ঢাকা, সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

‘প্রযুক্তির প্রসারে মানুষের কর্মসংস্থান কমছে’

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২০:৫৫ ২২ আগস্ট ২০১৯

শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জাফর ইকবাল বলেছেন, দিনে দিনে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের প্রসার বাড়ছে, প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে পড়ছে মানুষ। এমন চলতে থাকলে আস্তে আস্তে মানুষের প্রয়োজন শেষ হয়ে আসবে। কারণ একটি মানুষ যে কাজ করতে পারে, একটি মেশিন তার থেকে বেশি কাজ করতে পারবে।

আজ বুধবার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল গ্র্যাজুয়েশন-২০১৯' সেরেমনি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন। 

জাফর ইকবাল বলেন, রোবট ও ডিজিটাল এজেন্টগুলির প্রভাবে শ্রমিক ও কর্মচারীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পাবে, এবং আয়-বৈষম্য বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে বেকারত্ব তো বাড়বেই, কাজে অনুপযুক্ত লোকের সংখ্যাও বেড়ে যাবে। পরিণতিতে সামাজিক ভাঙনও দেখা দেতে পারে।  সেই চিন্তা করেন এখন থেকে নিজেদের  উদ্ভাবনী দক্ষতা ব্যবহার করে নতুন নতুন কাজ ও জীবিকা তৈরীর ব্যবস্থা করে করতে হবে।

তিনি বলেন, এখন থেকে নিজেকে তৈরি করতে হবে। আমাদের জীবন শেষ হয়েছে। তোমরা এখন এই বিশ্বকে নেতৃত্ব দিবে। সেজন্য তোমাদের এখন থেকে তৈরি হতে হবে। তিনি বলেন, এখন যারা প্রযুক্তির মাধ্যমে আমাদের বিভিন্ন সেবা প্রদান করছে, তারা আমাদের সকল তথ্য সংগ্রহ করছে, একটা সময় আসবে তারা তোমাদের সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করবে। 

তাই এখন থেকে প্রযুক্তি গ্রহণ করা উচিত। প্রশ্ন আসতে পারে সেই প্রস্তুতি কী?। আমি বলবো এখন থেকে আমাদের আগামী বিশ্বকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তৈরি হতে হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আগামী ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সব মানুষকে নেটওয়ার্কের আওতায় না হবে। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন,আনতে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল জনগণের দরজার পৌঁছে দিতে ইতিমধ্যে বাংলাগভনেট ও ইনফো সরকার-২ প্রকল্পের মাধ্যমে উপজেলাগুলোকে উচ্চগতির ফাইবার অপটিক ক্যাবলের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।  সরকারের ভিশন ২০২১ সালের মধ্যে সবার জন্য ইন্টারনেটের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতে দেশের সব ইউনিয়ন কানেক্টিভিটির আওতায় চলে আসবে। এর বাইরে বেসরকারী উদ্যোগেও আইসিটি উন্নয়ন কাজ হচ্ছে। ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে আইসিটি বিষয়ও বাধ্যতামূলক করেছি। ফলে একজন শিক্ষার্থী গ্রাজুয়েশন শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে তিনি তথ্যপ্রযুক্তিবিদ হিসেবে বের হবেন।’

 
 টিআর/ 


 


 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি