ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

কাউন্সিলর রাজীবকে ধরতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় র‌্যাব

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:২৮ ১৯ অক্টোবর ২০১৯

চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে র‌্যাব। বাড়িটিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের (মোহাম্মাদপুর) কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব রয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শনিবার (১৯ অক্টোবর) রাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার 8 নং রোডের ৪০৪ নম্বর বাসাটি ঘিরে রাখার তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব সদর দফতরের মেজর রইসুল ইসলাম মনি।

ধারণা করা হচ্ছে, ওই বাড়িতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব রয়েছেন। তাকে গ্রেফতার করতে সেখানে বাড়িটি ঘিরে রেখেছে র‌্যাব।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান বলেন, ‘চলমান ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাড়িটি ঘিরে রাখা হযেছে। এটি চার নম্বর সড়কের ৪০৪ নম্বর বাড়ি। ধারণা করা হচ্ছে, ওই বাড়িতে মোহাম্মদপুরের কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীব রয়েছেন।’ রাজীব ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে রাজধানীতে ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের পর গডফাদারসহ ১৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন সম্রাট, যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়া, যুবলীগ নেতা জি কে শামীমসহ অনেকের বাসা ও কার্যালয়ে তল্লাসি করে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করা হয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন ক্যাসিনোয় অভিযান চালিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২০১ জনকে আর্থিক জরিমানাসহ বিভিন্ন মেয়োদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের মধ্যেই বিভিন্ন এলাকার সিটি করপোরেশন এলাকার কাউন্সিলরদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে দখল, চাঁদাবাজি করে শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। কাউন্সিলরদের কেউ কেউ সরাসরি ক্যাসিনো কারবারের সঙ্গেও জড়িত ছিলেন। অভিযানের পরপরই অনেকেই পালিয়ে দেশে ছেড়ে গেছেন। মোহাম্মদপুরের কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীবও গত দুই সপ্তাহ ধরে আত্মগোপনে রয়েছেন।

আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি