ঢাকা, শনিবার   ১১ জুলাই ২০২০, || আষাঢ় ২৮ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

নাটোরে দুদক কর্মকর্তা পরিচয়ে চাঁদাবাজি, আটক ৩

নাটোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৬:১৮ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নাটোরের গুরুদাসপুরে  দুদক কর্মকর্তা পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে আবু সাঈদ, হাফিজুল ইসলাম ও হৃদয় নামে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ। 

গুরুদাসপুর নয়াবাজার এলাকার আল আমিন নামে এক পল্লী চিকিৎসকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রাম থেকে তাদের আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়।
 
পুলিশ ও ভুক্তভোগীসহ এলাকাবাসী জানায়, তিনজনই পোষাক ও চালচলনে ভীষণ স্মার্ট। ঘোরেন বাইক আর ওয়াকিটকি নিয়ে। সম্প্রতি দুরন্ত সত্যের সন্ধানে (দুসস) নামে একটি ভূঁইফোড় সংবাদ সংস্থার জেলা প্রতিনিধির দায়িত্ব নেন গুরুদাসপুরের তালবাড়িয়া পূর্বপাড়া গ্রামের যুবক আবু সাঈদ। 

এরপর তার মাধ্যমে ক্রাইম রিপোর্টার হিসেবে নিয়োগ পান একই উপজেলার হাঁসমারি গ্রামের হাফিজুল ইসলাম নামে আরেক যুবক। পরে দুজন মিলে গড়ে তোলে ৬ জনের সংঘবদ্ধ একটি চাঁদাবাজ চক্র। তাদের চলাফেরায় মনে হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা। 

চক্রটি একযোগে বিভিন্ন ঔষুধের ফার্মেসি, পল্লী চিকিৎসক ও বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের দোকানে হানা দেয়। এরপর তারা দুদকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান দুসসের পরিচয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করে। 

নানা অপকর্ম করার এক পর্যায়ে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) গুরুদাসপুরের নয়াবাজার বিশ্বরোড মোড় এলাকার আল আমিন নামে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে যায় চক্রটি। এরপর চক্রের মূল হোতা আবু সাঈদ ও হাফিজুল ইসলাম দুদকের ভ্রাম্যমাণ অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির কাগজপত্র দেখতে চান। 

কাগজপত্র দেখে তারা বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আছে। এক পর্যায়ে ওই পল্লী চিকিৎসককে জেলে দেবার ভয় দেখিয়ে ২ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। পল্লী চিকিৎসক তাদের এক হাজার টাকা দিলে তারা টাকা নিয়ে কাউকে কিছু না বলতে শাসিয়ে চলে যান। পরে ওই পল্লী চিকিৎসক তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। 

নাজিরপুর বাজারের একাধিক ব্যক্তি জানান, ‘দুদকের কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিয়ে এই প্রতারকরা বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।’
 
গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাহারুল ইসলাম জানান, ‘ওই পল্লী চিকিৎসকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে হাফিজুলকে আটক করা হয়। পরে তার মাধ্যমে আবু সাঈদকে ওয়াকিটকিসহ এবং পরে হৃদয়কে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

এআই/
 


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি