ঢাকা, সোমবার   ১৭ জুন ২০২৪

আলোচিত অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

ফেনী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:১৪, ২১ নভেম্বর ২০২১

মৃত্যুদণ্ডের আসামি ইয়াছিনকে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ

মৃত্যুদণ্ডের আসামি ইয়াছিনকে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ

আলোচিত ফেনীর ফাজিলপুরে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় বৈদ্যুতিক শক দিয়ে গৃহবধূ শিরিন হত্যা মামলায় স্বামী ইয়াছিনের মৃত্যুদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।

রোববার দুপুর সোয়া ১২টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ড. বেগম জেবুন্নেছা এই রায় ঘোষণা করেন। এর আগে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।

এসময় আদালত জানান, আসামি চাইলে আগামী ৭ দিনের মধ্যে উচ্চআদালতে আপিল করতে পারবেন।
 
আদালত সূত্র জানায়, পরিবারিক কলহের জের ধরে ২০১৯ সালের ৫ মার্চ রাতে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় শিরীনকে বৈদ্যুতিক শক দিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে স্বামী ইয়াছিন। ঘটনার দুদিন পর ৭ মার্চ খুনের অভিযোগ এনে শিরিনের মা রেজিয়া বেগম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। 

ওইদিনই বাড়ি থেকে গ্রেফতারের পর অভিযুক্ত ইয়াছিন ৮ মার্চ ধ্রুব জ্যোতি পালের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আবু তাহের চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি ইয়াছিনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

পরে ১০ নভেম্বর মামলার চার্জ গঠন করা হয়। এ মামলায় ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে।

এই রায়ে খুশি রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হাফেজ আহম্মদ ও বাদী পক্ষ। আর কেউ যেনো এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটানোর সাহস না পায় সেজন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়েছে বলে জানান তারা। 

তবে আসামি পক্ষের আইনজীবী বলেন, রায়ে ন্যায়বিচার পাওয়া যায়নি। 

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর সদর উপজেলার ফাজিলপুর এলাকার মো. ইয়াছিনের সঙ্গে শিরীন আক্তারের বিয়ে হয়।

এএইচ/


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি