ঢাকা, রবিবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, || ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭

ইতালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের ঘোষণা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:২৭, ২৬ জানুয়ারি ২০২১

উরোপের দেশ ইতালিতে করোনা তাণ্ডবের মাঝেই চলছে রাজনৈতিক অস্থিরতা। যা গড়িয়েছে সরকার প্রধানের সরে দাঁড়ানো পর্যন্ত। করোনায় অর্থনীতিতে ধস ও রাজনৈতিক বিবাদের মধ্যেই আজ পদত্যাগ করছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী গিসেপে কন্তে।  

এক বিবৃতিতে কন্তে ঘোষণা দেন, তিনি মঙ্গলবার (আজ) পদত্যাগ করবেন। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী, দেশটিতে কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা রাজনৈতিক অস্থিরতার পর নতুন সরকার গঠনের চেষ্টা চলছে। 

স্থানীয় সময় আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী কন্তে। তার কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, তিনি ওই বৈঠকে তার নিজের ইচ্ছার কথা মন্ত্রীদের কাছে ব্যক্ত করবেন। এরপরেই হয়তো তিনি প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাত্তারেলার কার্যালয়ে তার পদত্যাগপত্র জমা দিবেন। 

এবিসি নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলমান মহামারি করোনায় ইতালিজুড়ে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার বিরুদ্ধে লড়াই করতে কন্তে হয়তো নতুন সরকার গঠনের পরামর্শ চাইতে পারেন। ইতালিতে করোনা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৮৬ হাজার মানুষের প্রাণঘানি ঘটেছে। ভেঙে পড়েছে দেশটির অর্থনীতি। গত বছরের শেষের দিকে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হলেও স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করায় ফের ভয়াবহ তাণ্ডব চালাতে শুরু করে ভাইরাসটি। যা এখন পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। 

গত ১৩ জানুয়ারি সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাত্তিও রেনজি তার ইটালিয়া ভিভা পার্টিকে দল থেকে প্রত্যাহারের পর থেকেই ক্ষমতাসীন জোট ভেঙে পড়ে। গত সপ্তাহে পার্লামেন্টের আস্থা ভোটে কোনমতে টিকে গেছেন কন্তে। কিন্তু সিনেটের উচ্চ কক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ফলে তার সরকার বেশ দুর্বল হয়ে পড়েছে।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে পদত্যাগ করেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাত্তিও রেনজি। সংবিধান সংস্কারের পরিকল্পনা করেছিলেন রেনজি। ওই পরিকল্পনার ওপর গণভোটে শোচনীয় পরাজয় দেখে আকস্মিক পদত্যাগ করেন তিনি। মাত্র মাত্র আড়াই বছর ক্ষমতায় থাকার পর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেন রেনজি।

করোনার কারণে শুরু থেকেই ইতালিতে ভয়াবহ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। এক বছরের বেশি সময় আগে চীনে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর পরই ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে সর্বপ্রথম করোনা হানা দেয় ইতালিতে। ক্রমেই যা মরণঘাতি রূপে ছড়িয়ে পড়ে। অল্প সময়েই মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয় দেশটি। 

এদিকে বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ইতালিতে সাড়ে ৮ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৪ লাখ ৭৫ হাজার ৩৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণহানি ঘটেছে ৪২০ জনের। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ৮৫ হাজার ৮৮১ জনে ঠেকেছে। যদিও সুস্থতা লাভ করেছেন দুই-তৃতীয়াংশ রোগী।
এআই/এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি