ঢাকা, সোমবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ১২ ১৪২৭

পটুয়াখালীর হাসপাতালে গৃহবধূর মৃতদেহ রেখে সটকে পড়েন স্বজনরা

বাউফল (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা

প্রকাশিত : ২২:৫৯, ২ অক্টোবর ২০২০

পটুয়াখালীর মানচিত্র

পটুয়াখালীর মানচিত্র

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক গৃহবধূর মৃতদেহ রেখে সেখান থেকে সরে পড়েন তার স্বাজনরা। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। মৃত গৃহবধূর নাম শাহীনুর বেগম (২৬)। তিনি বিলবিলাস গ্রামের জুয়েল খানের স্ত্রী।

জানা গেছে, নিকট আত্মীয় পরিচয়ে বদিউল আলম নামে একজন রাতে শাহীনুরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে পরীক্ষা করে মৃত ঘোষণা করলে গাড়ি সংগ্রহের কথা বলে সটকে পড়েন বদিউল। পরে খবর পেয়ে শ্বশুর বাড়ির স্বজনরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে স্থানীয় থানায় খবর পাঠায়। ঘটনার পর থেকে আত্মগোপনে আছেন জুয়েলের পরিবারের সদস্যরা। 

শাহিনুরের স্বজনরা জানান, প্রায় ছয় বছর আগে একই গ্রামের ছালাম খানের ছেলে জুয়েল খানের সঙ্গে হুমায়ূন কবির সড়দারের মেয়ে শাহিনুরের বিয়ে হয়। জুয়েল ঢাকা জজকোর্টের আইনজীবী সহকারী হিসেবে কর্মরত। তাদের তিন বছরের এক মেয়ে ও চার মাসের এক ছেলে সন্তান রয়েছে। শাহীনুরের ফুফু রওশন আরা অভিযোগ করে বলেন, ‘স্ট্রোক করছে বলে আমাদের জানানো হয়। হাসপাতালে এসে আমার মৃতদেহ পাই। বিয়ের পর থেকেই শ্বাশুড়িসহ শ্বশুর বাড়ির অন্যরা তাকে নির্যাতন করছিল।’

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুব্রত কুমার বিশ্বাস জানান, জরুরী বিভাগে নিয়ে এসে বলা হয় রশিতে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই শাহীনুর মারা যান। 

এ বিষয়ে বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এমএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি