ঢাকা, বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

নতুন পরিকল্পনায় মেসবাহ আহমেদ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:০৯ ২২ আগস্ট ২০১৯

মেসবাহ আহমেদ। নিজের ভিন্ন ধরনের গায়কী দিয়ে সত্যিকারের গান পাগল মানুষদের মনে অন্যরকম এক অবস্থান তৈরি করে নিয়েছেন তিনি। আধুনিক, গজল আর ক্লাসিকাল ঘরানার গান করেই তিনি শ্রোতাদের মুগ্ধ করে চলেছেন। মুগ্ধতার সেই রেশ আবারও শ্রোতা দর্শকের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছেন প্রখ্যাত এই গজল শিল্পী। গানবাংলার ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’ অনুষ্ঠানে মেসবাহ আহমেদের ‘আবার দেখা হলে’ গানটি নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। যা ব্যপকভাবে সাড়া ফেলেছে।

এ বিষয়ে মেসবাহ বলেন, ‘বড় পুরস্কার পেলে মনও বড় হয়। নতুন করে নতুন গানে কাজ করতে ভালো লাগে। যতদিন বাঁচব গানে গানে বাকি জীবনটা পার করে দিতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আবার দেখা হলো গানটি নিয়ে সবার কাছ থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছি। গানবাংলার সুন্দর আয়োজনের কারণে গানটি সবার কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। এজন্য কৌশিক হোসেন তাপস ও ফারজানা মুন্নী ভাবির সহযোগিতা পেয়েছি তাদের অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

১৯৯৯ সালের মেসবাহ’র কণ্ঠে ‘আবার দেখা হলে’ গানটি অডিও ভিডিওতে জনপ্রিয় ছিল। মেসবাহ ২০০৫ সালে গজল গানের জন্য ডেইলি স্টার পার্সোনালিটি পুরস্কার পেয়েছেন।

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে মেসবাহ বলেন, ‘গজলের ১০টি গানের একটি পুরো অ্যালবাম করছি, যা ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি দেবো। এছাড়া গেল ঈদে টিবিএন চ্যানেলে ঈদের তৃতীয় দিন আমাকে নিয়ে একটা একক অনুষ্ঠান প্রচার হয়েছে। অনুষ্ঠানটি নিয়ে বেশ সাড়া পেয়েছি। এছাড়া মাই টিভির স্টুডিওতে নতুন গানের কাজ শুরু করেছি। ৮টি গান নিয়ে একজন শিল্পীর জন্য নিজের সঙ্গীত পরিচালনায় একটি প্রজেক্ট করছি। এরইমধ্যে নিজেই দুটি আধুনিক গান গেয়েছি, একটি রংধনু মেয়ে ও অন্যটি হলো হাজার বছর। গোলাম মোর্শেদের লেখা ও আমার সুর সংগীতে ফাহমিদা নবী আপার একটা পুরো অ্যালবাম রেডি আছে। তাছাড়া অচিরেই নিজের ইউটিউব এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে চাই। যেখান নিজের গানের সাজানো একটি আর্কাইভ থাকবে। তা শ্রোতাদের এবং গজল ভক্তদের কথা মাথায় রেখে ইউটিউব চ্যানেলটিতে আপডেট করতে চাই।

এসএ/

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি