ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০, || মাঘ ১৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

মালয়েশিয়ায় ফেসবুকে হৈচৈ

শেখ আরিফুজ্জামান, মালয়েশিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৩:০০ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ২২:৩৭ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কোনো সিন্ডিকেট ও অতিরিক্ত অর্থ ছাড়ায় নেপাল থেকে শুধুমাত্র বিমান ভাড়া ও মেডিকেল খরচে কলিংয়ে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নেওয়ার খবরে হৈচৈ শুরু হয়েছে পুরো বাংলাদেশ কমিউনিটিসহ প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে।  

জানা যায়, মালয়েশিয়া সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০১৮ সালের মে মাস থেকে নেপাল থেকে শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করে দেয় মালয়েশিয়া। দু'দেশের মধ্যে বৈঠকের পর স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারক গত বৃহস্পতিবার বাস্তবায়নের ঘোষণা দেয় মালয়েশিয়া। এ সময় নেপালের প্রতিনিধি দল পুত্র জায়ায় মালয়েশিয়ার কর্মকর্তাদের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী যত দ্রুত সম্ভব স্বল্প খরচে নেপাল থেকে শ্রমিক নেওয়ার ঘোষণা দেন।  

এদিকে ১০ সিন্ডিকেটের দুর্নীতি, কয়েক গুন অভিবাসন ব্যয় বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন কারণে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করে দেয় মালয়েশিয়া সরকার। এরপর দু'দেশের সরকারের মধ্যে একাধিকবার বৈঠক হলেও এখন পর্যন্ত কোনো সমাধান হয়নি। 

এছাড়া সরকার মালয়েশিয়ায় কম খরচে শ্রমিক যাওয়ার ঘোষণা দিলেও মধ্যসত্ত্বভোগী, দালাল ও বিভিন্ন এজেন্টের কারণে শেষ পর্যন্ত কয়েক গুণ বেশি টাকা দিয়ে যেতে হয়। এ জন্য ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন মালয়েশিয়ায় বসবাসরত সাধারণ প্রবাসী বাংলাদেশিরা।  

নেপাল ও মালয়েশিয়া সরকারের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী স্বল্প খরচের সংবাদ প্রকাশের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনা ভাইরাল হতে শুরু করেছে। এ সময় বিভিন্ন মন্তব্য করতে থাকেন তারা।  

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দু'দেশের চুক্তির ছবি এবং খরচের বিষয় আসতেই বিভিন্ন স্ট্যাটাস দিতে থাকে প্রবাসী বাংলাদেশীরা। কেউ কেউ বলছেন সরকারের নজরদারির অভাবে এজেন্টদের জন্য আজকে এ পরিস্থিতি আবার কেউ বলছেন সরকারের মন্ত্রী আমলাদের সুবিধাভোগের কারণে অপরাধীরা পার পেয়ে যাচ্ছেন। এতে কঠোর কোনো পদক্ষেপ বা মাথা ব্যাথা নাই সরকারের।  

প্রবাসী সাংবাদিক মোস্তফা ইমরান রাজু লিখেছেন, ‘শুধুমাত্র বিমান ভাড়া ও মেডিকেল খরচ দিয়ে মালয়েশিয়ায় আসতে পারবে নেপালিরা। কোন সিন্ডিকেট নয়, কোন অতিরিক্ত অর্থ আদায় নয়।’ গোলাম মোর্শেদ নামের একজন প্রবাসী লিখেছেন, ‘বাংলাদেশে কত টাকা খাওয়া যাবে সেই ধান্দাই ব্যস্ত। নেপাল শুধুমাত্র টিকিট আর মেডিকেল ফি নিয়েই মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠায় সে খবর কয়জন রাখে।’

মেহেদি হাসান নামে একজন প্রবাসী লিখেছেন, ‘তিনবার এসেও কোন লাভ হলো না। অথচ মেডিকেল এবং টিকেট কেটেই নেপাল থেকে শ্রমিক আসবে মালয়েশিয়া। বেশি কিছু বললে আবার চাকরি থাকবে না।’

মো. রিপন ভূঁইয়া নামে একজন লিখেছেন, ‘মালেয়শিয়াতে বাংলাদেশি শ্রমিক পাঠাতে নেপালের সিষ্টেমকে কাজে লাগালে সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জল হবে।’

লিটন নামে এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘যে যাই বলুক, চোরে না শোনে ধর্মের কথা। সিন্ডিকেট করবে এবং সেখান থেকে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা সুবিধা নিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে।’

এমএস/  

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি