ঢাকা, রবিবার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

দৌলতদিয়ায় জুতার ভেতর মিলল ১৮ স্বর্ণের বার

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:১৮ ২৭ অক্টোবর ২০১৯

দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের দৌলতদিয়া সাইন বোর্ড এলাকা থেকে এক মোটরসাইকেল আরোহীর জুতার ভেতর থেকে ১৮ পিস স্বর্ণের বাব উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার সকাল সোয়া ১০ টার দিকে এসব স্বর্ণের বার উদ্ধার করে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মোটরসাইকেল চালক দেওয়ান ইসমাইল হোসেন নামে একজনকে থানায় নেওয়া হয়েছে। সে মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর থানার গোবিন্দল গ্রামের দেওয়ান মো. জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। এছাড়া স্থানীয় আঞ্জু বেগম নামের এক নারীকেও থানায় নেওয়া হয়।

স্থানীয় আঞ্জু বেগম জানান, দৌলতদিয়ার সাইন বোর্ড এলাকায় দুইটি দ্রুতগামী পালসার মোটরসাইকেলের সংর্ঘষ হয়। এ সময় মোটর সাইকেল দুটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায় এবং স্থানীয়রা (তারা) এগিয়ে এসে চালক ও আরোহীদের উদ্ধার করে ও রাস্তার উপর পড়ে থাকা চামড়ার জুতার ভেতর থেকে ১৮ পিস স্বর্ণের বার পান। পড়ে পুলিশকে খবর দেন।

আটককৃত ইসমাইল জানান, তিনি কুষ্টিয়াতে বিএডিসির চাকরিতে যোগদানের জন্য যাচ্ছিল। তার সঙ্গে ছিল এলাকার ফরহাদের ছেলে বিল্পব নামের এক যুবক। মোটরসাইকেল সংর্ঘষের পর বিল্পব কোথায় গেছে তা জানেন না। তবে যে স্বর্ণের বার পাওয়া গেছে এগুলো তার না এবং তিনি জানেনও না এ স্বর্ণের বারগুলো কার।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, দৌলতদিয়া সাইনবোর্ড এলাকার সড়কে দুইটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এ সময় স্থানীয়রা রাস্তার ওপর পড়ে থাকা জুতার ভেতর থেকে ১৮ পিস স্বর্ণের বার পেয়ে পুলিশকে জানান। পড়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুইটি পালসার মোটরসাইকেল জব্দ ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মোটরসাইকেল চালক ইসমাইল নামের এক ব্যক্তিকে থানায় নিয়ে আসেন। তার পায়েও জুতা পাননি। তবে আটককৃত ব্যক্তির দাবি সে এ স্বর্ণের বারের সঙ্গে সম্পৃক্ত না। তিনি কুষ্টিয়া বিএডিসিতে চাকরিতে যোগদানের জন্য যাচ্ছিলেন। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বারের বিষয়ে পৃথক আইনগত ব্যবস্থা এবং এর সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রতিটি বারের ওজন ১০০ গ্রাম করে হবে।

একে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি