ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২০, || মাঘ ১০ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

চুয়াডাঙ্গায় মুঠোফোন নম্বর ‘ক্লোন’ করে চাঁদাবাজির চেষ্টা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২২:৩৪ ২৮ অক্টোবর ২০১৯

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিম লিংকন ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিনের মুঠোফোন নম্বর ‘ক্লোন’ করে চাঁদাবাজি ও প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। চারটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফোন দিয়ে ল্যাপটপ দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে প্রতারক চক্র। তবে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের বুদ্ধিমত্তায় প্রতারক চক্র ব্যর্থ হয়েছে।

গত শনিবার এ ঘটনা ঘটে । ইউএনও মুনিম লিংকন এ ঘটনায় গতকাল রোববার সন্ধ্যায় দামুড়হুদা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

জয়রামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক আহম্মেদ জানান, শনিবার দুপুরে ইউএনও মুনিম লিংকনের নম্বর থেকে একটি ফোন আসে। ফোনের অপর প্রান্ত থেকে ইউএনও পরিচয়ে জানতে চাওয়া হয়, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিনকে চিনি কিনা? হ্যাঁ সূচক জবাব দিলে ইউএনও পরিচয়দানকারী বলেন, উনি আপনাকে এখনই ফোন দেবেন।’

ফারুক আহম্মেদ বলেন, ‘এর কিছুক্ষণ পর শিক্ষা কর্মকর্তা পরিচয়ে ফোন দিয়ে জানতে চাওয়া হয়, ইউএনও ফোন দিয়েছিলেন কিনা? দিয়েছিল জানাতেই আমাকে বলা হয়, তিনটি দামি ল্যাপটপ এসেছে। যদি নিতে চান, তাহলে কনফার্ম করতে হবে। কনফার্ম বিষয়ে জানতে চাইলে বলা হয় খরচ হিসেবে ৮ হাজার টাকা লাগবে। যদি না দেন, তবে অন্য প্রতিষ্ঠানে দেওয়া হবে। সরাসরি টাকা চাওয়া এবং কণ্ঠে মিল না থাকায় বিষয়টি একাডেমিক সুপারভাইজার রাফিজুল ইসলামকে জানানো হয়। কারণ এর আগেও এ ধরনের প্রতারণার ঘটনা ঘটেছিল। ’

একই কায়দায় প্রতারক চক্রের সদস্যরা ইউএনও ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার পরিচয়ে কুড়ুলগাছি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঠাকুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সদাবরি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে ফোন করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। তবে প্রধান শিক্ষকগণের বুদ্ধিমত্তায় প্রতারক চক্র ব্যর্থ হয়। বিশেষ করে কণ্ঠ ও আচরণগত বৈশিষ্ট্যে অমিল পাওয়ায় তাঁরা বিষয়টি যাচাই করেন এবং প্রতারণার বিষয়টি জানতে পারেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিন বলেন, প্রতারণার বিষয়টি জানার পর বাকিদের সজাগ থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এভাবে কেউ টাকা পয়সা চাইলে না দিয়ে কর্মকর্তাদের সরাসরি জানাতে বলা হয়েছে।

ইউএনও মুনিম লিংকন  বলেন,‘ মুঠোফোন নম্বর ক্লোন , টাকা দাবি ও প্রতারণার বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে। দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এ ধরনের ঘটনার বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।’ 

আরকে//

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি