ঢাকা, বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯

‘হালদায় মন ছুঁয়েছে’

একুশে টেলিভিশন

 প্রকাশিত: ২৩:৫৮ ৩০ নভেম্বর ২০১৭   আপডেট: ২২:৫৩ ১ ডিসেম্বর ২০১৭

নির্মাতা তৌকির আহমেদ অনেক যত্ন করে নির্মাণ করেছেন ‘হালদা’ চলচ্চিত্রটি। এর প্রিমিয়ার শোও অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে মিডিয়ার ব্যক্তিবর্গ, ছবিটির কলাকুশলী ও আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে সন্ধ্যা ৭টায় এর প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হয়।

চলচ্চিত্রটি দেখে অনেকে ভূয়সী প্রশংসাও করেছেন। ছবিটির গল্প, মেকিং, অ্যামম্বিয়েন্ট সাউন্ড অনেকের কাছে খুবই ভালো লেগেছে। হালদা একটি নদী মাতৃক ছবি। তবে পরিচালক গল্পে শুধু নদীর মধ্যেই থেমে থাকেননি। তিনি এর মাঝে প্রেম, দ্বন্দ্ব, ভালোবাসা, সংঘাত এবং একটি নদীর নীরব কাঁন্নাকে তুলে ধরেছেন। যা দর্শকের মনকে ছঁয়ে যায়। ছবিতে হাসু চরিত্রের ভূমিকায় অভিনয় করা তিশার জীবনের কষ্টকে পরিচালক সমান্তরালভাবে নদীর কষ্টের সঙ্গে গল্পকে এগিয়ে নিয়েছেন।

ছবিটি দেখে এ প্রসঙ্গে তরুণ পরিচালক বুলবুল বিশ্বাস বলেন, সত্যি অসাধারণ একটি ছবি হয়েছে ‘হালদা’। একটি অঞ্চলের মানুষের জীবন নিয়ে এতো সুন্দর করে ছবি বানানো যায়, না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না। ছবির কাহিনীটি যেভাবে আবর্তিত হয়েছে তা অনেক সুন্দর। যা খুব সহজেই দর্শকের মন ছুঁয়ে যায়। ছবিতে সবাই ভালো অভিনয় করেছে। তার মধ্যে তিশার অভিনয় অনেক ভালো লেগেছে।

ছবিটি দেখে বের হওয়ার পর এ প্রসঙ্গে পরিচালক অনিমেষ আইচ বলেন, অনেক ভালো একটি সিনেমা হয়েছে। আমার অনেক ভালো লেগেছে। ছবিটির গল্প অনেক সুন্দর।

২ ঘণ্টা ১৭ মিনিটের এই ছবিটি শেষ না হওয়া পর্যন্ত সবাই তন্ময় হয়ে দেখেন। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় ছবিটি নির্মিত হলেও এর মধ্যে ছিলনা কোনো ভাষার জটিলতা। ছবিতে তিশা ছাড়াও মোশাররফ করিম, জাহিদ হাসান ও ফজলুর রহমান বাবুর অভিনয় সবাইকে মুগ্ধ করে। আরো অভিনয় করেছেন রুনা খান, দিলারা জামান, মোমেনা চৌধুরী প্রমুখ।

হালদার গল্প লিখেছেন আজাদ বুলবুল। এর চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন পরিচালক নিজেই। ছবিটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন পিন্টু ঘোষ। এর পরিবেশক হিসেবে ছিলো দি অভি কথাচিত্র।

 

এসি/টিকে

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

শিরোনাম