ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

মঙ্গলসূত্র আর সিঁদুর পরা নিয়ে মুখ খুললেন নুসরাত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৪৮ ১৫ অক্টোবর ২০১৯

টালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা নুসরাত জাহান। অভিনেত্রী এখন নেত্রী। তবে সিনেমা, সাংসদের দায়িত্ব এবং স্বামী নিখিলের পছন্দের রান্না— সবই সামলাচ্ছেন তিনি। সবকিছু ঠিকঠাক সামলে গেলেও ভক্তদের কাছে বেশ সমালোচিত হচ্ছেন অভিনেত্রী। কারণ একটাই মুসলিম হয়েও কেনো তিনি সিঁদুর, অঞ্জলি, মঙ্গলসূত্র দিয়ে সামনে আসছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক ট্রোলিং এর শিকার হচ্ছেন নায়িকা। ট্রোল হওয়া যেন তার নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। যদিও এ বিষয়টি নিয়ে নুসরাত খুব একটা চিন্তিত নন।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এই মন্তব্য নিয়ে আর মাথা ঘামাই না। কিছু মানুষ আমার নাম নিয়ে মিডিয়ার প্রচারের মুখ হয়ে থাকতে চান। তারা থাকুন। আমার কী বা করার আছে?’

নুসরাত এখন অনেকটা পরিণত। রাজনীতি, প্রেম, সংসার, সিনেমা, সমাজ— ভিন্ন ভিন্ন ক্ষেত্রে ভারসাম্য রেখেই চলছেন তিনি।

নুসরাতের কথায়, ‘ধর্মের নামে মানুষে মানুষে বিভাজন আল্লাহ চাইতেই পারেন না। আমি বিশ্বাস করতে শুরু করেছি সমাজের যা কিছু ওপর থেকে চাপানো, তৈরি করা আচার-নীতি, আমি তার বিরুদ্ধে লড়াই করব। এটা আমার জীবনের অন্যতম লক্ষ্য। আমি মানুষের প্রতি ভালোবাসা আর বিশ্বাসে অনড় থাকব। এটাই আমার লড়াই!’
তিনি আরও বলেন, ‘আমি একজন মানুষ। আমি আমার ভালোবাসার মানুষকে শুভ শারদীয়া বলতে পারব না?’

বিস্মিত নুসরাত তির্যক মন্তব্য আর আক্রমণ নিয়ে এখন ভাবেন না। বরং তিনি মনে করেন, এই তো নিখিল এ বারের পূজায় প্রথম ঢাক বাজালো। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজয়ার প্রণাম করতে গিয়ে তারবোনের হাতে তৈরি নারকেল নাড়ু খেলো। এর আগে সে কোনও দিন নারিকেলের নাড়ু খায়নি! এটাই আমার দুর্গাপূজা!’
উচ্ছ্বসিত নুসরাত বলেন, ‘যে উৎসব সকলের, সেই উৎসব থেকে নিজেকে আলাদা করবেন কী করে?’

নিখিল সম্পর্কে নুসরাত আরও বলেন, ‘নিখিলের পোশাক নিয়ে যেমন আমার ভাবনা থাকে। নিখিলও মাঝে মাঝে চমকে দিয়ে বলে, ‘আরে চুল বাঁধছ কেন? চুলটা খুলে রাখ।’

অভিনেত্রী বলেন, ‘আগে তো ট্রোলেই যা খুশি বলা হত। এখন থ্রেট কল আসছে। তবে ওই যে বললাম, ভেতরের বিশ্বাস। যে কোনও জায়গা থেকে মানুষ ঈশ্বরের আরাধনা করতে পারে। সেটা বাড়ি হতে পারে। মন্দির হতে পারে। মসজিদ হতে পারে। সর্বশক্তিমানের সৃষ্টি যে মানুষ, আমি সেই মানুষকে ভালোবাসি। তাই ঈশ্বরও আমায় ভালোবাসবেন।’

মোট কথা লোকে যে যাই বলুক- এ ভাবেই চলছেন নবদম্পতি। এই চলায় ধর্মের কোন বাধা নয়, বরং বেজে উঠেছে মিলনের সুর।

সূত্র : আনন্দবাজার
এসএ/

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি