ঢাকা, বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

‘বালিশ দুর্নীতি’র প্রকৌশলী ছাত্রদল নেতা!

প্রকাশিত : ১১:৫১ ১৮ জুন ২০১৯

কেনাকাটায় হয়েছে ব্যাপক দুর্নীতি। বালিশ থেকে শুরু করে পুরো প্রকল্পের বিভিন্ন বস্তুতেই দুর্নীতি হয়েছে। কেনা থেকে এ বালিশ বিল্ডিংয়ে তোলা পর্যন্ত নেয়া হয়েছে দুর্নীতির আশ্রয়। সেই দুর্নীতিতে জড়িত প্রকৌশলী শিক্ষাজীবনে ছাত্রদলের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন বলে জানা গেছে। 

ইতোমধ্যে সেই রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্পের কেনাকাটায় দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে এ প্রকৌশলীকে দায়িত্ব থেকে অপসারণ করা হয়েছে। ছাত্রজীবনে তিনি বিএনপির সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিলেন বলে গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন।

সোমবার সংসদে এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ওই ঘটনায় যিনি দায়িত্বে ছিলেন, তার কিছু পরিচয় আমরা পেয়েছি। এক সময় তিনি বুয়েটে ছাত্রদলের নির্বাচিত ভিপিও নাকি ছিলেন।’

দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য নির্মাণাধীন আবাসন প্রকল্পের আসবাবপত্রসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজে ‘অস্বাভাবিক’ ব্যয়ের অভিযোগ ওঠার পর প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার করা হয়। ওই ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটিও কাজ করছে।

প্রসঙ্গত এ প্রকল্পে একটি বালিশ ক্রয়ে ৬ হাজার ৭১৭ টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছে। বিষয়টি গণমাধ্যমে বালিশ দুর্নীতির বিষয়টি সামনে আসে। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সময় জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান বালিশের বিষয়টি তুলে ধরেন।

এর উত্তরে শেখ হাসিনা ঐ প্রকৌশলীর রাজনৈতিক পরিচয় তুলে ধরে বলেন, ‘তাকে সেখান থেকে সরানোও হয়েছে। যখনই তথ্য পেয়েছি, সাথে সাথে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। যে দলেরই হোক, আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

জন্ম থেকেই বিএনপি দুর্নীতির চরিত্রের অধিকারী উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি যিনি করেছিলেন সেনাপ্রধান থাকা অবস্থায় সংবিধান ও সামরিক আইন লঙ্ঘন করে, পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্ট খন্দকার মোশতাকের সাথে হাত মিলিয়ে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার সাথে যিনি জড়িত, হত্যার পর খুনিদের ইনডেমনিটি অর্ডারটাকে ভোটারবিহিন পার্লামেন্টে আইন হিসেবে পাস করিয়ে দিয়েছেন।’

অস্ত্রের মুখে সায়েম সাহেবকে ক্ষমতা থেকে হটিয়ে দিয়ে নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করে ক্ষমতায় এসেছিলেন জিয়া উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষমতায় দখল করার পর তাদের হাতে যে দল গড়ে উঠে তাদের চরিত্রটা জানা উচিৎ। তাদের উৎসটাই হচ্ছে দুর্নীতি। দুর্নীতিগ্রস্ততার মধ্যে থেকে উঠে আসা।’

এমএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি