ঢাকা, রবিবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২০, || মাঘ ১৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

নুসরাত হত্যাকারীদের কনডেম সেলে পাঠাতে চিঠি

ফেনী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৩:৫৭ ২৮ অক্টোবর ২০১৯

ফেনী জেলা কারাগারে পৃথক কনডেম সেল না থাকায় আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১৬ আসামিকে কুমিল্লা কারাগারের কনডেম সেলে পাঠাতে আইজি প্রিজন্সের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। 

রোববার (২৭ অক্টোবর) ফেনী জেলা কারা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে এই চিঠি পাঠানো হয়।

জেলা কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার রফিকুল কাদের বলেন, ‘নুসরাত হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১৬ আসামি যেসব সেলে রয়েছে, সেগুলোতে অন্য আসামিদেরও নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘কুমিল্লা কারাগারে অনেকগুলো কনডেম সেল রয়েছে। সেসব কনডেম সেল ফাঁকা থাকলে আসামিদের সেখানে স্থানান্তর করা হবে। সেখানে ফাঁকা না থাকলে কাশিমপুরসহ যেসব কেন্দ্রীয় কারাগারে কনডেম সেল ফাঁকা রয়েছে, সেখানে আসামিদের পাঠিয়ে দেয়া হবে।’ 

এদিকে, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১৬ আসামির ডেথ রেফারেন্স আগামীকাল মঙ্গলবার যাচ্ছে হাইকোর্টে। 

বিচারিক আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর হাফেজ আহমেদ বলেন, ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামনুর রশিদের সংশ্লিষ্ট আইনের ৪(১)/৩০ ধারায় দেয়া মৃত্যুদণ্ডের রায় অনুমোদনের জন্য মামলার নথি ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারা মোতাবেক ডেথ রেফারেন্স আকারে হাইকোর্টে পাঠানোর জন্য প্রস্তুত।

তিনি বলেন, আমরা আশা করছি, আগামী ২৯ অক্টোবর মঙ্গলবারের মধ্যে নুসরাত হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজসহ ১৬ আসামির ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পাঠাতে পারব। 

৩৭৪ ধারায় বলা হয়েছে, দায়রা আদালত যখন মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করেন, তখন হাইকোর্ট বিভাগের কাছে কার্যক্রম পেশ করতে হবে এবং হাইকোর্ট বিভাগ অনুমোদন না করা পর্যন্ত দণ্ড কার্যকর করা হবে না।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী শাহ জাহান সাজু বলেন, নুসরাত হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স অগ্রাধিকারভিত্তিতে উচ্চ আদালতে শুনানির জন্য আইন মন্ত্রণালয় থেকে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়কে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এই সম্পর্কে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে পড়েছি।

তিনি বলেন, ডেথ রেফারেন্স প্রস্তুত হলে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়কে নির্দেশ দিয়ে দ্রুত শুনানির উদ্যোগ নেয়া হবে। মামলা নিষ্পত্তিতে যাতে কম সময় লাগে, সে বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের সঙ্গে কথা বলা হবে। তার এমন উদ্যোগী ভূমিকায় মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবীরা আশাবাদী হয়েছে বলেও জানান সাজু। 

প্রসঙ্গত, নুসরাত জাহান রাফিকে হাত-পা বেঁধে পুড়িয়ে হত্যার মামলায় ১৬ আসামির সবাইকে গত বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) মৃত্যুদণ্ড দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ। 

আসামিদের প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানাও করা হয়। এই টাকা আদায় করে নুসরাতের পরিবারকে দেয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আই/

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি