ঢাকা, মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯, || কার্তিক ২৯ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বিআরটিএ কার্যালয়ে দুদকের হানা, দালালকে কারাদণ্ড

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২২:৩১ ২১ অক্টোবর ২০১৯

সেবা গ্রহিতাদের কাছ থেকে ঘুষ নেয়া ও নানা অনিয়মের অভিযোগে বাগেরহাট বিআরটিএ কার্যালয়ে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক। এসময় মিঠু মিয়া নামের এক দালালকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কারাদণ্ড দেয়া হয়। সোমবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে দুদকের খুলনাস্থ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি টিম এ অভিযান চালায়। 

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ নাজমুল হাসনের নেতৃত্বে বিআরটিএ অফিসে অভিযানকালে বিভিন্ন অনিয়মের প্রমাণ পায়। অভিযানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্তিত ছিলেন- দুদকের খুলনা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক নীলকমল পাল, খন্দকার কামরুজ্জামান, উপসহকারী পরিদর্শক মনিরুজ্জামান।

জানা গেছে, এদিন দুদকের হটলাইন ১০৬ নম্বরে ভুক্তভোগীর ফোন পায় দুদক। পরে বিকেলে দুদকের খুলনাস্থ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের একটি টিম বাগেরহাট বিআরটিএ কার্যালয়ে এ অভিযান চালায়। এসময় মিঠু মিয়া নামের এক দালালকে আটক করে দুদক। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে মিঠুকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইসতিয়াক আহমেদ। কারাদণ্ডপ্রাপ্ত মিঠু মিয়া ফরিদপুর জেলার টেবাখোলা বিড়ি ফ্যাক্টরি এলাকার মোঃ তারা মিয়ার ছেলে।

এছাড়া সেবা গ্রহিতাদের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণের অপরাধে বিআরটিএ জেলা কার্যালয়ের সিল মেকানিক মোঃ মুজিবর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেন জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ তানভীর আহমেদ। 

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ নাজমুল হাসন বলেন, হটলাইনে এক ভুক্তভোগীর অভিযোগ পেয়ে বাগেরহাটের বিআরটিএ অফিসে অভিযান পরিচালনার জন্য আসি। আমরা বাগেরহাটে পৌঁছে সেবা গ্রহীতা সেজে মিঠু মিয়াকে ফোন করি। পরে মিঠু আমার কাছে টাকা দাবি করে। আমি টাকা দিতে রাজি হলে মিঠু অফিসের সামনে আসে টাকা নিতে। মিঠু শুধু আজ নয়, দীর্ঘদিন ধরে এই অফিসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে বিভিন্ন সেবা গ্রহীতাদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আমরা মিঠুকে আটক করি। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে তিন মাসে কারাদণ্ড দেয়।

তিনি আরও বলেন, এছাড়া ওই কার্যালয়ের সিল মেকানিক মোঃ মুজিবুর রহমান ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে আসা অনেকের কাছ থেকে টাকা নেয়। আমাদের সম্মুখেই মুজিবুর রহমান ৩ জনকে টাকা ফেরত দিয়েছেন। অতিরিক্ত টাকা গ্রহণের অপরাধে বিআরটিএ বাগেরহাট জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ তানভীর আহমেদ মোঃ মুজিবুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছেন।

তিনি আরও বলেন, বিআরটিএ কার্যালয়ের মধ্যে সেবাগ্রহীতা ছাড়া অন্য কারও প্রবেশ নিষিদ্ধ, কার্যালয়ের সামনে থেকে মিঠুর দোকান অপসারণ এবং কার্যালয়ের সামনে সিটিজেন চার্টার টানানোর সুপারিশ করেছে দুদক।

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি