ঢাকা, শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রাজশাহীতে যুবলীগ কর্মী হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৭

রাজশাহী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৭:৫০ ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৭:৫২ ১৪ নভেম্বর ২০১৯

রাজশাহীতে পশ্চিমাঞ্চল রেলের টেন্ডার নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে যুবলীগ কর্মী সানোয়ার হোসেন রাসেল (৩০) নিহতের ঘটনায় পুলিশ ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে। 

বুধবার (১৩ নভেম্বর) দিবাগত রাতে নগরীর শিরোইল কলোনী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

একই রাতে নগরীর চন্দ্রিমা থানায় রাসেলের ভাই মনোয়ার হোসেন রনি বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে ২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চন্দ্রিমা থানার ওসি গোলাম মোস্তফা।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নগরে শিরোইল কলোনী এলাকার বুলবুল হোসেনের ছেলে আসামী রাব্বি (২৫), জয়নালের ছেলে বাপ্পি (১৯), নূর মোহাম্মদ সরদারের ছেলে শাহিন (২৪), মানিকের ছেলে শুভ (২১), বাবু ইসলামের ছেলে চঞ্চল (১৯), জালাল উদ্দিনের ছেলে কলাম উদ্দিন (১৯), আবুল কালাম চৌধুরীর ছেলে মোজাহিদুল ইসলাম অভ্র (১৯)।

ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন, বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। বুধবার রাতে নগরীর শিরোইল কলোনি এলাকায় অভিযান তাদের গ্রেফতার হয়। তারা সবাই সৈনিক লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানান তিনি। 

তিনি বলেন, রেল ভবনের টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নগরীর বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নিহত রাসেলের ভাই আনোয়ার হোসেন রাজার সঙ্গে মহানগর সৈনিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন আলীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।

দুপুরে রেল ভবনের সামনে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় রাসেলসহ পাঁচজন আহত হন। পরে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সন্ধ্যা ৬টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাসেল মারা যান।

নিহত রাসেল রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সদস্য। তিনি নগরীর বাস্তুহারা এলাকার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে। সংঘর্ষের সময় রাসেলের পেটে ছুরিকাঘাত করা হয়েছিল বলে জানান ওসি গোলাম মোস্তফা। 

এআই/এসি
 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি