ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, || আশ্বিন ৯ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

সুনামগঞ্জে বিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২৫ আটক ১০

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৯:৪৭ ২৩ জানুয়ারি ২০২০

সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় একটি জলমহালকে কেন্দ্র করে পূর্ববিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২৫ জন আহত হয়েছেন। এর কিছুক্ষণ পরেই প্রতিপক্ষকে ফাসাঁতে গিয়ে এক নারীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ১০জনকে পুলিশ আটক করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় গ্রামের মাঠে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম বীরগাওঁ ইউনিয়নের উপ্তিরপাড় গ্রামের পাশে মনুকাটা জলমহাল নিয়ে মো. আলী আহমদ ও ফারুক আহমদ গংদের সাথে মনুকাটা জলমহাল নিয়ে একই গ্রামের মো. আমির আলী ও হযরত আলী গংদের বিরোধ চলছিল। বেশ কয়েকমাস ধরেই উভয়পক্ষের মধ্যে টান টান উত্তেজনা চলে আসছিল। এই বিরোধকে কেন্দ্র করেই এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। এতে উভয়পক্ষের ২৫ জন আহত হন। 

আলী আহমদের পক্ষে আহতরা হলেন আলী পাশা (৩০)। সে উপ্তিরপাড় গ্রামের মোঃ উস্তার আলীর ছেলে, মাছিম উল্ল্যার ছেলে মো. ফয়জুল হক (৩২), মৃত আব্দুল বারিকের ছেলে মো. ফরিদ মিয়া (৩৫)।
 
অপরদিকে প্রতিপক্ষের মধ্যে আহতরা হলেন মো. হযরত আলী (৪০)। তিনি একই গ্রামের মৃত শওকত আলীর ছেলে, তার সহোদর মো. ছায়েদ আলী (৪৫) ও আমির আলী (৫০) সহ আরো ১৩ জন। বাকি আহতদের তাৎক্ষণিক নাম পরিচয় জানা যায়নি। এদের মধ্যে হযরত আলীর অবস্থা আশংঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সে রাস্তায় কয়েকবার বমি করেছে বলে জানা যায়।
 
এদিকে এই সংঘর্ষের ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এবং প্রতিপক্ষের লোকজনকে ফাঁসাতে গিয়ে হযরত আলীর পক্ষের মো. কদর আলী তার আপন বড়ভাই ওসমানী আলীর স্ত্রী লতিফা বেগমকে শরীরের বিভিন্ন অংশে ছরি দিয়ে কুপিয়ে করে রক্তাক্ত করে। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক কদর আলীকে আটক করে।
  
এ ব্যাপারে আলী আহমদ এর পক্ষের মো. আলী আমজদ জানান, মো. আমির আলী ও হযরত আলী এই দুই সহোদর গ্রামের পাশে মনুকাটা জলমহালটি সরকার থেকে বৈধভাবে লীজ না নিয়ে গত ১৩ বছর ধরে তারা অবৈধভাবে ফিসিং করে আসছিল। এই অবৈধ ফিসিংয়ে গ্রামবাসী বার বার বাধা দিলেও তাদের এই অর্থের জোরের কাছে লোকজন ছিলেন অসহায়। 

অপরদিকে প্রতিপক্ষ আমির আলী জানান, এই আলী আহমদ ও ফারুক মিয়া গংরা পুরো গ্রামবাসীকে একত্রিত করে আমাদের বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে হুমকি দামকী দিয়ে আসছিল। আমরা প্রায় সময়ই ঘর থেকে বের হতে পারছিলাম না। তিনি ১৩ বছর ধরে বিলটি অবৈধভাবে লীজ প্রসঙ্গে বলেন, এই জিলমহাল অবৈধভাবে ফিসিং করা হয়নি সরকার থেকে লীজ নিয়েই ফিসিং করা হয়েছে।  

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হারুণ অর রশিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান। এ ঘটনায় পুলিশ ১০ জনকে আটক করেছে তবে পরিবেশ এখন শান্ত রয়েছে।

কেআই/এসি
 
 


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি