ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

প্রতিপক্ষের হামলায় আহতদের চিকিৎসায় বাধা 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২৩:১৮ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের দক্ষিন নৈগাং গ্রামে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের হামলায় একই পরিবারের ৬ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার নৈগাং গ্রামে হারুন মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়ার পথে বাধা দেয় হামলাকারীরা।

আহতরা হলেন, মো. হারুন মিয়া (৫৮), তার ছেলে হুমায়ূন মিয়া (৩২), আফিকুর রহমান(২৫), সফিক মিয়া (২২), তারেক মিয়া (১৮) এবং ইব্রাহিমপুর গ্রামের মৃত আরজু মিয়ার ছেলে আলাল উদ্দিন। আহতদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার দিন বিকেলে পূর্ব শত্রুতার জেরে পরিকল্পিতভাবে পার্শ্ববর্তী সিংপুর হাটি গ্রামের ১০ থেকে ১২ জন দলবদ্ধ হয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র রামদা, সুলফিসুটা, নিয়ে নৈগাং গ্রামের বাসিন্দা মো. হারুন মিয়ার বাড়িতে তার পবিারের উপর পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। এতে একই পরিবারের ৬ জন আহত হন। আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়ার চেষ্টা করলে পথে তাদের বাধা দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে জানা যায়। 

এ ঘটনায় মো. হারুন মিয়া সুনামগঞ্জ সদর থানায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে ১টি মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, সিংপুর হাটি গ্রামের বাসিন্দা ফয়জুল হকের ছেলে হাবিবুর (৩৫), আশিকুর (২৮), সাইদুর (৩২), মৃত নজির আহমদের ছেলে ফয়জুল হক (৩২), মৃত ইদ্রিস আলীর পুত্র সাহেদ আলী (৫৫), ছাত্তার মিয়া (৬০), সাহেদ আলীর ছেলে কুদ্দুস মিয়া (৩০), চাঁন মিয়া (১৯), কালাই মিয়া (২৪), মৃত আব্দুল আলীর ছেলে ফাইজুল ইসলাম (৩৫), অলিল মিয়া (৩০)।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদুর রহমান বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এমএস/আরকে

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি