ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯, || কার্তিক ৩০ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

সাভারে সন্ত্রাসীদের শাস্তির দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

সাভার প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২১:৩৪ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

সাভারে এক ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন ভুক্তভোগীর পরিবার, কাঁচাবাজারের ব্যবসায়ী, শ্রমিক ও এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার বিকালে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কাঁচাবাজারের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন থেকে জানানো হয়, সন্ত্রাসী আরিফ ওরফে টুন্ডা আরিফ এলাকায় মাদকসেবন, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি ও মারধরসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ডের মাধ্যমে এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তার সন্ত্রাসী বাহিনীর অত্যাচারে এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ হলেও ভয়ে কেউ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারে না।

তারা আরও জানায়, গতকাল রাতে আরিফ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী গেন্ডা কাঁচা বাজারের ব্যবসায়ী ও লেবার ম্যানেজার তমাল আহম্মেদকে মাইক্রোবাসে জোরপূর্বক তুলে নির্জন স্থানে নিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে।

এঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হলেও পুলিশ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। এরই প্রতিবাদে তারা সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচিতে বাধ্য হয়ে অংশ নিচ্ছেন। তাই অবিলম্বে সন্ত্রাসী টুন্ডা আরিফ ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবী জানান তারা।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার রাতে সাভার পৌরসভার সামনে থেকে একটি মাইক্রোবাসে ওই ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মারধরের ঘটনায় থানায় অভিযোগ করেন তার বোন ফারজানা আহম্মেদ মৌ। থানায় অভিযোগ দায়েরের পরও আসামীরা প্রকাশ্য ঘুরে বেড়ালে এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা এই মানববন্ধন পালন করেছে। 

সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ.এফ.এম সায়েদ বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীর বোন বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ এঘটনার তদন্ত করছে। তদন্তে যাদের দোষী মনে হবে তদেরকেই আইনের আওতায় এনে বিচারের ব্যবস্থা করা হবে। 

তিনি আরও বলেন, কারো বিরদ্ধে সুস্পষ্ট অভিযোগ না থাকলে অযথা তাকে হয়রানি করা যায় না। তিনি সন্ত্রাসীদের আটক করে বিচারের সম্মুখীন করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

কেআই/এসি
  

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি