ঢাকা, শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ৩ ১৪২৭

প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ৯ জনের বিচার শুরু

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৩৬, ১২ নভেম্বর ২০২০

কিশোর আলোর অনুষ্ঠানে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র নাইমুল আবরারের (১৫) মৃত্যুর ঘটনায় প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। অভিযোগ গঠনের ফলে মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ আসামিদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ গঠন করেন। মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ১৪ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

একই সঙ্গে মামলার দায় থেকে প্রথম আলোর সহযোগি সম্পাদক ও কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় তা বদলির আদেশ দেন।

২০১৯ সালের ১ নভেম্বর মোহাম্মদপুরস্থ ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ ক্যাম্পাসে এক অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় আবরার। মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল প্রথম আলোর কিশোর সাময়িকী কিশোর আলো। প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান কিশোর আলোরও প্রকাশক আর কিশোর আলোর সম্পাদক হলেন আনিসুল হক।
এ ঘটনায় গত বছরের ৬ নভেম্বর আবরারের বাবা মো. মুজিবুর রহমান প্রথম আলো সম্পাদকসহ অজ্ঞাত পরিচয় কয়েক জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন।

গত ১৬ জানুয়ারি ঢাকার অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রথম আলো সম্পাদকসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ।

মামলার অপর আসামিরা হলেন, প্রথম আলোর সহযোগি সম্পাদক ও কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হক, জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক মহিতুল আলম, প্রথম আলোর হেড অব ইভেন্ট অ্যান্ড অ্যাকটিভেশন কবির বকুল, নির্বাহী শাহপরান তুষার ও শুভাশীষ প্রামাণিক। অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ সরবরাহের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিলেন জসীম উদ্দিন, মোশাররফ হোসেন, সুজন ও কামরুল হাওলাদার।- বাসস

এসি


----
নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্পসমূহের কাজ যথাসময়ে সম্পন্ন করার পরামর্শ

নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্পসমূহের কাজ যথাসময়ে সম্পন্ন করার পরামর্শ

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় বাস্তবায়নাধীন নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্পসমূহের কাজ যথাসময়ে সম্পন্ন করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কমিটির সভাপতি রমেশ চন্দ্র সেনের সভাপতিত্বে আজ সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সভায় এ পরামর্শ দেয়া হয়।

কমিটির সদস্য পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, সামশুল হক চৌধুরী, মোঃ ফরিদুল হক খান, নুরুন্নবী চৌধুরী এবং সালমা চৌধুরী সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সভায় চট্রগ্রাম জেলার লোহাগড়া ও সাতকানিয়া উপজেলায় সাঙ্গু এবং ডলু নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এছাড়া রংপুর জেলার মিঠাপুকুর, পীরগাছা ও রংপুর সদর উপজেলায় যমুনেশ্বরী, ঘাঘট ও করতোয়া নদীর তীর সংরক্ষণ ও নদী পুনঃখনন শীর্ষক প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কিত প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। কমিটি প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার সুপারিশ করেছে।

সভায় পানি আইন’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে প্রয়োজনে অধিক মিটিং এর আয়োজন করে পানি সংরক্ষণসহ আরো প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ দ্রুত গ্রহণ করতে বলা হয়।

সভায় পানি কমিটি’ গঠন ও যে এলাকায় কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে সেই এলাকার সংসদ সদস্যকে অবহিত করে, কমিটির উপদেষ্টার সুবিধাজনক সময়ে মিটিং এর সময় নির্ধারণ করার সুপারিশ করা হয়। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয়ের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় অংশগ্রহণ করেন।

এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি