ঢাকা, বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪

তামাক চাষে নানাভাবে প্রলুদ্ধ করা হয় কৃষকদের (ভিডিও)

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৪:৪০, ১৭ এপ্রিল ২০২২

উত্তরের সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটে থামছেই না বিষবৃক্ষ তামাকের চাষ। বিনামূল্যে বীজ সার ও কীটনাশক সুবিধা দিয়ে কৃষকদের নানাভাবে প্রলুদ্ধ ও চাষে বাধ্য করছে তামাক কোম্পানিগুলো। মাটি পরিবেশ ও মানবস্বাস্থ্যের ক্ষতি জেনেও সাময়িক লাভের কারণে এ ফসল চাষে বেশি বেশি ঝুঁকছেন তারাও।

দূর থেকে ফসলের সবুজ সমাহার চোখে পড়লেও এগুলো আসলে বিষবৃক্ষ তামাক। প্রতিবছর জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত এসব ক্ষেতে ভরে যায় লালমনিরহাটের গ্রামগুলো।

বীজতলা তৈরি থেকে তামাক শুকানো পর্যন্ত কৃষকদের দিনরাত করতে হয় কঠোর পরিশ্রম। পরিবারের শিশু থেকে বয়স্ক সবাই মিলে এ কাজে থাকায় সবারই স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হয়। বেশিরভাগ আক্রান্ত হয় নানা রোগ-ব্যধিতেও।

কৃষকরা জানান, “সার ও টাকা দিলে চাষবাস করে তারা আবাদ করতে পারে। এটা ভেবেই চাষীদের সহযোগিতা করে কোম্পানি।”

আরেক চাষী জানান, “অস্বাভাবিক সার লাগে, তাতে খরচ পোষায় না।”

তামাকচাষ থেকে কৃষকদের ফিরিয়ে আনতে নানা শাক-সবজি ও ফলমূল আবাদে উদ্বুদ্ধ করছে কৃষি বিভাগ। এ বছর গত বছরের তুলনায় দেড় হাজার হেক্টর জমিতে কম তামাকচাষ হয়েছে বলেও দাবি তাদের। 

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মো. আবু জাফর বলেন, “এবছর প্রায় ৬১ হাজার কৃষককে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। এটা কিন্তু বড় ধরনের সহায়তা বলে আমি মনে করি। কৃষকরা যদি এই ধরনের সহযোগিতা পায় তাহলে নিশ্চয়ই তারা তামাক বা অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ যে কাজগুলো আছে সেগুলো থেকে ফিরে আসবে।”

কৃষকদের আরও বেশি প্রণোদনা দিলে তারা অন্য ফসলেই ঝুঁকবেন বলে মনে করেন এলাকারবাসী।

এএইচ/


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি