের আবেদনও নেওয়া হবে। বর্তমানে দেশে ১০ কোটি ৪১ লাখ ৪২ হাজার ৩৮১ ভোটার আছেন। তাদের মধ্যে পাঁচ কোটি ২৫ লাখ ১২ হাজার ১০৫ পুরুষ আর পাঁচ কোটি ১৬ লাখ ৩০ হাজার ২৭৬ জন নারী। এবার প্রায় ৮০ লাখ নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ করা হবে বলে ধারণা করছেন ইসি কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে জন্ম নেওয়া নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ করা হবে। তবে যাদের জন্ম ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে তারাই কেবল ২০২০ সালের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন। বাকিরা ১৮ বছর পূর্ণ হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার হয়ে যাবেন। এবার পুরুষ ও নারীর পাশাপাশি তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে হিজড়াদেরও ভোটার হিসেবে নিবন্ধনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করা হবে। আগে হিড়জারা নারী বা পুরুষ নামে ভোটার হওয়ার সুযোগ পেলেও এবার তারা হিজড়া পরিচয়েই ভোটার হতে পারবেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা আজ মঙ্গলবার রাজবাড়ীতে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। এ ছাড়া কমিশনার রফিকুল ইসলাম চট্টগ্রামে, কবিতা খানম সিলেটে, শাহাদাত হোসেন সাভারে, ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ রাজশাহীতে, অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান রংপুরে ও এনআইডির মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম কুমিল্লায় উপস্থিত থেকে হালনাগাদ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। এসএ/

আজ দে‌শে ফির‌ছেন প্রধানমন্ত্রী

ব্রুনাই দারুসসালামে তিন দিনের সরকারি সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দেশে ফিরবেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে আজ সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। এর আগে তিনি স্থানীয় সময় বিকেল ৫টায় ঢাকার উদ্দেশে ব্রুনাই ত্যাগ করবেন। প্রধানমন্ত্রী গত ২১ এপ্রিল তিন দিনের সফরে ব্রুনাই পৌঁছান। তিনি ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা এবং বাংলাদেশ-ব্রুনাই বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ বেশকিছু কর্মসূচিতে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী সফরের দ্বিতীয় দিনে সোমবার জামে আসর মসজিদ পরিদর্শন এবং সেখানে আছরের নামাজ আদায় করেন। পরে তিনি তার সম্মানে ব্রুনাই সুলতানের দেয়া এক ভোজসভায় অংশ নেন। সফরের প্রথম দিন ‌তিনি ব্রুনাইতে বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির সংবর্ধনায় যোগ দেন। আজ সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রুনাইয়ের রাজধানীতে কূটনৈতিক এলাকা জালান কেবানজাসানে বাংলাদেশ হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সারি ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন। পরে তিনি রয়েল রিগালিয়া মিউজিয়াম পরিদর্শন করবেন। এদিকে সোমবার বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে কৃষি, মৎস্য, পশুসম্পদ, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি এবং এলএনজি সরবরাহ সংক্রান্ত ৭টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ব্রুনাইর সুলতান হাসানাল বলকিয়ার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে এসব চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সাতটি চুক্তির মধ্যে- ছয়টি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) এবং একটি বিনিময় নোট। এগুলো হচ্ছে, কৃষি ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি সহযোগিতার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), মৎস্য ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, পশুসম্পদ ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, সাংস্কৃতিক ও শিল্প সহযোগিতা সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক, যুব ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে সহযোগিতার সমঝোতা স্মারক, এলএনজি সরবরাহে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্পর্কিত সমঝোতা স্মারক এবং কূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্ট হোল্ডারদের জন্য ভিসার ছাড় সংক্রান্ত বিনিময় নোট। এসএ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি