ঢাকা, শনিবার   ১৯ জুন ২০২১, || আষাঢ় ৪ ১৪২৮

কিশোরগঞ্জে হাওরের বুক চিরে স্বপ্নের সড়ক (ভিডিও)

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৩:০২, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

কিশোরগঞ্জে হাওরের বুক চিরে নির্মিত হয়েছে স্বপ্নের সড়ক। ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলাকে সংযুক্ত করা সড়কটি বদলে দিয়েছে এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা। সূচনা করেছে মৌসুম ভিত্তিক স্থানীয় পর্যটনের।

‘বর্ষায় নাও, আর শুকনায় পাও’ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে কিশোরগঞ্জের হাওর অঞ্চলে এই প্রবাদটি ব্যাপক প্রচলিত। বাস্তবতাও ছিল এরকমই।  

গত কয়েক বছরে এই এলাকায় গড়ে উঠেছে যোগাযোগ অবকাঠামো। বদলে দিয়েছে সনাতনী যাতায়াত পদ্ধতি। শুকনো মৌসুমে চলাচল এবং বর্ষার আগে ফসল রক্ষার জন্যে গড়ে উঠেছে সাবমার্জেবল সড়ক নেটওয়ার্ক। আর সারা বছরের চলাচল উপযোগী পাকা সড়ক। হওরের বুক চিরে গড়ে ওঠা এই সড়ক দেশের মূল সড়ক ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত করেছে ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলাকে। 

বর্ষায় হাওর এলাকায় মাছ ধরা ছাড়া আর তেমন কোন কাজ থাকতো না। ৩০ কিলোমিটার পাকা সড়ক নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। জলের রাজ্যে ভেসে থাকা এই সড়ক আকৃষ্ট করেছে হাজার হাজার স্থানীয় পর্যটককে।

আগত পর্যটকরা জানান, প্রেসিডেন্টের এলাকা, আমরা খুবই আনন্দিত যে উনি এতো সুন্দর একটা রাস্তা আমাদেরকে উপহার দিয়েছেন। 

হাওরবাসীরা জানান, বাড়ি থেকে রোগী নিয়ে যাওয়া বা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামে চলাফেরায় খুবই কষ্টসাধ্য ছিল। এখন রাস্তা হওয়াতে আমাদের খুবই উপকার হয়েছে। অন্য আরেকজন জানান, আগের অবস্থা মানুষের জন্য খুব কষ্টকর ছিল। মহামান্য রাষ্ট্রপতির অবদানে এই রাস্তা হওয়াতে যে কোন জায়গায় গিয়ে আমরা দিনে দিনে ফিরে আসতে পারছি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য বলেন, সড়কটিকে কেন্দ্র করে হাওর পর্যটন ব্যবস্থা গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক বলেন, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে এই রাস্তার সৌন্দর্য দেখার জন্য আসে। এটা যাতে স্থায়ীভাবে পর্যটনের জন্য কিছু করা যায় সে ব্যাপারে আমরা চিন্তা-ভাবনা করছি।

প্রায়  নয়শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সড়কটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করার কথা রয়েছে। 

এএইচ/এমবি


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি