ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ৪:১৮:১৪

যুবসমাজ রুখে দাঁড়ালে দূর হবে দুর্নীতি: প্রধান বিচারপতি

যুবসমাজ রুখে দাঁড়ালে দূর হবে দুর্নীতি: প্রধান বিচারপতি

দেশের যুবসমাজ রুখে দাঁড়ালে আর কেউ দুর্নীতির সুযোগ পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। রোববার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে দুর্নীতিবিরোধী এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এ সমাবেশের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। প্রধান বিচারপতি বলেন, দুর্নীতি আমাদের একটি জাতীয় ব্যাধি। এটি সমাজে অর্থনৈতিক বৈষম্য সৃষ্টি করে। সুষম রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন ব্যাহত করে। জাতীয় এই সমস্যা প্রতিরোধে দুদককে একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। তিনি বলেন, দুর্নীতি সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করে স্বাধীনতার স্বপ্নকে ধূলিস্যাৎ করেছে। কাজেই দেশের যুবসমাজ রুখে দাঁড়ালে আর কেউ দুর্নীতির সুযোগ পাবে না। সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আরও বলেন, এই প্রতিষ্ঠান (দুদক) সৃষ্টির ফলে ক্ষমতাধর দুর্নীতিবাজরা শঙ্কিত হয়ে পড়েন। নৈতিক আদর্শ ও নৈতিক অবস্থান সৃষ্টির জন্য আমাদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। তিনি বলেন, অনেক ত্যাগ ও রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। কিন্তু দুর্নীতির কারণে সেই অর্জন নষ্ট হচ্ছে। সমাজ থেকে দূরে সরে যাচ্ছে আদর্শ ও নৈতিকতা। প্রধান বিচারপতি বলেন, এ অবস্থার পরিবর্তন করতে দেশের যুবসমাজের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে সম্পৃক্ত হওয়ার এখন সময়ের দাবি। কারণ দেশের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে তরুণ প্রজন্মের ওপর। সৈয়দ মাহমুদ বলেন, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে দেশের প্রতিটি আন্দোলনে তরুণদের ভূমিকা আছে। তরুণ সমাজ দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালে কেউ দুর্নীতি করার সাহস পাবে না। সবাই দুর্নীতিকে না বলুন। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুদক কমিশনার এএসএম আমিনুল ইসলাম, ড. মোজাম্মেল হক খান, দুদক সচিব শামসুল আরেফিনসহ সংস্থাটির বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা। আরকে//
মির্জা আব্বাসের দুর্নীতি মামলা চলতে বাধা নেই

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনে দুদকের (দুর্নীতি দমন কমিশন) দায়ের করা মামলা বাতিলের আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করেননি আপিল বিভাগ। তার আবেদনটি শুনানির জন্য আগামী দুই সপ্তাহের জন্য মুলতবি রাখা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আইনজীবীরা এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেননি আপিল বিভাগ। দুই সপ্তাহের জন্য এর শুনানি মুলতবি রাখা হয়েছে।এর ফলে এ মামলার বিচারিক আদালতে চলবে। মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে দুদকের করা মামলাটি বাতিলের আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ বাতিল চেয়ে আপিল শুনানি নিয়ে আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এর ফলে এ সময়ের মধ্যে বিচারিক আদালতে এই মামলাটি চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। আদালতে মির্জা আব্বাসের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী জয়নুল আবেদীন ও এ জে মোহাম্মদ আলী। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. খুরশীদ আলম খান। আরকে//

আপিলে খালেদা জিয়ার জামিন বহাল

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে গাড়ি পোড়ানোর অভিযোগে করা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে ১৩ ডিসেম্বরের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষকে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করতে বলেছেন আদালত।রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী এজে মোহাম্মদ আলী। সঙ্গে ছিলেন বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ।এসএ/

দুই মামলায় জামিন পেলেন ব্যারিস্টার মইনুল

দুই মামলায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারে উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মামলা দুটির কার্যক্রম স্থগিত করে এর নথি তলব করা হয়েছে। আজ বুধবার রংপুর ও জামালপুরের দুই মামলায় রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ জামিন দেন। মইনুল হোসেনের আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘হাইকোর্ট জানিয়েছেন মানহানির মামলায় যাকে আপমানিত করা হয়েছে তাকেই মামলা করতে হবে। বাইরের কারও মামলা করার সুযোগ নেই। ১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে একাত্তর টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি ও সাখাওয়াত সায়ন্ত। একপর্যায়ে লাইভে যুক্ত হন আইনজীবী মইনুল হোসেন। এ সময় মইনুলের কাছে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে, আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না?’ মইনুল হোসেন এ প্রশ্নের জবাবে একপর্যায়ে মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন। এই ঘটনায় সারা দেশে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ২২টি মামলা হয়েছে, যার মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রথম মামলা। অপর মামলাগুলোর মধ্যে মাসুদা ভাট্টি নিজে ঢাকার সিএমএম আদালতে একটি মামলা করেছেন। রংপুরে হওয়া একটি মামলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে গত ২২ অক্টোবর গ্রেপ্তারের পর গত ২৩ অক্টোবর ঢাকা সিএমএম আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়। টিআর/

সিনহার দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২০ জানুয়ারি

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার (এস কে সিনহা) বিরুদ্ধে দায়ের করা দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ২০ জানুয়ারি দাখিলের দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ বুধবার এই মামলার নিয়োজিত কর্মকর্তা প্রতিবেদন জমা না দেওয়ায় ঢাকা মহানগর হাকিম মিল্লাত হোসেন নতুন এই তারিখ ধার্য করেন। উল্লেখ্য, এসকে সিনহার বিরুদ্ধে ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবির অভিযোগে গত ২৭ সেপ্টেম্বর শাহবাগ থানায় মামলাটি দায়ের করেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট অ্যালায়েন্সের (বিএনএ) সভাপতি ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া একটি মামলা উচ্চ আদালতে ডিসমিস করার পরও প্ররোচিত হয়ে মামলাটির রায় পরিবর্তন করা হয়। মামলাটি ডিসমিস করতে দুই কোটি টাকা ও অন্য একটি ব্যাংক গ্যারান্টির আড়াই কোটি টাকার অর্ধেক ১ কোটি ২৫ লাখ টাকা উৎকোচ চান এসকে সিনহা। ২০১৭ সালের ২০ জুলাই এই উৎকোচ চাওয়ার পর তিনি প্রথমে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হলেও তখনই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মনস্থির করেন। কিন্তু আসামি এস কে সিনহা ওই সময় প্রধান বিচারপতি হওয়ার কারণে মামলা দায়ের থেকে পিছপা হন নাজমুল হুদা। আদালতের নির্দেশে বর্তমানে মামলাটি তদন্ত করছেন দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন। টিআর/

হাইকোর্টের পুনর্গঠিত ১৬টি বেঞ্চ আজ থেকে কার্যকর

সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের ১৬টি বেঞ্চ পুনর্গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে হাইকোর্টের নতুন ১৬টি বেঞ্চ দায়িত্ব পালন করবে। পুনর্গঠিত এ ১৬ বেঞ্চের বিচারপতিরা হলেন- বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীম, বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান, বিচারপতি একেএম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এসএম মজিবুর রহমান, বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল করিম ও বিচারপতি মো. আকরাম হোসেন চৌধুরী, বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমেদ, বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এসএম মনিরুজ্জামান, বিচারপতি শেখ আবদুল আউয়াল ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তী, বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খিজির হায়াত, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এসএম কুদ্দুস জামান, বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামান, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও মো. মোস্তাফিজুর রহমান, বিচারপতি মো. ফারুক (এম ফারুক) ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খান, বিচারপতি এএনএম বসির উল্লাহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম, বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও মো. আতোয়ার রহমান, বিচারপতি মো. হাবিবুল গনি ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামান। একে//

নিপুণ-রুমাকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের মামলায় দলটির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী ও ছাত্রদলের সহসাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমার রিমান্ড ও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। তাদেরকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার মহানগর হাকিম মো. তোফাজ্জল হোসেন এ আদেশ দেন। আদালতে নিপুনের পক্ষে শুনানি করেন সানাউন্নাহ মিয়া ও অ্যাডভোকট নিতাই রায় চৌধুরী (নিপুণের বাবা)। আদালতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নিপুণ রায়ের শশুর গয়েশ্বর চন্দ্র রায় উপস্থিত ছিলেন। আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) জালাল উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে নিপুণ রায় চৌধুরী ও আরিফা সুলতানা রুমাকে হাজির করে পুলিশ। এ সময় বিএনপি অফিসের সামনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশ তাদের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে। অপরদিকে তাদের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। পরে শুনানি শেষে বিচারক রিমান্ড ও জামিনের আবেদন খারিজ করে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে যে কোনও একদিন জেলগেটে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অনুমতি দেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১৪ নভেম্বর রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির সময় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলের নেতাকর্মীদের সংঘর্ঘ হয়। এ সময় একাধিক গাড়ি পোড়ানো হয়। এ ঘটনায় ১৫ নভেম্বর রাত ৮টার দিকে রাজধানীর কাকরাইল থেকে নিপুণকে আটক করা হয়। তাকে পল্টন থানার নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। এরপর থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন। এছাড়া কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেত্রী আরিফা সুলতানা রুমাকে একইদিন হাইকোর্ট এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। একে//

আব্বাসের মনোনয়নপত্র গ্রহণে রিটার্নিং অফিসারকে নির্দেশ

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা–৯ আসনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের মনোনয়নপত্র গ্রহণে রিটার্নিং অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও কেএম কামরুলের কাদেরর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।একই সঙ্গে তার মনোনয়নপত্র জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে পাঠাতে এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যাচাই-বাছাই করতে রিটার্নিং অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালতে তার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোট জয়নুল আবেদীন ও একে এম এহসানুর রহমান।  এহসানুর রহমান জানান, গত ২৮ নভেম্বর মির্জা আব্বাসের মনোনয়নপত্র জমা দিতে গেলে বিভিন্নভাবে সময়ক্ষেপণ করা হয়। এক পর্যায়ে বিকেল ৫টা ১০ মিনিটের দিকে সময় অতিবাহিত হয়েছে বলে তার মনোনয়নপত্র জমা নেয়নি রিটার্নিং অফিসার।তিনি আরও বলেন, ‘পরবর্তীতে ১ ডিসেম্বর আমরা সিইসির কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে আসি। কিন্তু ২ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের জন্য রিটার্নিং অফিসারের কাছে পাঠানো হয়নি। সে অবস্থায় আমরা হাইকোর্টে রিট করি।’ আদালত আজ এর শুনানি নিয়ে জেলা রিটার্নিং অফিসারকে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করতে এ আদেশ দেন।এর আগে গত বুধবার আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা–৯ আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেননি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। তার অভিযোগ, তার লোকজন নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই মনোনয়নপত্র নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়েছেন। কিন্তু তা গ্রহণ করা হয়নি। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দাবি, মির্জা আব্বাসের লোকজন বিকেল ৫টার পরে এসেছেন, এ কারণে মনোনয়নপত্র জমা নেওয়া হয়নি।এসএ/  

শিক্ষার্থী আত্মহত্যার ঘটনা অত্যন্ত বাজে দৃষ্টান্ত : হাইকোর্ট

শিক্ষার্থীর সামনে বাবা-মাকে অপমান করায় ভিকারুননিসা নূন স্কুলের প্রধান শাখার অরিত্রি অধিকারী (১৫) আত্মহত্যার ঘটনাকে হৃদয় বিদারক বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এই ঘটনাকে বাজে রকমের দৃষ্টান্ত বলেও মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী বিষয়টি আদালতের নজরে আনলে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন। আইনজীবী ব্যারিস্টার সাইয়েদুল হক সুমন বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত অরিত্রি অধিকারী (১৫) আত্মহত্যার প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করে বলেন, আমরা এ বিষয়ে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা প্রার্থনা করছি। তখন আদালত বলেন,অরিত্রি অধিকারী (১৫) আত্মহত্যার ঘটনা খুবই হৃদয় বিদারক। এ সময় শিক্ষার্থীর সামনে বাবা-মাকে অপমানের ঘটনাকে বাজে রকমের দৃষ্টান্ত বলে মন্তব্য করেন আদালত। আদালত আইনজীবীর উদ্দেশ্য বলেন, আপনি পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে রিট নিয়ে আসেন। আমরা বিষয়টি দেখবো। রোববার পরীক্ষার হলে অরিত্রি মোবাইল ফোন নিয়ে যাওয়ায় তার বাবা ও তার মাকে ডেকে পাঠানো স্কুল কর্তৃপক্ষ। তারা সোমবার গিয়ে মেয়ের হয়ে ভাইস প্রিন্সিপালের কাছে ক্ষমা চান। কিন্তু তিনি `কিছু করার নেই` জানিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপালের কাছে যেতে বলেন। এরপর তারা প্রিন্সিপালের কাছে গিয়েও ক্ষমা চান। একপর্যায়ে অরিত্রি তার পা ধরে ক্ষমা চায়। তাতেও কাজ হয়নি। প্রিন্সিপাল তাদের অপমানজনক কথাবার্তা বলে তার কক্ষ থেকে বের করে দেন। তিনি আরও বলেন, ওই ঘটনার পর অরিত্রি প্রিন্সিপালের রুম থেকে দৌড়ে বের হয়ে যায়। তারাও তার পিছু নেন। স্কুল থেকে বের হয়ে মেয়ে একাই একটি রিকশায় তাদের শান্তিনগরের বাসায় চলে আসে। পরে তারা ফিরে দেখেন, নিজের ঘরে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলছে অরিত্রির নিথর দেহ। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে নেওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। টিআর/

তাবলিগের সংঘর্ষে ২৫ হাজার জনকে আসামী করে মামলা

টঙ্গির ইজতেমা ময়দানে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় গতকাল রোববার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে। এতে ২৫ হাজার অজ্ঞাতনামাকে আসামি করা হয়েছে। গত শনিবার তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে এসআই রকিবুল হাসান বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় এই মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় এখনও কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। এছাড়া, ওই সংঘর্ষে ইসমাইল মন্ডল নিহতের ঘটনায় একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানায় টঙ্গি থানা পুলিশ। এর আগে গত শনিবার ভোর থেকে তাবলিগের এক পক্ষ সড়কের একপাশে অবস্থান নেয়। অন্যদিকে, টঙ্গীর আব্দুল্লাহপুরেও অবস্থান নিয়েছে আরেক পক্ষ। এতে মহাখালী থেকে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। তাবলিগ–সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার থেকে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত ৫ দিনের জোড় (সম্মিলন) এবং ১১-১৩ জানুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত তিন দিনের ইজতেমা করার ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের তাবলিগ জামাতের মুরব্বি সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা। অন্যদিকে, তাবলিগের হেফাজতপন্থী মাওলানা জোবায়েরের অনুসারীরা ডিসেম্বরের ৭ থেকে ১১ তারিখ পর্যন্ত জোড় এবং আগামী বছরের জানুয়ারির ১৮ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত তিন দিন ইজতেমার ঘোষণা দিয়েছেন। ফলে দুই পক্ষের বিবদমান বিরোধের জেরে হেফাজতপন্থীরা মাঠ দখল করে সতর্ক পাহার ব্যবস্থা করেছেন। উত্তরা জোনের ট্রাফিকের সহকারী কমিশনার জুলফিকার জুয়েল গণমাধ্যমকে জানান, শনিবার ভোর থেকেই এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। একে//

নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না সাজাপ্রাপ্তরা

বিচারিক আদালতের দেওয়া সাজা ও দণ্ড স্থগিত করে হাইকোর্টের একক বেঞ্চের দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এই আদেশের ফলে বিচারিক আদালতের দেওয়া সাজা কিংবা দণ্ডর মেয়াদ দুই বছরের বেশি হলে দণ্ডিত ব্যক্তি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।আজ রবিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।আদালতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে করা আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা। আর সাবিরা সুলতানার পক্ষে ছিলেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট এ বি এম বায়েজিদ ও খুরশীদ আলম খান।এসএ/  

আটকে গেল সাবিরার দণ্ড স্থগিতের আদেশ (ভিডিও)

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-২ আসনের বিএনপির প্রার্থী সাবিরা সুলতানার দুর্নীতির মামলার দণ্ড ও সাজা স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ একদিনের জন্য স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বারজজ আদালত। আগামীকাল রোববার সকালে প্রধান বিচারপতি নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হবে। রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশনের এক আবেদনের শুনানি নিয়ে শনিবার আপিল বিভাগের বিচারপতি চেম্বারজজ আদালত এই আদেশ দেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তার সঙ্গে ছিলেন- ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মাসুদ হাসান চৌধুরী। অন্যদিকে, সাবিরা সুলতানার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ও আমিনুল ইসলাম। দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আদেশের পরে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আজকের আদেশের ফলে সাবিরা সুলতানার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ আর থাকল না, যদি না আগামীকাল আপিল বিভাগ ভিন্নতর কোনও আদেশ দেন। আপিল বিভাগ আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত চেম্বার আদালতের আদেশ বহাল থাকবে। প্রসঙ্গত, জ্ঞাত আয়-বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের মামলায় চলতি বছর ১২ জুলাই সাবিরা সুলতানাকে দুটি ধারায় তিন বছর করে মোট ৬ বছরের সাজা দেয় ঢাকার বিশেষ জজ আদালত। এ রায়ের পর ১৭ জুলাই বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। এরপর ওই সাজার বিরুদ্ধে কারাগার থেকেই হাইকোর্টে আপিল আবেদন করেন। একে//

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি