ঢাকা, রবিবার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, || পৌষ ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

নায়করাজ আমাকে তার জীবনী লেখার অনুমতি দিয়ে গেছেন: ছটকু আহমেদ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:১৫ ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ২২:৪৭ ২৩ নভেম্বর ২০১৭

নায়করাজ রাজ্জাক জীবিত থাকাবস্থায় তার জীবনী লিখা শুরু করেন প্রবীণ চলচ্চিত্র নির্মাতা ছটকু আহমেদ। শুধু ‍মুখে শুনে নয় ভিডিও ধারনের মাধ্যমেও তিনি তার জীবনী গ্রন্থ লিখা শুরু করেন। আগামী বই মেলায় বইটি বের হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু এরইমধ্যে বইটি নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন নায়করাজ রাজ্জাকের ছেলে বাপ্পারাজ।  

বাপ্পার ভাষ্য, ‘আমরা কাউকে বই লিখার অনুমতি দেয়নি। ছটকু আহমেদ কোথা থেকে অনুমতি নিয়ে জীবনী লিখছেন আমরা জানি না।’

এ বিষয়ে খ্যাতিমান চিত্রনাট্যকার ও বহু সুপারহিট চলচ্চিত্রের কারিগর ছটকু আহমেদ বলেন, রাজ্জাক ভাই আমাকে খুব ভালোবাসতেন। আমি তার জীবদ্দশায় জীবনী লিখা শুরু করি। কোথায়ও কোনো ভুল হলে তিনি তা সঙ্গে সঙ্গে আমাকে শুধরে দিতেন। আমি তার জীবনী লিখছি এটা সবাই জানে। রাজ্জাক ভাইকে ভালোবাসি বলেই এ কাজে হাত দিয়েছি।   

ছটকু আহমেদ আরও বলেন, রাজ্জাক ভাই আামাকে বই লিখার অনুমতি দিয়েছেন সেটার প্রমান পত্রও আমার কাছে আছে। তিনি লিখিত এবং ভিডিও দুই মাধ্যমে আমাকে অনুমতি দিয়ে গেছেন। সুতরাং এটা নিয়ে প্রশ্ন উঠার কথা না। তাদের বাসায় বসে ঘন্টার পর ঘন্টা আমরা সময় ব্যয় করেছি।  

বাপ্পরাজ তাহলে এ বিষয়ে কেন প্রশ্ন তুলেছেন জানতে চাইলে প্রবীণ এই নির্মাতা বলেন, হয়ত কেউ তাকে ভুল বুঝিয়েছে। এমনটি হওয়ার কথা না। আমি রাজ্জাক ভাইকে ভালোবাসি বলেই এ কাজে হাত দিয়েছি। লাভের জন্য এ পরিশ্রম করছিনা। রাজ্জাক ভাই’র জীবনের নানা ঘটনাকে সংগ্রহ করে, তার শৈশব, কৈশর, জীবনের নানা বাঁক বদল, বিভিন্ন জনের কাছে গিয়ে যাছাই বাছাই করে তারপর লিখা তৈরি করছি। চেষ্টা করছি পাঠক যেন এর মধ্যে থেকে কিছু পায়। তার জীবনী থেকে কিছু শিখতে পারে। তাছাড়া রাজ্জাক ভাই কারো একার সম্পত্তি হতে পারে না। তিনি সবার। সুতরাং এটা নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কিছু নেই। আশা করি সব ঠিক হয়ে যাবে। তারাও বিষয়টি উপলব্ধি করতে পারবে।    

 

/ এআর /

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি