ঢাকা, সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪

ইতালিতে আরও ৮১৪ জনের প্রাণ নিল করোনা 

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৫৪, ৫ ডিসেম্বর ২০২০

প্রাণঘাতি করোনা দ্বিতীয় দফা আঘাত হানার পর একদিন আগে রেকর্ড মৃত্যু দেখেছে ইতালি। আজও ইউরোপের দেশটিতে ৮১৪ জনের প্রাণ নিয়েছে করোনাভাইরাস। থেমে নেই সংক্রমণও। নতুন করে ২৪ হাজারের বেশি মানুষের শরীরে চিহ্নিত হয়েছে ভাইরাসটি। এমতাবস্থায় নতুন করে বিধি নিষেধ আরোপ করেছে দেশটি।  

ইতালির স্বাস্থ্য বিভাগের বরাত দিয়ে বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ হাজার ৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লাখ ৮৮ হাজার ৯৩৯ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছেন ৮১৪ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৮ হাজার ৮৫২ জনে ঠেকেছে। যদিও অর্ধেক রোগী সুস্থতা লাভ করেছেন। 

এদিকে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্বিতীয় দফায় করোনা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে দেশটিতে। এমতাবস্থায় গত ৬ নভেম্বর জারি করা লকডাউন আবারও বাড়ানো হয়েছে। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে আরও কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। 

ক্রিসমাস ও নববর্ষের মধ্যে সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কায় গত বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) নতুন বিধি নিধেষ আরোপ করা হয়। মধ্যরাতে আগের মতোই চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।  

ইতালির প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ্পে কন্তে বলেছেন, ‘নতুন বিধি নিষেধ আগামী ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। এ সময় কেবলমাত্র ২০ অঞ্চলে চিকিৎসা ও জরুরি সেবা চালু থাকবে।’

এর আগে প্রথম ঢেউয়ে গত মার্চে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেখেছিল ইউরোপের দেশটি। নতুন করে তাণ্ডব বাড়ায় ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে ব্রিটেনের পরেই সর্বোচ্চ প্রাণহানি এখন ইতালিতে। দেশটিতে করোনায় প্রাণ হারাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই উত্তরাঞ্চলীয় শহর লম্বার্ডিয়ার। 

এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। এখন পর্যন্ত সংক্রমণে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ২৩ হাজার ৫৬১ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন ১২ হাজার ১২৬ জন। 

একই সঙ্গে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৮৪ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ কোটি ৬২ লাখ ১১ হাজার ৪৭৯ জনে দাঁড়িয়েছে। যদিও সুস্থতা লাভ করেছেন ৪ কোটি ৫৭ লাখ ৯৮ হাজার রোগী। 
এআই/এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি