ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪

টাঙ্গাইলে অপহরণকারী চক্রের ৭ সদস্য আটক, অপহৃত উদ্ধার

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:৫২, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

টাঙ্গাইলে সংঙ্গবদ্ধ অপহরণকারী চক্রের ৭ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। এসময়ে তাদের কাছ থেকে অপহৃতকে একজনকে উদ্ধার করেছে। 

সোমবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২, সিপিসি-৩, টাঙ্গাইলের কোম্পানী কমান্ডার মোহাম্মদ আনিসুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি আভিযানিক দল জেলার সদর থানার বাজিতপুর হাটখোলার নির্মাণ পয়েন্টে বিকাশের দোকান হতে ৩ জন ও সাহাপাড়ার দিলীপ অটো রাইস মিলের বাউন্ডারী থেকে ৪ আসামিকে আটক করে। 

এ সময়ে ২টি সুইচ গিয়ার চাকু, ১টি রশি, ১টি গামছা, ৪টি মোবাইল, ৪টি সিমকার্ড, ২টি হাত ঘড়ি, ৩টি মোটরসাইকেলসহ নগদ ১১ হাজার টাকা জব্দ করা হয়। 

ধৃত আসামিরা হলেন জামিল হোসেন সাগর (২৪), শাকিল আহম্মেদ হৃদয় (২৭), লাবিব খান (১৮), রাকিবুল ইসলাম (২২), হৃদয় আহম্মেদ (২২), বাধন (১৯) ও রাব্বি খান (১৮)।

উদ্ধারকৃত অপহৃত মোঃ আঃ রহিম (৪০) একজন রাজমিস্ত্রির শ্রমিক। উক্ত শ্রমিক (ভিকটিম) কাজের সন্ধানে টাঙ্গাইলের নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আসলে একজন অপরিচিত ব্যক্তি রাজমিস্ত্রির কাজের কথা বলে পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের একটি অপরিচিত বাসায় নিয়ে যায়। উক্ত বাসায় পূর্ব থেকে অবস্থান করা আসামিরা সবাই মিলে ভিকটিমকে ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ মারধোর শুরু করে এবং তার কাছে থাকা নগদ ৩ হাজার টাকা অপহরণকারীরা ছিনিয়ে নেয়। 

আরও ১ লাখ ২০ হাজার টাকা বাড়ি থেকে এনে দেওয়ার জন্য বলে। অন্যথায় তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় তারা। তারপর ভিকটিমকে মোটরসাইকেলযোগে উক্ত স্থান হতে অন্যত্র স্থানে নিয়ে যায় ধৃত আসামিরা। এসময়ে দুটি বিকাশ নাম্বর দিয়ে টাকা আনার জন্য ভিকটিমের বাড়িতে ফোন করতে বলে। 

অতঃপর ভিকটিমের ফোন কল পেয়ে তার আপন ছোটভাই আঃ রাজ্জাক র‌্যাব-১২ বরাবর অভিযোগ দায়ের করলে নিজস্ব তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামিদের শনাক্ত করে র‌্যাব। 

পরে বাজিতপুর সাহাপাড়ার দিলীপ অটো রাইস মিলের বাউন্ডারীর ভিতরে আমগাছের নিচ হতে ভিকটিমকে একটি নাইলনের রশি দিয়ে হাত বাধা ও গামছা দিয়ে চোখ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে র‌্যাব। 

এই বিষয়ে ভিকটিম বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন।

এএইচ


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি