ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৯ ১৪২৮

পাট দিয়ে তৈরি টিন ১০ গুণ বেশি মজবুত (ভিডিও)

মফিউর রহমান

প্রকাশিত : ১৩:২৪, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পাট থেকে তৈরি হচ্ছে পরিবেশবান্ধব টিন। প্রচলিত টিনের তুলনায় এটি ১০ গুণ বেশি মজবুত। স্থায়ীত্বও অনেক। এছাড়া ট্রাভেল ব্যাগ, স্যুটকেস, শাড়িসহ সৌখিন ও গৃহস্থালী মিলে কমপক্ষে ২৮২টি পণ্য তৈরি হচ্ছে পাট দিয়ে। স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে রয়েছে এসব পণ্যের বেশ চাহিদা। 

গ্রামে-গঞ্জে ঘর ও দোকানপাট নির্মাণে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই টিনের ব্যবহার হয়। আবার কারখানা নির্মাণে লাগে ইন্ডাস্ট্রিয়াল টিন। প্রচলিত এসব টিন ৮ থেকে ১০ বছর পর মরচে পড়ে নষ্ট হতে শুরু করে। 

এ সমস্যা নিরসনে পাট থেকে টিন আবিষ্কার করেছে বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইন্সটিটিউট। এই টিন অনায়াসে ৭০ থেকে ৮০ বছর টিকবে বলে দাবি গবেষকদের। 

পাট গবেষণা ইন্সটিটিউটের মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এমডি. নুরুল ইসলাম বলেন, থ্রি লেয়ারটা আমরা নর্মালই ইন্ডাস্ট্রিয়ালের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। ২ লেয়ার বা ১ লেয়ারেরটা বিভিন্ন ঘর বা কারখানার বেড়া হিসেবে ব্যবহার করা যায়। টিন তৈরিতে আমরা ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ পাট ব্যবহার করে থাকি।

শুধু টিনই নয়, পাট থেকে তৈরি হচ্ছে ফার্নিচার। মেলামাইনের চেয়ারের চেয়েও যা মজবুত। পরিবেশ বান্ধবও বটে। বাহারি কলমদানী, আকর্ষণীয় টিসুবক্স, ডেস্ক ফাইল ফোল্ডার- এসবই পাটের তৈরি। দেশি পাটের এসব পণ্য শোভা পাচ্ছে রাজধানীর পাট পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্রে। 

এছাড়া কানের দুল, হাতের চুড়ি, চাবির রিং, মাস্কসহ রয়েছে পাটের নানা অলংকার। রয়েছে বিভিন্ন রকম লাইট স্ট্যান্ড। ড্রইং ক্যানভাসও তৈরি হচ্ছে পাট থেকে। 

সময় বদলেছে, শুধু সিকা নয় পাট থেকে এখন তৈরি হচ্ছে পাপস, টেবিলের দস্তানা, নানা রকম শো-পিস, ঝালর, ঝুড়ি, বিভিন্ন ধরনের পাত্র, ঘড়ি ও আয়নার ফ্রেমসহ আরও অনেক পণ্য।

তৈরি হচ্ছে শাড়ি, বিছানার চাদর, ঘরে বা হোটেল-মোটেলে পরার মতো চপ্পল, বিভিন্ন রকম মোড়া। স্কুল ব্যাগ, অফিস ব্যাগ, ট্রাভেল ব্যাগ ও সুটকেসও হচ্ছে পাট থেকে। বিদেশেও রয়েছে এসব পণ্যের চাহিদা। 

পাটপণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক আবুল কালাম বলেন, এগুলো অভ্যন্তরীণভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। হ্যান্ডব্যাগের মধ্যে কিছু কিছু ব্যাগ বিদেশেও যাচ্ছে। এছাড়া নামকরা ব্রান্ডগুলোতে যাচ্ছে আমাদের পাটের তৈরি ব্যাগ।

পাটের সৌখিন ও গৃহস্থালী পণ্য তৈরি করছে প্রায় ৮শ’ উদ্যোক্তা। আছে ছোট বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। কর্মসংস্থান হয়েছে কয়েক হাজার মানুষের।

ভিডিও-

এএইচ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি