ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯, || আশ্বিন ৩০ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বেয়াইকে ডেকে এনে মারধর ও সম্পত্তি লিখে নেয়ার অভিযোগ

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৭:৫৬ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে স্বপরিবারে বেয়াইকে ডেকে এনে আটকে রেখে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় জোরপূর্বক বেয়াইয়ের বাড়ি-ভিটেসহ ২০ শতাংশ সম্পত্তি স্ট্যাম্পের মাধ্যমে লিখে নেয়া হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল রোববার স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহযোগিতায় দিনভর তাদের আটক রেখে ইউপি সদস্য এসব ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগি ওই পরিবারের। মারধরের শিকার গোলাম কিবরিয়া, তার স্ত্রী পেয়ারা খাতুন ও ছেলে মো. জুয়েল বর্তমানে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।  

ভুক্তভোগি গোলাম কিবরিয়া জানান, গত এক থেকে দেড় মাস আগে তার ছোট ছেলের সঙ্গে স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ড মেম্বরের মেয়ের বিয়ে হয়। হঠাৎ গতকাল রোববার মেম্বর ফোনে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে বলে, তার ছেলে নাকি আরো একটা বিয়ে করেছে। 

এ কথায় কিবরিয়া প্রতিবাদ করলে মেম্বর ও তার ছেলেসহ তাকে বেদম মারধর করে। এক পর্যায়ে কিবরিয়ার বড় ছেলে তার স্ত্রীকেও মারধর করে এবং বাড়িতে আটক করে রাখে। পরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাব উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গণিকে ডেকে এনে পুনরায় মারধর করে এবং জোরপূর্বক স্ট্যাম্পে কিবরিয়ার বসত-ভিটেসহ ২০ শতাংশ জমি আমমোক্তারের মাধ্যমে লিখে নেয়।

ভুক্তভোগি পরিবার চিকিৎসা নেয়ার চেষ্টা করলে তাদেরকে স্থানীয় বাদামতলী এলাকায় নিয়ে আটকে রাখে। খবর পেয়ে গণমাধ্যমকর্মীরা মেম্বর ও আওয়ামী লীগ নেতাদের মুঠোফোন যোগাযোগ করলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।  

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ভুক্তভোগিকে থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি। 

আই/আরকে

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি