ঢাকা, সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ১১ ১৪২৮

করোনায় এক টুকরো কটন বলেই মিটবে সমস্যা!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:২৩, ১৯ জুলাই ২০২০ | আপডেট: ১৪:৩৩, ২০ জুলাই ২০২০

ছোট তুলোর বলেই অনেক সমস্যার সমাধান। করোনা আবহে অনেকেরই মানসিক অস্থিরতা বেড়েছে। গুছিয়ে কাজ করা তো দুর কাজে মনই বসছে না। সমস্যাটা কমার বদলে আরো বাড়ছে। এর মধ্যে ছোট ছোট কিছু সমস্যা আমাদেরকে প্রায়ই মুশকিলে ফেলছে। যেমন ধরুন নিয়মিত ভাবে ঘর পরিষ্কার করা কিংবা বাইরে বের হলেই ঘেমে যাওয়া। এই সব সমাধান রয়েছে কটন বলে।

১)  বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় পারফিউমের বোতল নিয়ে বের হওয়া মানে সেটিও স্যানিটাইজ করতে হবে। তার চেয়ে বরং একটা কটন বলে পারফিউম নিয়ে সেটি জিপার ব্যাগের মধ্যে রেখে দিন। খুব গরম লাগলে কিংবা ক্লান্ত লাগলে কটন বলের পারফিউম লাগিয়ে নিলে দেখবেন দিব্যি তরতাজা লাগছে।
২) বাড়ির বিভিন্ন কোণে কটন বলের মধ্যে রুম ফ্রেশনার লাগিয়ে রেখে দিলে মন ভাল হবে। বর্ষাকালে পিঁপড়ের সমস্যাও হয়। কটন বলে হলুদ গুঁড়ো লাগিয়ে রাখলে পিঁপড়ের সমস্যা কমে। এ ছাড়াও কটন বলে ফিনাইল দিয়ে সেগুলি রান্নাঘর এবং ঘরের কোণে রেখে দিলে সেগুলি জীবাণুনাশকের কাজ করবে।

৩) করোনা সংক্রমণ এড়াতে চিকিৎসকরা পায়ের যত্ন নিতে বলছেন। অনেক সময় পায়ে কড়ার দাগ থাকে কিংবা ফোসকা পড়ে যায়। ব্যান্ডেজ লাগানো যাচ্ছে না হয়তো। সে ক্ষেত্রে কটন বলই সুরক্ষা দিতে পারে। কটন বলে কোনও অ্যান্টিসেপটিক লাগিয়ে সেটি আঙুলের খাঁজে দিয়ে জুতো পরলে ব্যথাও কম লাগে।
৪) বর্ষাকালে আলমারিতে রাখা জামাকাপড় থেকে অনেক সময় একটা ভ্যাপসা গন্ধ বেরোয়। সেখান থেকেও মুক্তি মিলবে কটন বল থাকলেই। বাড়িতে ভ্যানিলা এসেন্স থাকলে কটন বলে তা দিয়ে আলমারির প্রতিটি কোণে রেখে দিন। দেখবেন, আলমারি খুললেই বিরক্তি ভাবটা এক্কেবারে কমে গিয়েছে।
৫) মাস্কে মুখ ঢাকা থাকলে তো আর  মেক-আপ করায় হয় না। তবু যদি ইচ্ছে করে কখনও? বাইরে বেরলে কটন বলের মধ্যে আলাদা আলাদা করে মেক আপ, ব্রোঞ্জার ব্লাশ লাগিয়ে একটা জিপ ব্যাগে ভরে বেরিয়ে পড়ুন। চাইলে হাত স্যানিটাইজ করে টাচ আপ করে নিন ওই কটন বলের মেক-আপটুকু দিয়েই।
৬) গয়না, বিশেষ করে ছোট দুল বা নাকছাবির ক্ষেত্রে বাক্সে রাখার সময়ও অতিরিক্ত সতর্কতা নিতে হয়। সেক্ষেত্রে বাক্সে রাখার আগে একটি কটন বলে নাকছাবিটিকে মুড়ে রেখে দিন। হারানোর আশঙ্কাও থাকবে না।

৭) করোনা আবহে একটি জরুরি জিনিস হল গ্লাভস। তবে বাজার চলতি অনেক গ্লাভসেরই আয়ু বেশি দিন নয়।আঙুলের কাছটা ছিঁড়ে যায়। অনেক সময় নখ লেগেও ছিঁড়ে যায়। সেক্ষেত্রে গ্লাভসের আঙুলের অংশে কটন বল ব্যবহার করতে পারেন। কুশনের কাজ করবে এটি।

বাজারে বা অনলাইন কটন বল কিনতে পাওয়া যায়। এ ছাড়াও কটন বান্ডিল থেকেও বানিয়ে নেওয়া যেতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে হাত যেন স্যানিটাইজ করা থাকে, সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। সূত্র-আনন্দ বাজার পত্রিকা

এসইউএ/এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি