ঢাকা, রবিবার   ১১ এপ্রিল ২০২১, || চৈত্র ২৮ ১৪২৭

সাংবাদিক শাহীন রেজা নূরের দাফন সম্পন্ন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:৪৬, ৩ মার্চ ২০২১ | আপডেট: ১৯:৫২, ৩ মার্চ ২০২১

শহীদ সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেনের ছেলে ও প্রজন্ম’৭১ এর সাবেক সভাপতি সাংবাদিক শাহীন রেজা নূরের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার (৩ মার্চ) বিকেলে তৃতীয় জানাজা শেষে তাকে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।

এরআগে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় শাহীন রেজা নূরের মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নিয়ে আসা হয়। সেখানে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সরকারের মন্ত্রী, রাজনৈতিক নেতা, লেখক, কবি-সাহিত্যিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের প্রতিনিধিরা তার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

সাংবাদিক শাহীন রেজা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি কানাডার ভ্যাংকুভারের একটি হাসপাতালে মারা যান। আজ বুধবার ভোরে তার মরদেহ দেশে এসে পৌঁছায়। বিমানবন্দর থেকে প্রথমেই কফিন নিয়ে যাওয়া হয় মোহাম্মদপুরের আসাদ এভিনিউয়ে তার পৈতৃক বাড়িতে। সেখানে জানাজা শেষে মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে যাওয়া হয়।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে দুপুর পৌনে ১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে আরেক দফা জানাজা হয় তার।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শাহীন রেজা নূরের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আমরা একজন নক্ষত্র হারালাম। তার এভাবে চলে যাওয়া আমাদের খুব ব্যথিত করে। তিনি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পক্ষের লোক, যাদের ওপর আমরা সব সময় নির্ভর করতে পারি। শাহীনকে আমি বাচ্চাবেলা থেকে চিনতাম। আমি তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করি, তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই।’

শাহীন রেজার বড় ছেলে সৌরভ রেজা বলেন, ‘আব্বু দেশের মানুষকে অনেক ভালোবাসতেন, সবকিছুতেই তা প্রকাশ করতেন কোনো না কোনোভাবে। তার লেখনিতে তার পরিচয় পাওয়া যায়। বাবা হিসেবে তিনি কী রকম ছিলেন, সেটা বলতে গেলে বলা যায়, তিনি ছিলেন আমার চোখে শ্রেষ্ঠ বাবা।’

শাহীন রেজা নূর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতক ডিগ্রি নেওয়ার পর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর করেন। তিনি ১৯৭২ সালে ঢাকা বেতার কেন্দ্রে বার্তা বিভাগে অনুলিপিকারের চাকরি দিয়ে তার কর্মজীবন শুরু করেন। 

এরপর দৈনিক ইত্তেফাকের শিক্ষানবিশ সহ-সম্পাদক পদে ১৯৭৩ সালে যোগ দিয়ে টানা ১৬ বছর এ প্রতিষ্ঠানে সাংবাদিকতা করেন। ১৯৮৮ সালে তিনি কানাডা চলে যান। সেখানে মন্ট্রিয়লে থেকে বাংলা সাপ্তাহিক ‘প্রবাস বাংলা’ প্রকাশের সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। শাহীন রেজা পরবর্তীতে কানাডা থেকে দেশে ফিরে আসেন। তিনি আবারও দৈনিক ইত্তেফাকে যোগ দিয়েছিলেন। কিছুকাল বাংলাদেশ টেলিভিশনের বার্তা বিভাগে অনুবাদক হিসেবেও কাজ করেছেন।

এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি