ঢাকা, বুধবার   ১২ মে ২০২১, || বৈশাখ ২৮ ১৪২৮

ডব্লিওএইচওর কোভিড প্রতিবেদন চীনঘেঁষা, স্বতন্ত্র তদন্তের দাবি

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২২:০১, ২১ এপ্রিল ২০২১ | আপডেট: ২২:০২, ২১ এপ্রিল ২০২১

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ মহামারীর উৎপত্তি কোথায় তা নিয়ে সম্প্রতি একটি অনুসন্ধানমূলক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ভাইরাসটি চীন থেকে ছড়িয়েছে এমন একটি ধারণা অনেকের মধ্যে থাকলেও ডব্লিউএইচওর প্রতিবেদনটিতে বেইজিংকে তুষ্ট করার একটি প্রচেষ্টা লক্ষ্য করা গিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের কাউন্টারপ্লরিফারেশন ও বায়োডিফেন্স বিভাগের সাবেক পরিচালক অ্যান্থনি রজিগারো। 

তিনি মনে করেন পরবর্তী মহামারী ঠেকাতে বিষয়টি নিয়ে ‘সত্যিকার অর্থে’ স্বতন্ত্র তদন্ত হওয়া প্রয়োজন’। 

বর্তমানে ফাউন্ডেশন ফর ডিফেন্স অব ডেমোক্রিসের জেষ্ঠ্য ফেলো অ্যান্থনি রজিগারো বলেন, সংস্থাটির বর্তমান পরিচালক ট্রেডোর্স অ্যাধনম ঘিব্রেইয়েসাস ‘শুরুতেই বেইজিংয়ের বিষয়টি দৃঢ়তার সঙ্গে মোকাবেলা না করে’ বর্তমান পরিস্থিতি তৈরির সুযোগ করে দিয়েছেন। 

কোভিড-১৯ উৎপত্তি নিয়ে গত মাসে বহুল আকাঙ্খিত যৌথ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে ডব্লিউএইচও। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ভাইরাসটি প্রথমে বাদুরের শরীর থেকে অন্য কোন প্রাণীর দেহে ছড়িয়েছে এবং তা পরবর্তীতে মানবদেহে সংক্রমিত হয়েছে। আর এভাবেই মহামারীর সূচনা হয়েছে। তবে ডব্লিউএইচওর এই প্রতিবেদনটি নিয়ে বিশ্বের কমপক্ষে একডজন দেশ সংশয় প্রকাশ করেছে। এসব দেশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ডব্লিউএইচওর দলটি ‘অনেক বিলম্ব করেছে এবং সম্পূর্ণ, সঠিক তথ্য ও নমুনাও সহজে সবার সামনে প্রকাশ করেনি।’ 

রজিগারো আরো বলেন, জানুয়ারি ও ফেব্রেুয়ারিতে ডব্লিউএইচওর কর্মকর্তারা যখন চীন সফরে গিয়েছিলেন তখন বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে যা বলা হয়েছিলো তার সারমর্ম সংস্থাটির প্রতিবেদনের সঙ্গে মিল রয়েছে। তিনি বলেন, ‘ডব্লিউএইচওর দলের সফর শেষে ৯ ফেব্রুয়ারি চীনের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ল্যাব উৎপত্তি থিওরিকে ‘অত্যন্ত অসম্ভাব্য’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি চীনের বাইরে-সিসিপির (চায়না কমিউনিস্ট পার্টি) এমন দাবিও ডব্লিউএইচওরও কাছে বেশ জোর পেয়েছে। এর দুইদিন পর জেনেভায় ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক জানান সমস্ত অনুমানগুলোর তদন্ত করা হবে। কিন্তু চূড়ান্ত প্রতিবেদনে দেখা গিয়েছে ল্যাব-উৎসের বিরুদ্ধে বেইজিংয়ের পছন্দের কথাটিই এখানে রয়েছে।’

যুক্তরাষ্ট্রের এই কর্মকর্তা মনে করেন উহান ল্যাবের ফরেনসিক অনুসন্ধান নিয়ে বেইজিংকে আরো স্বচ্ছ ও সম্মত হওয়া প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘একটি প্রকৃত তদন্তের জন্য ডব্লিউএইচওর ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে হবে। সেসঙ্গে তদন্তটি পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য বাইডেন প্রশাসনকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ক্ষমতা ব্যবহার করতে হবে। এই প্রচেষ্টায় চীন ভেটো দিলেও তা চালিয়ে যেতে হবে।’ সূত্র: এএনআই

এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি