ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ছাত্রলীগ কখনো হত্যাকাণ্ডের রাজনীতি বিশ্বাস করে না: জয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৮:০০ ৭ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে শের-ই বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষের ভেতর পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। হত্যার ঘটনায় মন্তব্য করতে গিয়ে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় বলেছেন, হত্যার রাজনীতি ছাত্রলীগ সমর্থন করে না। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ কখনো কোনো হত্যাকাণ্ডের রাজনীতি বিশ্বাস ও সমর্থন করে না।

সোমবার (৭ অক্টোবর) কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

জয় বলেন, ছাত্রলীগ অন্যায়কে কখনো প্রশ্রয় দেয়নি। বুয়েটের এ ঘটনায় যদি ছাত্রলীগের কোনো নেতা অথবা বুয়েট শাখার নেতাকর্মী বিন্দুমাত্র জড়িত থাকে, অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমরা ফৌজদারি আইনের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে অনুরোধ জানাবো আপনারা সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করুন।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, আমরা এরই মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। কমিটিতে ইয়াজ আর রিয়াদ (সহ-সভাপতি, ছাত্রলীগ) এবং আসিফ তালুকদার (সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক, ডাকসু) রয়েছেন। তাদের আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুয়েটে সাম্প্রতিক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবার নিন্দা জানাচ্ছে। ছাত্রলীগ কখনো কোনো হত্যাকাণ্ডের রাজনীতি বিশ্বাস ও সমর্থন করে না। এতে ফাহাদের পরিবার ও সহপাঠীদের প্রতি সববেদনা জানানো হয়। এবং এ ঘটনায় সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়।

ছাত্রলীগের দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি:

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে (২১) পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। আগামী একদিনের মধ্যে কমিটিতে প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য বলা হয়েছে।

আজ (সোমবার)  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় একথা জানান। ছাত্রলীগের সভাপতি বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় ছাত্রলীগের কারও বিন্দুমাত্র সম্পৃক্ততা থাকলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন,কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইয়াজ আল রিয়াদ ও সাহিত্য সম্পাদক আসিফ তালুকদার।

ময়নাতদন্ত রিপোর্ট:

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক। ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সোহেল মাহমুদ ময়নাতদন্তের পর সোমবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে এ কথা জানান। ময়নাতদন্তে আবরারের দেহে জখমের অনেক চিহ্নপাওয়া গেছে বলে জানান ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক সোহেল মাহমুদ।

ময়নাতদন্ত শেষে ডা. সোহেল বলেন, ‘আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তাঁর শরীরে অনেক জখমের চিহ্ন রয়েছে।’ আবরারকে পিটিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগে ওই হলের দুই শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকদের নাম রাসেল ও ফুয়াদ। সোমবার সকালে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটক ছাত্রলীগের ৪ নেতাকর্মী:

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িত থাকার সন্দেহে শাখা ছাত্রলীগের ৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। বিষয়টি চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাব হোসেন নিশ্চিত করেছেন। 

আটককৃতরা হলেন, বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার এবং ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন। এদের মধ্যে রাসেল ও ফুয়াদকে সোমবার সকালে এবং অনিক ও জিয়নকে দুপুরে আটক করা হয়।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি