ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

সিনেমা হল মালিকদের দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২০:১৮ ২০ নভেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ২০:২৩ ২০ নভেম্বর ২০১৯

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সিনেমা হল মালিকদেরকে সহজ ও দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেওয়া হবে। এ জন্য আমি ইতিমধ্যে অর্থমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি।’

তিনি বলেন, ‘সরকার দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনতে এবং বিশ্বব্যাপী চলচ্চিত্রের বাজার ধরতে চায়।’

বুধবার (২০ নভেম্বার) সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির (বিসিএসএস) নবনির্বাচিত নির্বাহী কমিটির সদস্যরা মন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে মন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

তথ্য মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের চলচ্চিত্র জগতের বন্ধ্যাকাল শেষ হয়েছে। কিন্তু এ শিল্পের স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনতে আমাদের সময়ের প্রয়োজন।’ মন্ত্রী বলেন, চলচ্চিত্র শিল্প বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন মাধ্যম।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সমাজের উপর চলচ্চিত্রের প্রভাব উপলব্দি করে ১৯৫৭ সালে ফিল্ম ডেভলপমেন্ট কর্পোরেশন (এফডিসি) গঠনের জন্য পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক পরিষদে একটি বিল উত্থাপন করেছিলেন এবং সেই ধারাবাহিকতায় এফডিসি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

চলচ্চিত্র হল সমাজের একটি আয়না এবং এটি মানুষের কথা বলে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দেশে সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা করার জন্য চলচ্চিত্রের শিল্পের স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনতে আমাদেরকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

তিনি বলেন, একটি চলচ্চিত্র মানুষের ইতিহাস, তাদের জীবনযাত্রা এবং দুঃখ এবং সুখের গল্পগুলোকে চিত্রিত করে। তিনি আরো বলে, ‘চলচ্চিত্রে মানুষের জীবন এবং তাদের (জনগণের) চিন্তাভাবনা ফুটিয়ে তুলতে অসামান্য ভূমিকা পালন করে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাধারণ দর্শকরা সিনেমা হল বিমুখ হওয়ায় দেশের অনেক সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেছে। সিনেমা হলগুলো বন্ধ হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির স্বার্থেই সিনেমা হলগুলোকে রক্ষা করা উচিত।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশের জন্য এফডিসিতে প্রায় ৩২২ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিক সরঞ্জাম ও প্রযুক্তি সম্বলিত একটি নতুন ভবন নির্মাণসহ বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, আমরা এফডিসির আধুনিকায়নের জন্য প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ গ্রহণ করব।

মন্ত্রী বলেন, গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটি স্বল্পতম সময়ের মধ্যেই বিশ্বমানের স্পটে পরিণত হবে। ভালো সিনেমা বাংলাদেশে নির্মিত হচ্ছে এবং কয়েকটি চলচ্চিত্র আন্তর্জাতিক পুরষ্কার পেয়েছে এবং প্রশংসিত হয়েছে।

মন্ত্রী চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশের জন্য প্রযোজক ও চলচ্চিত্র পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ভালো চলচ্চিত্র তৈরি করার আহ্বান জানান।

শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, সহ-সভাপতি মনোয়ার হোসেন ডিপজল এবং মাসুম পারভেজ রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত ও জ্যাকি আলমগীর, আলী রাজ, অরুণা বিশ্বাস, অঞ্জনা, আসিফ ইকবাল, আলেকজান্ডার বো, রোজিনা, ইমন, জয় চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি