ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ৫ ১৪২৭

মাধবকুন্ডে বাড়ছে পর্যটক (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৫:৩১, ২১ আগস্ট ২০১৯

রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হওয়ায় মাধবকু- জলপ্রপাতে বাড়ছে পর্যটকের সংখ্যা। দু’শ ফুট উপর থেকে পাথরের গায়ে আছড়ে পড়া জলরাশী পর্যটকদের মনে  প্রশান্তি আনে। এ কারণে প্রতিদিন এখানে আসেন শত শত মানুষ। 
মৌলভীবাজারের বড়লেখার পাথারিয়া পাহাড়ের এই জলপ্রপাত প্রকৃতিক। এর সৃষ্টি রহস্য নিয়ে আছে নানা জনশ্রুতি।  সবচেয়ে জনপ্রিয় আখ্যান হলো, প্রায় ৫শ’ বছর আগে ওই কুন্ডের পাশে মাটির নিচে মহাদেবের ধ্যানে মগ্ন ছিলেন এক মুনি। সে সময় শ্রীহট্টের রাজা সেখানে শিকারে গেলে ওই কুন্ডের পাশে রাজার জন্য বিশ্রামাগার তৈরী করার সময় মাটির নিচে ধ্যানরতবস্থায় ওই মুনিকে পাওয়া যায়।
সে সময় রাজা মুনির শরণাপন্ন হলে মুনি রাজাকে তার পাশে আশ্রয়দেন এবং মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশী তিথিতে ওই কুন্ডে মুনিকে বিসর্জনের নির্দেশ দেন। নির্দেশমতো মুনিকে যখন কুন্ডে নিক্ষেপ করা হয় তখন চার পাশ থেকে “মাধব” “মাধব”  বলে দৈব ধ্বনি হয় । এর পর থেকে এর নাম হয় মাধবকুন্ড।  
চার দিকে পাথুরে গুহা, প্রায় ২শত ফুট উপর থেকে গড়িয়ে পড়া জলরাশির শব্দ, প্রাকৃতিক পথ, আর খাসিয়া পুঞ্জির সুনসান জীবন। সব মিলিয়ে এক অপার্থিব বোধে আক্রান্ত কওে পর্যটকদের। এখানে রয়েছে পর্যটন পুলিশের সার্বক্ষনিক টহল।
মাধবকুন্ডের উন্নয়নে পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বন পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী ।
পর্যটকদের কথা বিবেচনা করে মাধবকুন্ডের এক কিলোমিটার পায়ে হাটার পথে ক্যাবল-কার স্থাপন, সড়কের পাশে আরও কিছু বেঞ্চ এবং দুটি নতুন ওয়াচ টাওয়ার নির্মানের দাবী স্থানীয় লোকজনের।


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি