ঢাকা, রবিবার   ১৮ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

শিশু সজিবের ছিন্ন মস্তক নিয়ে যা বলল পুলিশ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২১:১৭ ১৯ জুলাই ২০১৯

নেত্রকোনায় শিশু সজিবের মাথা কাটা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা পুলিশ। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের নিউটাউন অনন্ত পুকুরপাড় এলাকায় শিশু সজিবের কাটা মাথা ব্যাগে করে নিয়ে যাওয়ার সময় রবিন নামে এক যুবককে আটক করে জনতা। এসময় গণপিটুনিতে নিহত হয় রবিন। সে মাদকাসক্ত ছিল। তার বাড়ী পৌর শহরের কাটলী এলাকায়। রবিন ছিলো পেশায় একজন রিক্সা চালক।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, ধারণা করা হচ্ছে- রবিনের মনের পুরনো কোন জেদ বা বিকৃত মানসিকতা থেকেই সজিবের সাথে নির্মম ও বর্বরোচিত এই ঘটনা ঘটেছে। পারিবারিক দ্বন্দ্বের জেরেও এই ঘটনা ঘটতে পারে। এটি শুধুই একটি হত্যাকাণ্ড। এর সাথে ছেলে ধরা বা পদ্মা সেতু গুজবের কোন সম্পর্ক নেই। 

প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সাংবাদিকরা ঘটনার বাস্তবচিত্র তুলে ধরলেও উক্ত হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কতিপয় লোক ছেলে-ধরা ও পদ্মা সেতুতে ছেলে শিশুদের মাথা দেয়ার কথা বলে যে গুজব ছড়াচ্ছে, তা আদৌ সত্য নয়। নিতান্তই অসত্য ও বিভ্রান্তিমূলক।  

তিনি সাংবাদিকদের মাধ্যমে এ ধরণের গুজব না ছড়ানোর জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। পাশাপাশি সকল অভিভাবকদেরকে আতংকিত না হওয়ারও পরামর্শ প্রদান করেন।

এদিকে এই ঘটনায় নেত্রকোনা মডেল থানায় দুটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
 
এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) এস এম আশরাফুল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ফকরুজ্জামান জুয়েল, প্রবীণ সাংবাদিক বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দার জাহান চৌধুরী, জেলা প্রেসক্লাব সম্পাদক শ্যামলেন্দু পালসহ জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন। 

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের কাটলি এলাকায় শিশু সজিবের ছিন্ন মস্তক ব্যাগে করে নিয়ে বারহাট্রা সড়কের অনন্তপুকুর পাড়ে অবস্থান নেয় রবিন নামে এক যুবক। স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পেরে যুবকের পিছু নেয় এবং ব্যাগে কি আছে জানতে চায়। 

এক পর্যায়ে তাঁর ব্যাগ ধরে টান দিলে ব্যাগ থেকে ছিন্ন মস্তক বের হয়ে আসলে রবিনকে ধরে গণপিটুনি দেয় স্থানীয়রা। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিশুর ছিন্ন মস্তক ও যুবকের লাশ উদ্ধার করে।

এনএস/এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি