ঢাকা, রবিবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

গণনার শেষ পর্যন্ত ধৈর্য রাখুন: মমতা

প্রকাশিত : ০৯:২৩ ২৩ মে ২০১৯

গণনার শেষ পর্যন্ত ধৈর্য ধরার এবং গণনাকর্মীদের মনোবল বাড়াতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি পরামর্শ দিয়েছেন।

গণনার সময় ইভিএমে কারচুপি হতে পারে এবং ভিভিপ্যাটের সঙ্গে ইভিএমের সামঞ্জস্য নাও রাখা হতে পারে- এমন আশঙ্কা রয়েছে বিরোধী দলগুলোর।

বুথফেরত সমীক্ষার নামে বিরোধীদের মনোবল ভেঙে দেয়া এবং মানুষকে প্রভাবিত করার চেষ্টা হয়েছে বলে আগেই তিনি অভিযোগ করেছেন। এবার গণনার দিনে বিজেপির ‘এগিয়ে থাকা’র খবর ছড়িয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোরও চেষ্টা হতে পারে বলে তিনি সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন।

এজন্য গণনার টেবিলে কোনো রকম ‘মানসিক দুর্বলতা’ বা ‘শিথিলতা’র সুযোগ না দিয়ে গণনার শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করার পরামর্শ দেন তৃণমূল নেত্রী। একই সঙ্গে গণনার সময়ে কোনো রকম গোলমাল যাতে না হয়, সে ব্যাপারেও সতর্ক থাকতে বলেছেন দলের কর্মীদের। বিজেপি-বিরোধী দলগুলোর গণনাকর্মীদের ইভিএম রাতভর পাহারার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা।

ক্ষমতায় আসার পর প্রথম ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের মধ্যে মমতা পান ৩৪টি আসন। কংগ্রেস তাদের থলিতে ভরে চারটি আসন। আর বামফ্রন্ট এবং বিজেপি পায় দুটি করে আসন। এবার নির্বাচনের আগেই মমতা লক্ষ্য নেন ৪২টি আসনই জেতার।

বিরোধীশূন্য হবে পশ্চিমবঙ্গ। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির কেন্দ্রীয় সভাপতি অমিত শাহও ঘোষণা দেন, বিজেপি এবার এ পশ্চিমবঙ্গে জিতবে ২৩টি আসনে। ভোটের পর বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঘোষণা দেন, ২৩টি নয়, আরও বেশি আসনে জিতবে বিজেপি।

এমন অবস্থায় ফল ঘোষণার আগেই প্রশ্ন উঠেছে মমতা কি ৪২ আসনের সব কয়টিতে জিততে পারবেন? এ সংশয় আরও বাড়িয়ে দিয়েছে বুথফেরত সমীক্ষা। দেশের সব বুথফেরত সমীক্ষায় বলা হয়, পশ্চিমবঙ্গে দুই অঙ্কের সংখ্যার আসনে জিতবে বিজেপি। তবে মমতা এখনও জোর দিয়ে বললেন, এবার আর ফিরতে পারবেন না মোদি। মোদি হারছেনই।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি