ঢাকা, রবিবার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, || পৌষ ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

হলি আর্টিজেন মামলার রায় ২৭ নভেম্বর

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৫৫ ১৭ নভেম্বর ২০১৯

রাজধানীর গুলশানে আলোচিত হলি আর্টিজেন রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায় আগামী ২৭ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ রোববার (১৭ নভেম্বর) দুপুরে সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে এ রায়ের দিন ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ৬ নভেম্বর এ মামলায় আসামি ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শুরু হয়ে আজ রোববার তা শেষ হয়।

চাঞ্চল্যকর এ মামলায় ২১১ জন সাক্ষীর মধ্যে ঢাকার মেট্রোপলিটনের দুই ম্যাজিস্ট্রেটসহ সবমিলে ১১৩ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়।

মামলার আসামিরা হলেন, হামলার মূল সমন্বয়ক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক তামিম চৌধুরীর সহযোগী আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু জাররা ওরফে রাশ, ঘটনায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী নব্য জেএমবি নেতা হাদিসুর রহমান সাগর, নব্য জেএমবির অস্ত্র ও বিস্ফোরক শাখার প্রধান মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, জঙ্গি রাকিবুল হাসান রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব ওরফে রাজীব গান্ধী, হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী আব্দুস সবুর খান (হাসান) ওরফে সোহেল মাহফুজ, শরিফুল ইসলাম ও মামুনুর রশিদ। তাদের সবাই কারাগারে রয়েছে।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তার সুপারিশে বিভিন্ন স্থানে জঙ্গিবাদ বিরোধী অভিযানে নিহত ১৩ আসামিকে মামলা থেকে অব্যহতি দেয়া হয়।

২০১৬ সালের ১ জুলাই হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিদের হামলায় ১৭ বিদেশিসহ ২০ জন নিহত হন। নিহতদের মধ্যে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন রয়েছেন।

পরে কমান্ডো অভিযানে পাঁচ জঙ্গি নিহত হয়। ওই ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে গুলশান থানায় একটি মামলা দায়ের করে পুলিশ।

তদন্ত শেষে আটজনকে অভিযুক্ত করে ২০১৮ সালের ২৩ জুলাই আদালতে চার্জশিট জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পরিদর্শক হুমায়ুন কবীর। ২৬ নভেম্বর একই আদালতে আলোচিত এ মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু হয়। 

এআই/এসি

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি