ঢাকা, রবিবার   ১৩ জুন ২০২১, || জ্যৈষ্ঠ ২৯ ১৪২৮

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দেশকে অন্ধকার থেকে রক্ষা করেছে: রাদওয়ান মুজিব

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:৪৬, ১৮ মে ২০২১ | আপডেট: ০৭:৪৮, ১৮ মে ২০২১

রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক

রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশকে অন্ধকার থেকে রক্ষা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতির পিতার দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ৪০ বছর পূর্তির ঐতিহাসিক এই দিনকে স্মরণ করে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সোমবার (১৭ মে) নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক পোস্টে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক লেখেন, ‘৪০ বছর আগের এই দিনে, আপনি বাংলাদেশকে অন্ধকার যুগ থেকে রক্ষা করেছেন এবং আপনার আলোয় আলোকিত হয়ে দেশ গণতন্ত্র ও উন্নয়ন দেখেছে। মানুষ মানসম্মত জীবন ব্যবস্থা অর্জন করেছে। এখনো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে আমাদের। কিন্তু এর কিছুই সম্ভব হতো না, যদিনা আপনি ফিরে আসতেন। ধন্যবাদ আপনাকে।’

এই পোস্টের সঙ্গে যুক্ত ছিলো ৪০ বছর আগে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের দিন শেখ হাসিনার ছবিসহ ছাপানো একটি পোস্টার, যেখানে লেখা ছিলো- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিপ্লবী সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ১৭ মে রোববার বিকাল ৩টায়, ঢাকা বিমান বন্দরে অভ্যর্থনা। আজ সিআরআই এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা বলা হয়।

জাতির পিতার পরিবারের বেঁচে থাকা সদস্য হিসেবে ৬ বছর লড়াই শেষে দেশে ফেরার সুযোগ পান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বিদেশে থাকা অবস্থায় পরিবারের সকল সদস্যের মৃত্যুর খবর পান শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা। বিদেশে থাকার কারণে বেঁচে যাওয়া বঙ্গবন্ধু পরিবারের এই দুই সদস্য জানতে পারেন কিছু বিপথগামী সেনা সদস্য তাদের বাস ভবনে হামলা করে পরিবারের সকলকে হত্যা করেছে।

বাবার মৃত্যুর পর জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের আগ পর্যন্ত যে কষ্টে জীবন যাপন করেছেন তা স্পষ্ট ফুটে উঠেছে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র অঙ্গণে সমাদৃত ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’ ডকুড্রামায়, যার প্রযোজক রাদওয়ান মুজিব। ৭০ মিনিটের এই ডকুড্রামায় বঙ্গবন্ধু পরিবারের এই দুই বোনের মুখ থেকে তাদের পথ চলার গল্প শুনেছে সাধারণ দর্শক, যেখানে বাংলাদেশের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ সকল ঘটনা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অলাভজনক গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)-এর ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। এই গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন উদ্যোগের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি হলো- তরুণদের উপযোগী করে বাংলাদেশের ইতিহাস উপস্থাপন করা।

আর সিআরআই-এর তেমনি এক উদ্যোগ ‘মুজিব’ গ্রাফিক নভেল। বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে যার মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে জানতে শিশুদের উপযোগী করে ছবি ও ছোট ছোট লেখায় ইতিহাসকে উপস্থাপন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইয়ের ওপর ভিত্তি করে এই গ্রাফিক নভেলটি তৈরি।

এ ছাড়াও দেশের নীতি নির্ধারকদের সঙ্গে তরুণদের চাওয়া-পাওয়ার সংযুক্তি ঘটাতে সিআরআই-এর আরেকটি উদ্যোগের নাম ইয়াং বাংলা। বিগত বছরগুলোতে সিআরআই এর এই প্রতিষ্ঠানটি দেশে তরুণদের শীর্ষ প্লাটফর্ম হিসেবে স্থান করে নিয়েছে।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি