ঢাকা, বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ৯ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বাংলাদেশের উন্নয়নে অন্যতম সহযোগী জাইকা

প্রকাশিত : ২০:১৪ ২৯ মে ২০১৯ | আপডেট: ২০:২২ ২৯ মে ২০১৯

স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নে রাষ্ট্র হিসেবে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছে জাপান। আর সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করে দেশের উন্নয়নে অন্যতম সহযোগী হিসেবে কাজ করছে জাপান সরকারের দাতা সংস্থা জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)। ১৯৭২ সাল থেকে দেশটির কাছ থেকে বাংলাদেশ মোট এক হাজার ১৩০ কোটি ডলারের সহায়তা পেয়েছে।

জাইকার অর্থায়নে এ পর্যন্ত বাংলাদেশের সড়কে ৫৫০টি ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে হাইওয়ে রোডে ১৩৪ টি বড় ও ছোট ব্রীজ ও গ্রামের সড়কে ৪০০ এর উপরে ব্রীজ নির্মাণ করেছে জাইকা।

১৯৯৩ সালের পর থেকে বাংলাদেশে ১১৭ টি সাইক্লোন সেল্টার নির্মাণ করেছে জাইকা। ১৩০০০ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক তৈরি করা হয়েছে জাইকার অর্থায়নে। গ্রাম্য এলাকায় ৩৫ হাজার কিলোমিটার কালভার্ট ও ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে জাইকার অর্থায়নে। জাইকার অর্থায়নে ২৩৭০ মেগা ওয়ার্ট বিদুৎ উৎপাদন হয়েছে দেশে। যা বাংলাদেশের ২৪% শতাংশ বিদুৎ চাহিদা পূরণ করবে।

বাংলাদেশে ১৯৯৩ সালের পর থেকে ৮০ টির বেশি লোন প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করেছে জাইকা। প্রতিবছর প্রায় ২০টির মত প্রযুক্তিগত প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে তারা। বর্তমানে দেশে জাইকার বড় প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে মেট্রোরেল প্রকল্প। ২০২২ সালের মধ্যে ঢাকায় মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ পুরোপুরি শেষ হবে বলে প্রকল্প বাস্তবায়নকারী জাপান সরকারের দাতা সংস্থা জাইকা জানিয়েছে। আর ঢাকায় গণপরিবহনের উন্নয়নে গৃহীত মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট-এমআরটির সব প্রকল্প ২০২৮ সালের মধ্যে শেষ হবে বলে তারা জানিয়েছে।

ঢাকার গণপরিবহন ব্যবস্থা উন্নয়নে এমআরটির ছয়টি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে এমআরটি-৬ এ উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ সবচেয়ে বেশি এগিয়েছে।

এছাড়া মহেশখালীর মাতারবাড়ী কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পে ৫ হাজার ১৪৮ কোটি টাকা দিয়েছে সংস্থাটি। মাতারবাড়ী বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দুটি ইউনিট থেকে এক হাজার ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেড (সিপিজিসিবিএল)। এই প্রকল্পে ব্যয় ৩৫ হাজার ৯৮৪ কোটি টাকা। ইতিমধ্যে এই প্রকল্পে কাজ বেশ এগিয়েছে। মাঝে হোলি আর্টিজান ট্র্যাজেডির কারণে কিছুদিন এই প্রকল্পের কাজ বন্ধ ছিল।

এদিকে আজ বুধবার বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থায়নের জন্য জাপানের সঙ্গে ২৫০ কোটি ডলারের উন্নয়ন সহায়তা চুক্তি করেছে বাংলাদেশ সরকার।

টোকিওতে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে এই চুক্তি হয়। বাংলাদেশে জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোইয়াসু ইজুমি ও ইআরডি সচিব মনোয়ার আহমেদ চুক্তিতে সই করেন।

জাপানী এই অর্থে মাতারবাড়ি সমুদ্র বন্দর উন্নয়ন প্রকল্প, ঢাকা মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-১), বিদেশি বিনিয়োগ সহায়ক প্রকল্প(২), জ্বালানি দক্ষতা ও সুরক্ষা সহায়ক প্রকল্প (পর্যায়-২) ও মাতারবাড়ি আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পে (৫) এই অর্থায়ন করা হবে।

আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি