ঢাকা, সোমবার   ২০ জানুয়ারি ২০২০, || মাঘ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বটি দিয়ে চা-দোকানিকে কুপিয়ে হত্যা

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২৩:৩৯ ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

নিহত এনামুলের লাশ

নিহত এনামুলের লাশ

বাড়ির সামনে রাস্তায় বেড়া দেয়াকে কেন্দ্র করে ধারালো বটি দিয়ে এনামুল হক (৫০) নামে এক চায়ের দোকানদারকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত আরও তিন জন জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ও বগুড়ায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গত ২৬ নভেম্বরের এ ঘটনায় আহত এনামুল হক ঢামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে মারা যায়। ঘটনাটি ঘটেছে জয়পুরহাট সদর উপজেলার ধলাহার ইউনিয়নের ভানাই কুসলিয়া গ্রামে।

নিহত এনামুল হক ভানাই কুসলিয়া গ্রামের গ্রামের মৃত আব্দুল গণির ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ইব্রাহীম আলী ওরফে জীবন চৌধুরীকে (৩৭) আটক করেছে পুলিশ। সে একই গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে। আহতরা হলেন- একই গ্রামের আইনুল হক, সাইদুল ইসলাম ও রতন। 

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার ভানাই কুশলিয়া গ্রামের ইব্রাহীম হোসেন তার বাড়ির সামনের সরকারি রাস্তার কিছু অংশে অবৈধভাবে বেড়া দিয়ে রেখেছিল। সেই বেড়াকে কেন্দ্র করে ওই রাস্তার সংস্কার কাজ চলায় প্রকল্পের লোকজন ও গ্রামবাসীর সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়। এতে ইব্রাহীম ক্ষিপ্ত হয় সবার ওপর। 

আরও জানা যায়, এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬ নভেম্বর চা দোকানি এনামুল সেই রাস্তা দিয়ে তার দোকানে যাচ্ছিল। এসময় ইব্রাহীম অতর্কিতভাবে ধারালো বটি দিয়ে এনামুলকে কোপাতে থাকে। তখন তার প্রতিবেশী ও বাড়ির লোকজন তাকে বাঁচাতে এলে ইব্রাহীম তাদেরকেও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। 

তৎক্ষণাৎ এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করায় এবং ইব্রাহীমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় বগুড়ায় রেফার্ড করা হয়। তখন এনামুলের অবস্থা আরও আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাতে সে মারা যায়। 

জয়পুরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহরিয়ার খাঁন জানান, ইব্রাহীমকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। 

এনএস/

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি