ঢাকা, রবিবার   ০৯ আগস্ট ২০২০, || শ্রাবণ ২৫ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

বছরের প্রথম তিন মাসে ৩৭৭১৮ জনকে আইনি সহায়তা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২০:২৮ ২৯ জুলাই ২০২০

চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ৩৭ হাজার ৭১৮ জনকে সরকারি খরচে বিনামূল্যে আইনি সেবা প্রদান করেছে জাতীয় আইনগত সহায়তা সংস্থা।সংস্থাটির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। 

প্রতিবেদনে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত দেশে অসচ্ছল বিচারপ্রার্থী ও আইনি সহায়তা প্রত্যাশীদের বিভিন্ন বিষয়ে আইনি সহায়তা ও পরামর্শ প্রদানের তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এর মধ্যে গরীব ও অসহায় ২৮ হাজার ৩৩৯ ব্যক্তিকে আইনগত সহায়তা দেয়া হয়েছে। কলসেন্টার/হটলাইনের মাধ্যমে ৪ হাজার ৬৩৫ জনকে আইনি পরামর্শ ও তথ্য সেবা প্রদান করা হয়েছে। 

মামলা দায়েরের পূর্বে মীমাংসার মাধ্যমে (প্রি-কেইস ম্যানেজমেন্ট) ৪ হাজার ৮৭ জনকে এবং মামলা দায়েরের পর মীমাংসার মাধ্যমে (এডিআর) নিষ্পত্তি আইনি সেবা দেয়া হয়েছে ৬৫৭ জনকে। মানুষের সব মৌলিক অধিকারের পাশাপাশি বিচার পাওয়ার অধিকারও প্রতিষ্ঠিত করতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করে। 

২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে লিগ্যাল এইড ‘কল সেন্টার জাতীয় হেল্পলাইনের’ উদ্বোধন করেন। এ হেল্পলাইনে ১৬৪৩০ নম্বরে ফোন করে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদানকারী সংস্থার মাধ্যমে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা পাচ্ছেন দেশের স্বল্প আয়ের ও অসহায় বিচারপ্রার্থী নাগরিকরা।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল, সহায় সম্ভলহীন, অসমর্থ বিচারপ্রার্থী জনগণকে সরকারি খরচে আইনি সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে “আইনগত সহায়তা প্রদান আইন-২০০০” প্রণয়ন করে। ২০০০ সালে তৎকালীন শাসন আমলে আইনটি প্রণয়ন করে আওয়ামী লীগ। তারপরের সরকারগুলো আইনটি কার্যকরে উল্লেখযোগ্য কোন পদক্ষেপ নেয়নি। 

২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর আওয়ামী লীগ দরিদ্র ও অসচ্ছল জনগণের বিচারপ্রাপ্তি নিশ্চিতে আইনটি কার্যকরে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে এবং তা অব্যাহত রয়েছে। ২০০০ সালে প্রণীত আইনটি অনুযায়ি “জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা” গঠন করা হয়। রাজধানীর ১৪৫, নেউ বেইলী রোডে এ সংস্থার প্রধান কার্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। এর ব্যাপ্তি সুপ্রিমকোর্ট, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত নেয়া হয়। 

জেলা কমিটি গঠন, প্রতিটি জেলা জজ আদালত, শ্রম আদালতে এর কার্যালয় ও এডিআর কর্ণার স্থাপন করা হয়েছে। এতে দরিদ্র-অসচ্ছল ও অসহায় জনগণ বিচারপ্রাপ্তিতে সুবিধা পাচ্ছে। নানা প্রচার, প্রচরণা, সেমিনার ও কর্মশালা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এ সেবা বিষয়ে জনসচেতনতাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার নিজস্ব ওয়েবসাইট রয়েছে। এ ওয়েবসাইটে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ে বিস্তারিত সকল তথ্য জানা যায়।

এসি

 


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি