ঢাকা, রবিবার   ২৫ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ১১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

প্রিয় ডাক্তার ও সেবিকা

প্রকাশিত : ১৬:১৬ ১৩ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ১৬:১৮ ১৩ জুলাই ২০১৯

প্রিয় ডাক্তার এবং সেবিকা। এ পেশাজীবিদের প্রতি আল্লাহর অশেষ রহমত রয়েছে। বলতে গেলে সৃষ্টিকর্তার অদৃশ্য হাতের পরশ রয়েছে। কেননা ডাক্তাররা ঔষুধ লেখার পূর্বে Rx লিখে। যা হচ্ছে though take, this name of Jupiter. The Goddens of health. অর্থ্যাৎ আমি এ পথ্য বা ঔষুধ প্রদান করছি তাকে (আল্লাহ/জুপিটর/দেবতা) কে সমরণ করে যিনি এ মানুষ বা বান্দার স্বাস্থ্যের প্রতিপালক। আল্লাহ তাঁকে ভাল করে দিক।

রোগ দুঃখের কঠিন জ্বালা, কষ্ট থেকে প্রিয় ডাক্তার এবং সেবিকাগণ মানুষকে নতুন দুনিয়া দেখার স্বপ্ন দেখায়। তাই ইচ্ছে করলেও এ মহৎ পেশায় যে কেউ যেতে পারে না। কঠিন, কন্টাকাকীর্ণ্য এবং দীর্ঘপথ তাদেরকে পাড়ি দিতে হয়। রাত দিন পড়া লেখা ও রোগীর সেবায় মগ্ন থাকে। হয়ত তাই, তাদের প্রতি মানুষের শ্রদ্ধা, ভালবাসা ,সন্মান অগাধ। যা অন্য কোনো পেশার প্রতি তেমন পরিলক্ষিত হয় না।

আমার শরীরের চেক আপ করতে প্রায়শ ডাক্তারদের কাছে যেতে হয়। তাছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেক নাগরিককে প্রতি তিন মাস পর পর ডাক্তারের কাছে গিয়ে শারিরীক চেক আপ করা বাধ্যতামূলক। কেউ যেতে না চাইলে এটা অন্য বিষয়। এখানে সিংহভাগ চিকিৎসা ব্যয় বহন করে সরকার। তবে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা, ইনকাম স্যুইচের উপর অনেকটা নির্ভর করে।

যে কথা বলতে চেয়েছি, আমেরিকায় অন্যান্য পড়ালেখার মত ডাক্তারি পড়তে একজন ছাত্রের নিজ খরচে ( student loan) পড়তে হয়। ডাক্তারি পাশের পর ঐ লোন ক্রমান্বয়ে সে পরিশোধ করে। কিন্তু পেশা ও সেবার প্রতি থাকে সদায় সজাগ। বিপরীতে বাংলাদেশে ডাক্তারি পড়তে খরচ বহন করে সরকার। (বেসরকারি কলেজ ব্যতীত) সরকারি খরচে, (জনগণের TAX এ) ডাক্তারি পাশ করে সেবার প্রতি অনেকেই দায়িত্ববোধ হারিয়ে ফেলে। সাম্প্রতিক এক মেডিকেলে ইমারজেন্সি ডিউটিরত এক ডাক্তার চিকিৎসার পরিবর্তে রোগীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। যা অত্যান্ত দুঃখজনক, কষ্টদায়ক। যুক্তরাষ্ট্র হলে পরে ঐ ডাক্তার এত দিন শ্রী ঘরের বাসিন্দা হতো বরং ঘটনার সাথে সাথে সাময়িক ডাক্তারির লাইসেন্স বাতিল হত। সরকারি চাকুরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত হত।

সাম্প্রতিক দেশে ডাক্তারদের বদলি কর্মস্থলে হাজির কর্তব্য পরায়ন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অনেক সংবাদ, কথাবার্তা হলে পরে বিশিষ্ট ডাক্তার আব্দুর নুর তুষার ডাক্তারদের পক্ষে নীতি নৈতিক বর্জিত অনেক সুপারিশমালার বয়ান করেছিল। কিন্তু বিধি বাম সোশ্যাল মিডিয়া যখন নুর তথা ডাক্তারদের নিয়ে লেখালেখির তুষারপাত ঘটল তখন তুষার নিজেই গত্ খুঁজে ঢুকে গেল । প্রশ্ন হচ্ছে আমেরিকায় নিজ খরচে ডাক্তারি পড়ে ডাক্তারদের আচরণ সেবা বিশ্বের মধ্যে নাম্বার ওয়ান। বিপরীতে বাংলাদেশে সরকারি খরচে ডাক্তারি পাশ করে ডাক্তারদের আচরণ ও সেবার মান কী ধরনের হওয়া উচিত তা মাননীয় ডাক্তারদের একটু ভাবা উচিত।

বাংলাদেশের MBBS মানে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপলোমা ইন নার্স। যুক্তরাষ্ট্রের ডাক্তার মানে MD (doctor of medicine) আর বাংলাদেশের MBBS MD মানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। বাংলাদেশে ডাক্তারদের আওতায় নার্স/ সেবিকা কর্তব্য পালন করে। chain of command মেনে চলে। আর আমেরিকায় ডাক্তারি পাশের পর অন্তত চিকিৎসা সনদ পেতে একজন ডাক্তারকে হাসপাতালের একজন নার্স/ সেবিকার (লাইসেন্স/ ইন্স্যুরেন্স) এর আওতায় অর্থ্যাৎ নার্সের আওতাধীন ২ বছর কাজ করে সনদ লাভ করতে হয়।

সাম্প্রতিক নিউইয়র্ক হাসপাতালে এক রুগির প্রচন্ড জ্বর। ডাক্তার তাকে অন্যান্য ওষুধ এর সাথে স্যালাইন দিয়েছে। কোনো একটি ওষুধ কিংবা স্যালাইন রং লিখেছে। নার্স এটা stop করে দিয়েছে। ডাক্তারকে কল করেছেন। ডিউটি ডাক্তার তেলে বেগুনে আগুন নার্সের উপর।

ডাক্তার এসে বলল- I am as a doctor, you are a nurse ok.

Nurse: so what’s?

ডাক্তার বলল-আমি ঔষুধ লিখেছি আর আপনার কাজ হলো এটি প্রয়োগ করা।

নার্স বলল- নো আমি রোগিকে মেরে ফেলতে পারব না ।

ডাক্তার বলল- what’s wrong,

নার্স বলল- এটি আগে জিজ্ঞেস করা উচিত ছিল।

এ রোগী মারা গেলে responsibility কে নিবে?

আপনি না আমি ।

কে?

ডাক্তার নিশ্চুপ।

নার্স বলল-এ মুহূর্তে আপনি যেতে পারেন,

ডাক্তার জিজ্ঞেস করল কেন?

নার্স রেগে উঠে বলল-

you are doctor,

Where your marks ,

where your apron,?

. I am sorry doctors, I cannot support on behalf of my license & insurance

এ ডাক্তার হচ্ছে বংশগত আফগানিস্তানের নাগরিক। শেষ মেশ এ ডাক্তার পাশ করেছে ঠিকই কিন্তু লাইসেন্স ফেতে তাঁকে অনেক বেগ পোহালেই হবে বৈকি?

বিপরীতে বাংলাদেশে যদি এ রকম হতো? তাহলে অবস্থাটা কী হতো। আমেরিকার প্রত্যেক পেশায় একজন অন্যজনকে sir সম্বোধন করে। কেবল ডাক্তারি ও সাংবাদিকতায় পেশায় sir শব্দটার নেই। নার্স ডাক্তারকে Dr বিপরীত ডাক্তার nurse কে নার্স বলে সম্বোধন করে।

আমি দেখেছি out of Hospital Dr & nurse একই সাথে friendship এর আলোচনা করছে।

প্রায় ১৮ বছর আগে আমি বাংলাদেশ নিউজ সার্ভিস ( বিএনএস) এর চট্টগ্রাম এর প্রতিনিধি।

Ctg Medical college এ prof Abdul Mannan , prof Whab , prof Nur jahan bhy কে দেখলে নার্স তো দূরের কথা স্বাভাবিক ডা./ লেকচাররা পর্যন্ত ভয়ে তটস্থ হয়ে যেত।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি