ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২

পাবনায় সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক লাঞ্ছিত

পাবনা প্রতিনিধি 

প্রকাশিত : ১৬:০২, ১৯ মে ২০২০ | আপডেট: ১৬:০৩, ১৯ মে ২০২০

ক্যাপশন: অভিযুক্ত সৈকত, মিলটন ও মামুন (বাম পাশ থেকে)

ক্যাপশন: অভিযুক্ত সৈকত, মিলটন ও মামুন (বাম পাশ থেকে)

পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলায় মাদক ও জুয়ার সংবাদ প্রকাশ করায় ‘দৈনিক মানবজমিন’র স্থানীয় প্রতিনিধি শাহিবুল ইসলাম পিপুলকে লাঞ্ছিত করেছে কয়েকজন বিপথগামী উশৃখল যুবক। তারা জুয়ারী ও মাদক চক্রেরও সদস্য। 

সোমবার (১৮ মে) রাত সোয়া ১০টার দিকে উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের বিশিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। 

ঘটনার পরে ভাঙ্গুড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই সাংবাদিক। তিনি উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য গোলজার হোসেনের ছেলে। অভিযুক্তদের মধ্যে কয়েকজন সরকার দলীয় ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন।

লিখিত অভিযোগ ও সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলোর পাথরঘাটা গ্রামের বাসিন্দারা গত  ৭ এপ্রিল গ্রামের একটি বাগানে জুয়া খেলার সময় সাতজন জুয়ারুকে আটক করে। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য জিয়াউল হক জুয়েল তাদের অভিভাবকদের সাথে কথা বলে নিজ জিম্মায় নিয়ে ছেড়ে দেয়। 

এ বিষয়ে সেই সময় বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। পরে ২০ এপ্রিল তারা পুনরায় গ্রামের মাঠে জুয়া খেলা শুরু করলে গ্রামের লোকজন চেয়ারম্যান ও গ্রাম পুলিশের সহায়তায় তাদের আটক করে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য ৪ জুয়ারুকে আট হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেয়। 

এ ঘটনায় দৈনিক মানজমিনে ‘ভাঙ্গুড়ায় করোনাকালে জুয়ার থাবা’ শিরোনামে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর থেকেই ওই জুয়ারু চক্রের সদস্যরা সাংবাদিক শাহিবুল ইসলাম পিপুলকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। 

গত সোমবার রাতে বাড়ি ফেরার পথে সাংবাদিক পিপুলকে পাথরঘাটা গ্রামের জুয়ারু চক্রের সদস্য মাহমুদ আলীর ছেলে সৈকত (২০), আবু সাঈদের ছেলে মিলটন আহমেদ (২৫), মনসুর আলীর ছেলে মামুন (২২), শহীদ আলীর ছেলে শরীফ (২০), হামেদ আলীর ছেলে মাহফুজ (২৫), কোরবান আলীর ছেলে হাসান (২৫) পাশ্ববর্তী গ্রাম কাশীপুরের আজাদ আলীর ছেলে ডলার (২৫) সহ ১০/১২ জন পথ আটকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। ওই রাতেই সাংবাদিক পিপুল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযুক্তদের মধ্যে সৈকত ও মিল্টন ছাত্রলীগের সাথে জড়িত। বাকিরা সবাই ভাঙ্গুড়া উপজেলা চেয়ারম্যান বাকি বিল্লাহর ঘনিষ্ঠজন ও অনুসারী বলে দাবি করেছেন স্থানীয়রা। মূলত তার ছত্র ছাঁয়াতেইে এসকল যুবক এলাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘জুয়ারু ও মাদকসেবীদের ধরতে থানা পুলিশ তৎপর রয়েছে। এ অবস্থায় বিপথগামী যুবকগুলো জুয়া খেলে সামাজিক অবক্ষয় ঘটাচ্ছে। সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করেছে। এটা অনেক বড় ধরনের অপরাধ। আমরা অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান শুরু করেছি। এছাড়া দ্রুত বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এআই//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি