ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৯ ১৪২৮

থানায় ছিনতাইয়ের অভিযোগ দিয়ে ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের চেষ্টা 

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৮:০২, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

বন্ধু হয়ে বন্ধুর ১০ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের চেষ্টায় একজনকে গ্রেফতার করেছে  ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর পল্লবী থানা পুলিশ। আর পুলিশি তৎপরতায় ঘটনার রহস্য উদঘাটনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে এলো থলের বিড়াল।

পল্লবী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ পারভেজ ইসলাম পিপিএম(বার) জানান, ১৩ সেপ্টেম্বর মোঃ মনির হোসেন মুন্না নামের এক ব্যক্তি থানায় এসে ১০ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের বর্ণনা দিয়ে অভিযোগ করতে চান। নিজ থানা এলাকায় এতো বেশি পরিমাণ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় সন্দেহ হয় কর্তব্যরত অফিসারের। তাৎক্ষনিক টহল পুলিশের মাধ্যমে অভিযোগ দিতে আসা ব্যক্তির কথিত ঘটনাস্থলে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা ও আশপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ঘটনাস্থলে ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা ঘটেনি মর্মে পুলিশ নিশ্চিত হয়। 

এরপর কৌশলে মনির হোসেনকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে থানা পুলিশ। তখন প্রকাশ্যে আসে থলের বিড়াল। পুলিশ জানতে পারে সে নিজেই ১০ লক্ষ ২০ হাজার টাকা আত্মসাতের চেষ্টা করে ছিনতাইয়ের ঘটনা সাজিয়েছে।

টাকা উদ্ধার সম্পর্কে অফিসার ইনচার্জ বলেন, পরবর্তী সময়ে ১৩ সেপ্টেম্বর বেলা ১০:৫০টায় পল্লবীর ২নং রোডের মুন্নার ভাইয়ের ভাড়াটিয়া বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় ১০ লক্ষ ২০ হাজার টাকা।

এ ঘটনায় মুন্নার বন্ধুর অভিযোগের প্রেক্ষিতে পল্লবী থানায় রুজুকৃত মামলায় মুন্নাকে গ্রেফতার  করা হয়েছে বলে জানান অফিসার ইনচার্জ পল্লবী থানা।

তিনি বলেন, এ টাকার প্রকৃত মালিক বাদীর ছোট ভাই অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী মোঃ ফকরুল আলম ওরফে রিয়ার। তিনি পল্লবীর এক বন্ধুর নিকট এ টাকা পাওনা ছিলেন। বাদী শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তার বন্ধু অভিযুক্ত মুন্নাকে উক্ত টাকা আনার জন্য বলেন। অভিযুক্ত মুন্না পাওনাদারের নিকট থেকে চেক নিয়ে এসে ব্রাক ব্যাংক পল্লবী শাখা থেকে টাকা উঠায়। উক্ত টাকা মুন্না তার ভাইয়ের ভাড়াটিয়া বাসায় রেখে ছিনতাইয়ের ঘটনা সাজায়।

গ্রেফতারকৃত মুন্নাকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরকে//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি